প্রকাশ : ০১ ডিসেম্বর, ২০১৬ ২৩:৫৬:৫১
এইডস্ রোগে সিলেট সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ
বাংলাদেশ বাণী, জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : জগন্নাথপুরে বিশ্ব এইডস্ দিবস পালিত হয়েছে। এইডস্ দিবস উপলক্ষে বীমা কর্মকর্তা রাখাল চৌধুরীর উদ্যোগে গণসচেতনতা মূলক আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে পৌর শহরের একটি রেস্টেুরেন্টে জগন্নাথপুর ন্যাশনাল লাইফ ইন্সুরেন্সের ম্যানেজার আব্দুল মুকিতের সভাপতিত্বে ও উদ্যোগক্তা বীমা কর্মকর্তা রাখাল চৌধুরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, সমাজ সেবক হারুন মিয়া, ব্যবসায়ী রানাব্রত দাস, জগন্নাথপুর উপজেলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মো.শাহজাহান মিয়া, সাংবাদিক রিয়াজ রহমান, উপজেলা প্রেসক্লাবের যুগ্ম-সম্পাদক হিফজুর রহমান তালুকদার জিয়া, সংবাদকর্মী বিপ্লব দেবনাথ, জগন্নাথপুর হোটেল-শ্রমিক সংগঠনের কোষাধ্যক্ষ কোকিল দাস, জগন্নাথপুর হিজড়া সংগঠনের একাংশের সাধারণ সম্পাদক মিতালী হিজড়া, সমাজকর্মী ডলি বেগম, নার্গিস বেগম, ব্যবসায়ী নীলমনি তালুকদার, অর্জুন রবিদাস, হোটেল-শ্রমিক নেতা সাজ্জাদ মিয়া প্রমূখ।
সভায় বক্তারা বলেন, ১৯৮১ সালে আফ্রিকার বন মানুষ থেকে মরণব্যধি এইডস্ রোগের জন্ম হয়। এরপর থেকে সারা বিশ্বে এ রোগ দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। এখন পর্যন্ত পৃথিবীতে এ রোগ নির্মূলে কোন ওষুধ আবিস্কার না হওয়ায় এইডস্কে মরণব্যধি হিসেবে আখ্যায়িত করা হয়। তবে এটি কোন ছোঁয়াছে রোগ নয়। সংক্রামক এইচ আইভি ভাইরাস এইডস্ রোগ অবাদ মেলামেশা ও সিরিঞ্জের মাধ্যমে রক্ত আদান-প্রদানের কারণে মানবদেহে ছড়ায়। বর্তমানে সীমান্ত ও প্রবাসী অঞ্চল হওয়ায় সিলেট এইডস্ রোগের জন্য সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ। গত বছর সিলেটে এইডস্ রোগীর সংখ্যা ছিল ৭০৫ জন। এর মধ্যে ২৭৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। এইডস্ রোগের লক্ষণ ও প্রতিরোধে করনীয় শীর্ষক ব্যাপক আলোচনা হয়। সভায় বক্তারা আরো বলেন, ১৯৯৭ সালে রেডিওতে শোনে বীমা কর্মকর্তা রাখাল চৌধুরী উদ্বুব্দ হয়ে এখন পর্যন্ত মরণব্যধি এইডস্ নিয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। তিনি কিভাবে এ রোগ থেকে মানুষকে মুক্ত রাখা যায় এবং গণসচেতনতা মূলক প্রচার-প্রচারণাসহ বিভিন্নভাবে কাজ করছেন। বক্তারা রাখাল চৌধুরীর মতো কাজ করতে এবং মরণব্যধি এইডস্ বিষয়ে আরো সচেতন হওয়ার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।
সর্বশেষ সংবাদ
  • ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন বঙ্গবন্ধু'র ৭ মার্চের ভাষণ : ২৫ নভেম্বর দেশব্যাপী আনন্দ শোভাযাত্রা দ. কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজ মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর যৌথ সামরিক মহড়ায় যোগ দেবেঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ‘কাস্টমস এন্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিস’ চালু২০২৪ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে শতভাগ বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে : বানিজ্যমন্ত্রীরোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্যের সহযোগীতা চাইলো ঢাকা খুলনা-কলকাতা চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেনের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
  • ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন বঙ্গবন্ধু'র ৭ মার্চের ভাষণ : ২৫ নভেম্বর দেশব্যাপী আনন্দ শোভাযাত্রা দ. কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজ মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর যৌথ সামরিক মহড়ায় যোগ দেবেঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ‘কাস্টমস এন্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিস’ চালু২০২৪ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে শতভাগ বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে : বানিজ্যমন্ত্রীরোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্যের সহযোগীতা চাইলো ঢাকা খুলনা-কলকাতা চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেনের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
উপরে