প্রকাশ : ২৩ জানুয়ারি, ২০১৮ ০১:০৯:২৪
জগন্নাথপুরে রাস্তার কাজে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহার : জনমনে ক্ষোভ
বাংলাদেশ বাণী, জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুরে রানীগঞ্জ বাজারের পাশে কলেজ ও উচ্চ বিদ্যালয়ের সড়কের কাজে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যবহারের সড়কের আশে পাশের এলাকার লোকজন ও ছাত্র/ছাত্রীসহ পথচারীদের মাঝে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। 
 
সরেজমিন গিয়ে দেখা যায়, ইউনিয়নের কলেজ, মাদ্রাসা, উচ্চ বিদ্যালয়ের ছাত্র/ছাত্রীগন নিরাপদে চলাচলের জন্য বাজারের বাহিরে রাস্তা নিমার্ণ করা হয়।ছাত্র/ছাত্রীরা চলাচল করে বিধায় সড়কের নাম করা হয় শিক্ষার্থীদের সড়ক। সড়কটিতে দীর্ঘদিন ধরে কাজ শেষ না হওয়ায় মরণফাঁদে পরিনত হয়েছিল। প্রায় আধা কিলোমিটার সড়কের কাজে যে পরিমানের কংকিট দেওয়ার কথা সে পরিমানে না দিয়ে ও পলি মাটি ও সাব ব্রেইজ এর কাজ না করে কাজ করে যাচ্ছে ঠিকাদাররা। 
 
রাস্তার পাশে থাকা বাড়ীর মালিক হিরা মিয়া বলেন,দুই নম্বর ইটের খোয়া দিয়ে রাস্তার কাজ চলছে। এ রাস্তা বেশি দিন থাকবে না। শুনেছি কন্ট্রাকটররা (ঠিকাদার) কাজে ফাঁকি দেয়।বাড়ির সামনে রাস্তার কাজ দেখে এর সত্যতা পেলাম।
 
এব্যাপারে উপজেলা যুবলীগের সহ সভাপতি সালেহ আহমদ বলেন, নি¤œমানের উপকরন দিয়ে রাস্তার কাজ হচ্ছে। আমাদের দীর্ঘদিনের স্বপ্ন চোখের সামনে ভেস্তে যাচ্ছে,দেখার কেউ নেই।যে উপকরন দিয়ে রাস্তা মেরামত করা হচ্ছে তা কতদিন চলাচলের উপযোগী থাকতে পারে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি আরও বলেন, যে কাজ হচ্ছে তা এক বা দুই বছরের মধ্যে রাস্তা ভেঙ্গে যাবে।
 
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শিক্ষক এ প্রতিবেদককে জানায়, আমরা প্রতিনিয়ত এই রাস্তা দিয়ে চলাচল করি। দীর্ঘ দিন ধরে রাস্তার দুরাবস্থার স্বীকার হয়েছি আমরা শিক্ষকসহ শিক্ষার্থী ও পথচারী। আমাদের প্রানের দাবী এই রাস্তা এত দিন পরে কাজ হলেও তা নি¤œ মানের উপকরন দিয়ে ঠিকাদার কাজ করছে।আমি এর প্রতিবাদ জানাই।
 
এ বিষয়ে উপজেলা প্রকৌশলী গোলাম সারোয়ারের সাথে ফোনে যোগাযোগ করা হলে, তিনি ফোন ধরে বলেন আমি এখন মিটিংয়ে আছি। মিটিং শেষ করে সরেজমিনের এসে দেখবো।
 
এ ব্যাপারে ঠিকাদার পংকজ দেবনাথ বলেন, এ কাজটি আমার লসের যে পরিমানের কাজ হওয়ার কথা সে পরিমানে কাজ করছি। আমি জগন্নাথপুরে কয়েকটি রাস্তার কাজ করেছি, অন্য যায়গায় যেভাবে কাজ করা হচ্ছে। এখানে সেভাবে কাজ করে যাব। মাঝে বৃষ্টিতে আমার কাজে সমস্যা সৃষ্টি হয়েছে। অনেক মাল বৃষ্টি পানিতে চলে গেছে। এটা আমার লসের কাজ।
এলাকার সচেতন মানুষের দাবি, দ্রুত তদন্ত পূর্বক সিডিউল অনুসারে উপকরণ দিয়ে রাস্তার কাজ কারানো হউক। সে ব্যাপারে সংশিষ্ট কর্তৃপক্ষে হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকাবাসী।
সর্বশেষ সংবাদ
  • একুশের গ্রন্থমেলায় মেলায় প্রতিদিনই বই বিক্রি বাড়ছেআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাতায়াতের রুটম্যাপ প্রণয়নবিশ্ব ভালবাসা দিবসে অমর একুশের গ্রন্থমেলায় দর্শনার্থীদের ঢলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ নির্ধারিত সময়ের আগেই উন্নত দেশে পরিণত হবে : সরকারি দলরোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা নিরসনে ইইউ বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে টাঙ্গাইলের মধুপুরে চাঞ্চল্যকর রূপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসি’র আদেশআদালতের আদেশ অনুযায়ী কারাগারে ডিভিশন পেলেন খালেদা জিয়াভারতীয় গণমাধ্যমের মন্তব্য খালেদার দণ্ড হাসিনাকে শক্তিশালী করেছেএকুশের বই মেলায় প্রাণ এসেছে : বেড়েছে বিক্রি জনগণের জানমাল রক্ষায় যতদিন প্রয়োজন ততদিনই পুলিশি নিরাপত্তা থাকবে : আইজিপি‘রায়ের কপি হাতে পেলেই হাইকোর্টে আপিল করা হবে’তারেকসহ অন্যদের ১০ বছর কারাদন্ড-জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় রায় : সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ৫ বছর জেল ভীত হবেন না : আশ্বস্ত করছি ৮ ফেব্রুয়ারি কিছু হবে না : আইজিপি রাষ্ট্রপতি পদে এ্যাড. মো. আবদুল হামিদের পক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিলবিএডিসি ও পিআইবি আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভাবিএনপিসহ সবদল একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে : সিইসি'র আশাবাদরাষ্ট্রপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ চূড়ান্ত করেছেনরক্তঋনে কেনা, কারো দানে নয় ! ‘অমর একুশের সিঁড়ি বেয়ে আমার বাংলা মায়ের কোল’শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়ন জনগণের দোরগোড়ায় পৌছে যাচ্ছে : বাহাদুর বেপারীশুরু হলো বাংলা একাডেমিতে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা
  • একুশের গ্রন্থমেলায় মেলায় প্রতিদিনই বই বিক্রি বাড়ছেআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাতায়াতের রুটম্যাপ প্রণয়নবিশ্ব ভালবাসা দিবসে অমর একুশের গ্রন্থমেলায় দর্শনার্থীদের ঢলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ নির্ধারিত সময়ের আগেই উন্নত দেশে পরিণত হবে : সরকারি দলরোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা নিরসনে ইইউ বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে টাঙ্গাইলের মধুপুরে চাঞ্চল্যকর রূপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসি’র আদেশআদালতের আদেশ অনুযায়ী কারাগারে ডিভিশন পেলেন খালেদা জিয়াভারতীয় গণমাধ্যমের মন্তব্য খালেদার দণ্ড হাসিনাকে শক্তিশালী করেছেএকুশের বই মেলায় প্রাণ এসেছে : বেড়েছে বিক্রি জনগণের জানমাল রক্ষায় যতদিন প্রয়োজন ততদিনই পুলিশি নিরাপত্তা থাকবে : আইজিপি‘রায়ের কপি হাতে পেলেই হাইকোর্টে আপিল করা হবে’তারেকসহ অন্যদের ১০ বছর কারাদন্ড-জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় রায় : সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ৫ বছর জেল ভীত হবেন না : আশ্বস্ত করছি ৮ ফেব্রুয়ারি কিছু হবে না : আইজিপি রাষ্ট্রপতি পদে এ্যাড. মো. আবদুল হামিদের পক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিলবিএডিসি ও পিআইবি আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভাবিএনপিসহ সবদল একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে : সিইসি'র আশাবাদরাষ্ট্রপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ চূড়ান্ত করেছেনরক্তঋনে কেনা, কারো দানে নয় ! ‘অমর একুশের সিঁড়ি বেয়ে আমার বাংলা মায়ের কোল’শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশের উন্নয়ন জনগণের দোরগোড়ায় পৌছে যাচ্ছে : বাহাদুর বেপারীশুরু হলো বাংলা একাডেমিতে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা
উপরে