প্রকাশ : ০৬ অক্টোবর, ২০১৬ ০২:৩৯:৩৭
ভবদহের ৩ লাখ পানিবন্দী মানুষের উপর লাঠিচার্জ কেন?
ঢাকা, কাজী আব্দুস সামাদ : ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির ডাকা শান্তিপূর্ণ রাজপথ ও রেলপথে অবস্থান কর্মসূচি পালন করতে দেয়নি পুলিশ। বুধবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জলাবদ্ধ এলাকার মানুষ যশোর অভয়নগরের নূরবাগ স্বাধীনতা চত্বরে মিছিল নিয়ে পৌঁছালে, আন্দোলনকারীদের ধাওয়া করে পুলিশ। এ সময় পুলিশের নির্মম লাঠিপেটায় আহত হন অনেকে বলে খবর বেরিয়েছে। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।
ভবদহের পানি নিস্কাশণের দাবিতে সড়ক পথ অবরোধ কর্মসূচিতে লাঠিচার্জ করেছে পুলিশ। বেলা সাড়ে ১১ টার দিকে অভয়নগর স্বাধীনতা চত্বরে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে বলে দেশের সংবাদ মাধ্যম গুলো খবর প্রকাশ করেছে। এতে অন্তত: ১৫ জন গুরুতর আহত হয়েছেন বলে জানা গেছে। একটি শান্তিপূর্ণ গণতান্ত্রিক কর্মসূচিতে পুলিশের এই অতিমাত্রার বাড়াবাড়ির কারণটা কি? দেশবাসী জানতে চায়।
আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। আহতরা হলেন-কপোতাক্ষা বাঁচাও আন্দোলনের উপদেষ্টা ইকবাল কবির জাহিদ, ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির নেতা বৈকুণ্ঠ বিহারী রায়, শচীন মণ্ডল,  বিষ্ণু বিশ্বাস, রাজু আহমেদ, ইন্তাজ আলী ইনু, শরিফ উদ্দিন, বাহারুল ইসলা, কিশোর অধিকারী প্রমুখ। আমরা আহত নেতৃবৃন্দের প্রতি গভীর সহমর্মিতা প্রকাশ করছি।
ঘটনার পর থেকে ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। এদিকে, এ ঘটনার পর থেকে পুরো এলাকায় থমথমে পরিস্থিতি বিরাজ করছে বলে খবরে প্রকাশ।
আন্দোলনকারীরা জানিয়েছেন, গত প্রায় আড়াই মাস ধরে যশোরের অভয়নগর, কেশবপুর ও মনিরামপুর উপজেলার ৩ লাখ মানুষ পানিবন্দী রয়েছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে ভবদহ অঞ্চলের মানুষ দাবি জানিয়ে আসছে। কিন্তু কার্যকর কোন পদক্ষেপ গ্রহণ না করায়, ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির পক্ষ থেকে আল্টিমেটাম দেওয়া হয়। ভবদহের কারণে এ অঞ্চল বন্যা কবলিত চিহ্নিত করে বুধবার সকালে অভয়নগরে সড়ক, রেল ও নৌপথ অবরোধের কর্মসূচি ঘোষণা করে পানি নিস্কাশণ কমিটি।
বেলা সাড়ে ১১টার দিকে আন্দোলনকারীরা স্বাধীনতা চত্বরে পৌঁছুলে বিনা উস্কানিতেই পুলিশ তাদের ওপর চড়াও হয়। এতে ১৫/২০ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। পুলিশের লাঠিচার্জে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায় অবস্থান কর্মসূচি।  ভবদহ পানি নিষ্কাশন সংগ্রাম কমিটির আহবায়ক রণজিত বাওয়ালী জানিয়েছেন, পুলিশের লাঠিচার্জে সকাল ১০টা থেকে বেলা ২টা পর্যন্ত রাজপথে অবস্থান কর্মসূচি কার্যত: ভেস্তে  গেছে। পুলিশ রাস্তায় জড়ো হতে দেয়নি বিক্ষুব্ধ মানুষকে।
আমাদের প্রশ্ন-আন্দোলনকারীদের সাথে কি আলোচনার মাধ্যমে বিষয়টি নিরসন করা যেতো না? শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে পুলিশের আচমকা লাঠিপেটা গোটা দেশের গণতন্ত্রীমনা মানুষকে আহত করেছে।
অভয়নগর থানার বিতর্কীত থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এবং উপজেলা প্রশাসন এই দায় কোন ভাবেই এড়িয়ে যেতে পারেন না। আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি। সেই সাথে সংঘটিত ঘটনার সুষ্ঠু তদন্ত এবং দোষী পুলিশ প্রশাসনের যথাযথ বিচার দাবী করছি।
দেশের বহমান শান্তি, গণতন্ত্র এবং উন্নয়ন কোন ভাবেই যেন আঘাত প্রাপ্ত বা ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, সেদিকে সরকারের শুভ দৃষ্টি কামণা করছি।

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/সামাদ/ঢাকা/০৬/১০/২০১৬ ইং- ০২:৪০ (এএম) ঘ.
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে