প্রকাশ : ০৮ জানুয়ারি, ২০১৭ ০১:২২:২৭
সবার আগে পাঠ্যপুস্তকের মান বাড়াতে হবে
ঢাকা : শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন নিয়ে এসেছে বর্তমান সরকার। প্রতি বছর জানুয়ারির প্রথম দিন প্রাথমিক ও মাধ্যমিকের শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তক দিবস পালন করা হচ্ছে। এ বছরও পহেলা জানুয়ারি পাঠ্যপুস্তক দিবস পালন করা হয়েছে। নতুন বছরের প্রথম দিনেই শিক্ষার্থীদের হাতে নতুন বই তুলে দিয়ে পাঠ্যপুস্তক উৎসবের উদ্বোধন করেন শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ।
বছরের প্রথম দিনেই সারা দেশে প্রায় ৩৬ কোটি ২২ লাখ বই ছাত্রছাত্রীদের হাতে তুলে দেয়া হয়েছে। এ এক বিরাট কর্মযজ্ঞ। এর সুফল তখনই পাওয়া যাবে যখন পাঠ্যপুস্তকের মান নিয়ে কোনো প্রশ্ন থাকবে না। দুঃখজনক হচ্ছে, পাঠ্যপুস্তকের মান নিয়ে জোরালো প্রশ্ন উঠেছে। কোমলমতি শিশুদের পাঠ্যপুস্তক ভুল-ভ্রান্তিতে ভরা। তাহলে তারা কি শিখবে? আর শিক্ষার মান রক্ষাই বা হবে কী করে?  
এ সংক্রান্ত খবরে ওঠে এসেছে কিছু ভুলের কথা। তৃতীয় শ্রেণির ‘হিন্দু শিক্ষা’ বইয়ের পেছনে লেখা দউড় হড়ঃ ঐবধৎঃ অহুনড়ফুদ  এটা আসলে হবে দউড় হড়ঃ ঐঁৎঃ অহুনড়ফুদ অর্থাৎ কারও ক্ষতি করো না। আর তৃতীয় শ্রেণির বাংলা বইয়ের কুসুমকুমারী দাশের বিখ্যাত কবিতা ‘আদর্শ ছেলে’র মূল লাইনটি হলো এরকম- ‘আমাদের দেশে হবে সেই ছেলে কবে’র’ সেখানে উল্টো করে লেখা হয়েছে ‘আমাদের দেশে সেই ছেলে কবে হবে?/ কথায় না বড় হয়ে কাজে বড় হবে?’  অর্থাৎ কুসুম কুমারী দাশের রচনায় ‘আমাদের দেশে’র পর ‘হবে’ লেখা হলেও বিকৃত লাইনটিতে এসেছে ‘সেই’। আর ‘হবে’ শব্দটিকে নিয়ে যাওয়া হয়েছে একেবারে শেষে। ফলে কবি যে ‘ছন্দ’ ‘অন্ত্যমিল’ মাথায় রেখে কবিতার লাইনটি লিখেছেন, তা দৃশ্যতই নড়বড়ে হয়ে গেছে।
এ ধরনের ভুল আরো রয়ে গেছে। বিতর্ক দেখা দিয়েছে প্রথম শ্রেণির বইয়ে ও-তে ওড়না, কিংবা ছাগলের গাছে ওঠা প্রসঙ্গেও। রচনার মান নিয়েও প্রশ্ন আছে। রচয়িতাদের ব্যাপারেও রয়েছে অভিযোগ। কোনো রকমে দায়সারা গোছের কাজ করার নমুনাও যত্রতত্র। ঘুরে ফিরে পাঠ্যপুস্তকের রচয়িতা ও সংকলক গুটি কয়েকজনই। এখানেও এক সিন্ডিকেট। বাণিজ্যই যার লক্ষ্য। ছাপার মান নিয়েও রয়েছে প্রশ্ন।
 এছাড়া বই বাঁধাই এবং আঠা লাগানোর ক্ষেত্রেও

‌যত্নশীল হতে হবে। মনে রাখতে হবে কমবয়সী শিক্ষার্থীরা এসব পাঠ্যপুস্তক ব্যবহার করে। কয়েকমাস যেতে না যেতেই যদি বই ব্যবহারের অনুপযোগী হয়ে পড়ে তাহলে শিক্ষার্থীদের ভোগান্তির কোনো শেষ থাকে না। বিনামূল্যের এসব বই বাজারে কিনতেও পাওয়া যায় না। পাওয়ার কথাও নয়। তাই কাগজ, ছাপা, বাঁধাইসহ এবং বিষয়বস্তুসহ সবকিছুতে যেন বইয়ের মান ঠিক থাকে সেটি নিশ্চিত করতে হবে। গোড়ায় গলদ রেখে মান সম্পন্ন শিক্ষা বাস্তবায়ন করা অসম্ভব। এ জন্য শিক্ষার মান বাড়াতে হলে সবার আগে পাঠ্যপুস্তকের মান বাড়াতে হবে। -
সর্বশেষ সংবাদ
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
উপরে