প্রকাশ : ০১ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০২:০৯:২৬
‘ফসলের রোগ দমনে বিনা জৈব-ছত্রাক নাশক পরিবেশ বান্ধব প্রযুক্তি আবিস্কার’
বাংলাদেশ বাণী, নকলা (শেরপুর) থেকে ইউসুফ আলী মন্ডল : বিনা জৈব-ছত্রাক নাশক ফসলের রোগ বালাই ধ্বংসকারী একটি জীবানু গঠিত ছত্রাক নাশক প্রযুক্তি আবিস্কার করেছেন। প্রযুক্তিটি কৃষি বৈজ্ঞানিকরা ২০০৮ সালে বিভিন্ন জেলার ফসলের জমি থেকে ২’শ টির উপরে ট্রাইকোডারমা ছত্রাক আহরিত করে পরীক্ষাগারে এন্টাগোনেস্টিক ক্ষমতা যাচাই করে শক্তিশালী টিআরডি-১০ নামের একটি আইসোলেট নির্বাচনের মাধ্যমে এ আইসোলেটে ৫০, ১০০, ১৫০, ২০০, ৩০০, ৩৫০ গ্রে মাত্রায় রেডিয়েশন প্রয়োগ করে প্রাপ্ত শক্তিশালী আইসোলেটটি টিআরডি-১০ এম উক্ত জৈব ছত্রাক নাশক ফরমুলেশনে ব্যবহার করা হচ্ছে।

বিভিন্ন ফসলের গোড়া পঁচা ও ঢলে পড়া রোগ দমনে এটি অধিক কার্যকরী। এটি কৃষিজ উচ্ছিস্টে জন্মানো একটি পেস্টিসাইড। তবে পিট মাটি বা ট্যালকল পাওডারেও ফরমোলেট তৈরি করা যায়। এটি জীবানু গঠিত তাই ব্যবহার ও প্রয়োগ পদ্ধতি অন্যান্য রাসায়নিক পেস্টিসাইট থেকে একটু ভিন্ন।

এটির ব্যবহারের কৌশলীর উপর রোগদমনে কার্যকারিতা অনেকাংশে নির্ভর করে। বিভিন্ন গবেষনায় মসুর, ছোলা, সয়াবিন, টমেটো ও ঢেড়সের গোড়া পচা রোগ এমনকি ধানের খোলপোড়া রোগ দমনে অধিক কার্যকর বলে প্রমাণিত হয়েছে। বিনা উদ্ভাবিত ছত্রাক নাশক জৈব ব্যবহার করে কৃষকদের ফসল অনুযায়ী রোগ দমন করা অনেকাংশে নিশ্চিত হয়।

নিদির্ষ্ট পদ্ধতিতে ইহা ব্যবহার করলে ধানের গোড়া পচা রোগ ৬০% কমে যায়। ফসলের কোন উপকারী অনুজীবকে ধ্বংস করে না। তাই এর ব্যবহার পরিবেশের ক্ষতি হয় না। মাটি ও ফসলের গুনাগুন অক্ষুন্ন রাখে। কোন কোন ফসলের বৃদ্ধিতেও সহায়তা করে। সংক্ষিপ্ত প্রশিক্ষণ দিয়েই কৃষক ছত্রাকনাশক খুব সহযেই ব্যবহার করতে পারে।

এটি পরিবেশ বান্ধব রাসায়নিক ছত্রাক নাশকের বিকল্প হিসেবে ব্যবহার করা যায়। রাসায়নিক ছত্রাক নাশক বার বার ব্যবহারে মাটির গুণাগুন নষ্ট হয়। কিন্তু জৈব ছত্রাক নাশক ব্যবহার করলে মাটির গুণাগুণ আরো বহু অংশে বেড়ে যায়। এটি বাড়ির আঙ্গিনায় জৈব পদার্থ দ্রুত পচনে সহায়তা করে। তাই জৈব সার তৈরিতেও সহায়তা করে।

মাটি ও বীজ শোধন পদ্ধতি যে মাটিতে প্রতি বছর ফসলের গোড়া পচা রোগ দেখা যায় সেই মাটিতে প্রতি বছর জো-কন্ডিশনে বীজ রোপন বা রোপনের ৭দিন পূর্বে উক্ত ছত্রাক নাশক ১০০ কেজি প্রতি হেক্টরে মাটির সাথে মিশিয়ে দিতে হবে। ২০ দিন পর পর ৫০ কেজি করে প্রয়োগ করতে হবে। টবের মাটিতে ব্যবহার করতে হলে ৬ইঞ্চি গভীর পর্যন্ত প্রতি ১ কেজি মাটিতে ২ গ্রাম হিসেবে দিতে হবে।

বীজ তলাতে ও অনুরোপভাবে ব্যবহার করা যায়।  তবে বীজ বা চারা রোপনের ৭দিন পূর্বে প্রয়োগ করতে হবে। বীজ শোধনে ওজনের ৩% উক্ত ছত্রাক নাশক ব্যবহার করতে হবে। ব্যবহার কারীর সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে।

বাংলাদেশ পরমানু কৃষি গবেষনা ইনস্টিটিউট (বিনা) এর উদ্ভিদ রোগতত্ব বিভাগ এর ব্যবস্থাপনায় বেশ কয়েকজন কৃষি বৈজ্ঞানিক ড. আবুল কাশেম, ড. হোসনে আরা বেগম, ড. মাহবুবা কার্নিজ হাসনা, ড. মোঃ ইব্রাহিম খলিল, ড. এম রইসুল হায়দার, ও ড. মোঃ জাহাঙ্গীর আলম পরিবর্তিত আবহাওয়ায় উপযোগী বিভিন্ন ফসল ও ফলের জাত উন্নয়ন কর্মসূচির অর্থায়নে এ প্রযুক্তিটি কৃষকদের মাঝে ছড়িয়ে দিচ্ছেন।   
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • যশোরে পৃথক স্থান থেকে ৪ জনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশটঙ্গীর তুরাগ তীরে চলছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব : কঠোর নিরাপত্তা বলয়শ্রীলংকাকে ১৬৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশঢাকা উত্তর সিটি'র উপ-নির্বাচনে আদালতের ৩ মাসের স্থগিতাদেশসুন্দরবনের ৩ কুখ্যাত জলদস্যুবাহিনীর প্রধানসহ ৩৮ জনের আত্মসমর্পণজাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ : ভবিষ্যতে বাংলাদেশে জাতীয় ঐক্যের দাবি প্রধানমন্ত্রী'ররাজধানী'র জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের সফল অভিযান : ৩ মৃতদেহ ও বিস্ফোরক উদ্ধারপদোন্নতি পেলেন বঙ্গবন্ধু'র খুনিদের গ্রেফতারকারী প্রথম পুলিশ অফিসারবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণীআম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বরাজধানীতে তীব্র গ্যাস সংকট : জনমনে ক্ষোভ জঙ্গি ও অন্যান্য অপরাধ দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে : আইজিপিঅর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি'র সভায় ১৩টি প্রকল্প অনুমোদনপুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই : প্রধানমন্ত্রীফারমার্স ব্যাংক কর্তৃক-জলবায়ু ট্রাস্ট তহবিলসহ আমানতকারীদের অর্থ ফেরত না দেয়ায় টিআইবি’র উদ্বেগসুন্দরগঞ্জের আসনটি ছিনিয়ে নিয়েছে আওয়ামী লীগ : এইচ. এম. এরশাদজঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশের সাফল্য দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে : প্রধানমন্ত্রীমাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ এ মাসেই শুরু হচ্ছেযশোরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্ত্রাসী পালসার বাবু নিহতদেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ উৎসব
  • যশোরে পৃথক স্থান থেকে ৪ জনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশটঙ্গীর তুরাগ তীরে চলছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব : কঠোর নিরাপত্তা বলয়শ্রীলংকাকে ১৬৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশঢাকা উত্তর সিটি'র উপ-নির্বাচনে আদালতের ৩ মাসের স্থগিতাদেশসুন্দরবনের ৩ কুখ্যাত জলদস্যুবাহিনীর প্রধানসহ ৩৮ জনের আত্মসমর্পণজাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ : ভবিষ্যতে বাংলাদেশে জাতীয় ঐক্যের দাবি প্রধানমন্ত্রী'ররাজধানী'র জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের সফল অভিযান : ৩ মৃতদেহ ও বিস্ফোরক উদ্ধারপদোন্নতি পেলেন বঙ্গবন্ধু'র খুনিদের গ্রেফতারকারী প্রথম পুলিশ অফিসারবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণীআম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বরাজধানীতে তীব্র গ্যাস সংকট : জনমনে ক্ষোভ জঙ্গি ও অন্যান্য অপরাধ দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে : আইজিপিঅর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি'র সভায় ১৩টি প্রকল্প অনুমোদনপুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই : প্রধানমন্ত্রীফারমার্স ব্যাংক কর্তৃক-জলবায়ু ট্রাস্ট তহবিলসহ আমানতকারীদের অর্থ ফেরত না দেয়ায় টিআইবি’র উদ্বেগসুন্দরগঞ্জের আসনটি ছিনিয়ে নিয়েছে আওয়ামী লীগ : এইচ. এম. এরশাদজঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশের সাফল্য দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে : প্রধানমন্ত্রীমাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ এ মাসেই শুরু হচ্ছেযশোরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্ত্রাসী পালসার বাবু নিহতদেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ উৎসব
উপরে