প্রকাশ : ০১ আগস্ট, ২০১৭ ০০:৫৫:২৪
পর্যটকদের ভিড়ে এখন মুখরিত : আসছেন বিদেশী পর্যটক
ঝালকাঠিতে জমে উঠেছে ভাঁসমান পেয়ারার অন্যরকম হাট
বাংলাদেশ বাণী, মো: নজরুল ইসলাম, ঝালকাঠি জেলা প্রতিনিধি : ঝালকাঠির পেয়ারাকে কেন্দ্র করে দশ গ্রামে এখন জমে ওঠেছে ভাসমান বাজার। প্রতিদিন দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজার হাজার পর্যাটক আসছেন দলে দলে। আসতে শুরু করেছেন বিদেশীরাও। কিন্তু পর্যটনের এত সম্ভাবনা থাকা সত্বেও এখানে গড়ে ওঠেনি পর্যটকদের জন্য কোন সুব্যবস্থা নেই।

ঝালকাঠি সদর উপজলোর ২০টি গ্রামে ৫০০ হেক্টর জমিতে পেয়ারার চাষ হয়। শত বছর ধরে বংশানুক্রমইে এখানকার হাজার হাজার মানুষ কান্দি বা সজ্জন প্রদ্ধতিতে পেয়ারা চাষ করে আসছেন। বছররে প্রায় ১২ মাসই এ অঞ্চলে পানি দ্বার বেষ্টিত থাকে।

শ্রাবন থেকে ভাদ্র মাস পর্যন্ত এসব গ্রামগুলোতে ভাসমান হাটে পেয়ারা বেচাকেনা চলে। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে পাইকাররা এসব ভাসমান হাট থেকে পেয়ারা কিনে নিয়ে যান। ভাসমান হাটগুলোর মধ্যে ঝালকাঠি সদর উপজেলার র্কীতিপাশা ইউনয়িনরে ভীমরুলী গ্রামরে ভীমরুলী খালের ওপরের ভাসমান হাটটি সবচে বড়।

পেয়ারাকে কেন্দ্র করে শ্রাবন থেকে ভাদ্র মাস পর্যন্ত ভাসমান বাজাটি জমে ওঠে। এবছর পেয়ারার ফরনও ভাল হয়েছে। এখনমৌসুম শুরুতে দাম একটু কম। তবেশেষের দিকে দাম বেশি পাওয়া যাবে বলে চাষি ও কৃণি বিভাগ আশা করছে। ক্রেতা বিক্রেতা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিদিনি ৪/৫ হাজার পর্যাটক আসেন ভাসমান বাজারের দৃশ্য উপভোগ করতে।

আসছেন বিদেশীরাও। কিন্তু এখানে এসে প্রাকৃতিক নৈসর্গিক পরিবেশ তাদের আকৃষ্ট করলেও পর্যটকদের জন্য কোন প্রকার সুযোগ-সুবিধা না থাকায় হতাশা প্রকাশ করেন সবাই।এত বছরেও এখানে তৈরি হয়নি পর্যটকদের জন্য কোন বিশ্রামাগার। নারীদের জন্য তাই অসুবিধা একটু বেশি। খাবারের জন্যও নেই কোন ভাল হোটলে কিংবা রেস্তোরা।

ঝালকাঠি কৃষি সম্প্রসারণ অধদিপ্তররে উপ-পরিচালক জানালেন, এখানে পর্যাটন কেন্দ্র গড়ে তোলার জন্য কর্তৃপক্ষের লেখা-লেখি করা হয়েছে। জেলার ব্রান্ডিংযের জন্য পেয়ারার প্রস্তাব করে প্রচার-প্রচারনা চালানো হচ্ছে।

ঝালকাঠি সদর উপজেলার ভীমরুলী গ্রামের এ ভাসমান হাটটি পর্যাটনের শিল্পে সবচে বড় সম্ভাবনা। ইতোমধ্যেইে পর্যটকদের দৃষ্টি আর্কষণ করেছে ভীমরুলীর ভাসমান হাটটি। এখানে প্রতিদিন গড়ে তিন হাজার পর্যটকের আনাগোনা এখন। তাই সরকারি পৃষ্টপোশকতায় এখানে গড়ে উঠতে পারে দেশের অন্যতম পর্যাটন কেন্দ্র।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে