প্রকাশ : ১৮ নভেম্বর, ২০১৮ ১৩:৪২:১৩
‘কেশবপুরে প্রতি শীত মৌসুমে থাকে শুটকি মাছের ব্যবসা রমরমা’
বাংলাদেশ বাণী, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি : কেশবপুরে শীত মৌসুম আসলেই শুটকি মাছের ব্যাবসায় নেমে পড়ে ব্যবসায়ীরা। দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানী হচ্ছে শুটকি মাছ। প্রতিদিন সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত শুটকি মাছের কাজে পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও শ্রম হিসাবে নিয়োজিত হচ্ছে বলে দেখা গেছে।

উপজেলার কেদারপুর, কুশুলদিয়া, মজিদপুর ও ভোগতী নরেন্দ্রপুর গ্রামে ঘুরে দেখা গেছে পুরুষের পাশাপাশি নারীরাও শুটকি মাছের কাজে ব্যাস্ত সময় পার করেছেন। কেদারপুর গ্রামের বিল্লাল বিশ্বাস, জসিম বিশ্বাস ও কালাম বিশ্বাস সাংবাদিকদের জানান, শীত মৌসুম আসলেই আমরা শুটকি মাছের ব্যবসায় পুরোদোমে নেমে পড়ি। গত বছর ব্যবসায় ক্ষতি হলেও এবার তা পুষিয়ে নেওয়ার আশা রয়েছে। মজিদপুর গ্রামের মিজানুর রহমান জানান, সিলভার মাছ প্রতি মণ ৮ ’শ থেকে ১০০০ টাকা দরে ক্রয় করে থাকি।

এরপর ওই মাছ গুলি শুকিয়ে প্রতি মণ ২ হাজার থেকে আড়াই হাজার টাকা বিক্রয় করা হয়। এর পাশাপাশি পুঁটি মাছও শুকানো হয়। এসমস্ত শুটকি মাছ সৈয়দপুর, দিনাজপুর, সিলেট, চিটাগাংয়ের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও রপ্তানি করা হয়। শত গত বছরের তুলনায় এবছরে মাছের দাম বেশী হলেও লাভের আশা করছি।

আমার এখানে প্রায় ২০ জন নারী-পুরুষ কাজ করে থাকেন। পুরুষের শ্রম প্রতি ৩ শত টাকা ও নারীদের শ্রম প্রতি ২ শত টাকা করে প্রদান করি। এরা সকাল ৬টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত এই কাজে নিয়োজিত থাকে।

এদিকে ভোগতী নরেন্দ্রপুর গ্রামের হায়দার আলী বিশ্বাস ও কুশুলদিয়া গ্রামের বলরাম জানান আমরা প্রতি বছরে শুটকি মাছের ব্যবসা করে আসছি। গত বছরে মাছের আমদানী বেশী থাকলেও ব্যবসায় লোকসান হয়েছিল।
এবার আমরা ওই লোকসান পুষিয়ে নিতে পারব বলে মনে করছি। এই শুটকি মাছ ৬ মাস ধরে আমরা পরিচালনা করে থাকি। ফজলু, কালাম, কামরুল, আয়ুব আলী, জাহাঙ্গীর, সবুজসহ অনেকেই জানান আমরা প্রতিবছরে শীত মৌসুম আসলে শুটকি মাছের কাজে নিয়োজিত হয়ে থাকি এবং শ্রমও বেশী পায়।

বাকি মাস গুলোতে আমরা বাড়ি বসে না থেকে সকল শ্রম  কাজে নিয়োজিত হই। রামকৃষপুর গ্রামের রেনু বেগম, নাজমা বেগম, আকলিমা বেগম, রাজিয়া বেগম, সুফিয়া বেগম, আলেক বেগম, হামিদা বেগম, মজিদপুর গ্রামের জাহানারা বেগম, রেশমা বেগম, তাসলিমা বেগম, ভোগতী নরেন্দ্রপুর গ্রামের ফতেমা বেগম, জোহরা বেগম, আকলিমা বেগম, জাহানারা বেগম, চায়না বেগম, কুশুলদিয়া গ্রামের মনিরা বেগম, সাদিয়া বেগম ও রাফেজা বেগম সাংবাদিকদের জানান আমরা প্রতি বছরে কর্মসূচির কাজ থেকে শুরু করে সকল কাজে পুরুষের পাশাপাশি আমরাও কাজে নিয়োজিত হই।

তারা বলেন প্রতিদিন সকাল ৬ টা থেকে সন্ধ্যা ৬ টা পর্যন্ত ২শত টাকা করে শ্রমের মজুরি পায়। আমরা গরীব ঘরের স্ত্রী হওয়ায় ঘরে বসে থাকতে পারি না। শ্রম দিয়ে অর্থ উপার্জন করে স্বামী সন্তানদের নিয়ে ভালই সুখে আছি। আমরা বাড়ি বসে না থেকে কাজ করে খেটে খেয়েও মনের মাঝে একটু সুখ আনন্দ খুজে পায়।

 
সর্বশেষ সংবাদ
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
উপরে