প্রকাশ : ০৪ এপ্রিল, ২০১৭ ০৩:১১:৫৮
শ্রমবাজারের সন্ধান বাংলাদেশের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ
বাংলাদেশ বাণী, ৪ এপ্রিল, ঢাকা : বর্তমান বিশ্ব শ্রমবাজারে বাংলাদেশকে টিকে থাকতে হলে দক্ষ জনশক্তি রপ্তানির বিষয়টি গুরুত্বসহকারে আমলে নিয়ে সে অনুযায়ী কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে এবং এর কোনো বিকল্প নেই। তবে এ ক্ষেত্রে ‌তার ব্যত্যয় ঘটছে।

বর্তমান বৈশ্বিক মন্দারকালে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের শ্রমবাজার ধরে রাখার পাশাপাশি নতুন নতুন শ্রমবাজারের সন্ধান বাংলাদেশের জন্য একটি বড় চ্যালেঞ্জ। যে করেই হোক বাংলাদেশকে এই চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করতে হবে।

একই সঙ্গে অভিবাসন ব্যয় হ্রাস, দক্ষ জনশক্তি রপ্তানি, অভিবাসনের পর কর্মীদের সহযোগিতা দান এবং দূতাবাসগুলোকে যথাযথভাবে কাজে লাগানোর ব্যাপারে সরকারকে আরও অধিক মনোযোগী হতে হবে।

এক প্রতিবেদনে প্রকাশ, আনুপাতিকহারে নারীকর্মী পাঠানোর শর্ত পূরণ করতে ব্যর্থ হওয়ায় বিদেশে বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় কর্মক্ষেত্র সৌদিসহ মধ্যপ্রাচ্যের শ্রমবাজার বড় ধরনের হুমকির মুখে পড়েছে। শুধু গত বছরের ডিসেম্বরেই ৫০ হাজার পুরুষকর্মীর পাসপোর্ট জমা নেয়নি সৌদি দূতাবাস। পরবর্তী মাসগুলোয়ও এ ধারা অব্যাহত রয়েছে। এ অবস্থায় সে দেশে শ্রমিক রপ্তানিতে ভয়াবহ ধস নেমেছে।

গত ডিসেম্বর থেকে সৌদি দূতাবাস প্রতি ১০০ জনে ২৫ জন নারী ও ৭৫ জন পুরুষের পাসপোর্ট জমা না দিলে পুরুষকর্মীদের পাসপোর্ট জমা নেয়া বন্ধ করে দেয় সংশ্লিষ্ট দূতাবাস। দেশের রিক্রুটিং এজেন্সিগুলো আনুপাতিক হারে নারীকর্মী জোগাড়ে ব্যর্থ হওয়ায় হাজার হাজার পুরুষকর্মীর পাসপোর্ট আটকে যাচ্ছে। ফলে দেশটির বিশাল শ্রমবাজারে প্রবেশের ক্ষেত্রে বড় ধরনের হুমকি হয়ে দাঁড়িয়েছে।

আমরা মনে করি এই অবস্থার দ্রুত অবসান হওয়া জরুরি। কারণ বাংলাদেশ যদি শর্ত পূরণে ব্যর্থ হয় এবং সৌদি দূতাবাস যদি নারী-পুরুষ আনুপাতিক হারকে অধিকহারে গুরুত্ব দিয়ে কঠোর অবস্থানে থাকে তা হলে শ্রমিক রপ্তানির ক্ষেত্রে বড় ধরনের ধস নামবে। যা রেমিটেন্সের ক্ষেত্রে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে।

মনে রাখতে হবে দেশের অর্থনীতির চাকাকে সচল রেখেছে প্রবাসী শ্রমিকদের পাঠানো রেমিটেন্সপ্রবাহ। সুতরাং বিদেশে জনশক্তি রপ্তানিতে যাতে কোনোরকম ব্যত্যয় না ঘটে সেদিকে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে বিশেষ মনোযোগ দেয়া অতীব জরুরি।

বলার অপেক্ষা রাখে না যে আন্তর্জাতিক শ্রমবাজারে বাংলাদেশের শ্রমিকদের যথেষ্ট চাহিদা থাকা সত্ত্বেও আমরা বিভিন্ন সময়ে শ্রমিক রপ্তানি করতে ব্যর্থতার পরিচয় দিয়েছি। এর পাশাপাশি রয়েছে প্রবাসে বাংলাদেশি শ্রমিকদের নানা ধরনের অপরাধপ্রবণতা। ফলে বিদেশি বাংলাদেশের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে। বাংলাদেশের শ্রমিকরা যেসব দেশে কর্মরত রয়েছে ওইসব দেশের বাংলাদেশ দূতাবাস কী করছে?

অপরাধকর্ম ছাড়াও অনেক শ্রমিকই মানবেতর জীবনযাপন করছে, অনেকেই প্রতারিত হচ্ছে। এসব বিষয়েও সরকারকে তদারকিতে আনতে হবে।

অপরাধপ্রবণতা ছাড়াও দক্ষ শ্রমিকের অভাবে বাংলাদেশ অনেক দেশের শ্রমবাজার হারাচ্ছে। নতুন নতুন বাজার সন্ধানের পাশাপাশি শ্রমবাজার ধরে রাখার চেষ্টা চালাতে হবে। কারণ বিদেশে কর্মরত বিপুলসংখ্যক শ্রমিক যদি বেকার হয়ে দেশে ফিরে আসে তখন কী হবে? এমনিতেই তো দেশে কর্মসংস্থানের দারুণ অভাব। সুতরাং বাড়তি চাপ সহ্য করা খুবই কঠিন। এ বিষয়েও সরকার ও সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে ভাবতে হবে।

জনশক্তি রপ্তানি প্রক্রিয়া স্বচ্ছ ও ত্রুটিমুক্ত করতে পররাষ্ট্র, প্রবাসী কল্যাণ, শ্রম ও জনশক্তি মন্ত্রণালয়ের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে সম্মিলিতভাবে কাজ করাও জরুরি। দূতাবাসগুলোয় কর্মরতদের অদক্ষতার বিষয়টি আমলে নেয়া উচিত। দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি ও প্রবৃদ্ধির কথা বিবেচনায় এনে সরকার অবিলম্বে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করবে এটাই আমাদের প্রত্যাশা।
সর্বশেষ সংবাদ
  • সমগ্র জাতির পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনগোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাবাংলাদেশকে দ্বিতীয় পাকিস্তান বানাতে খুনি মুশতাক-জিয়া অনেক অপকর্ম করেছে : শেখ সেলিমবঙ্গবন্ধু স্মরণে শেখ হাসিনা রচিত “শেখ মুজিব আমার পিতা” আজ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু'র শাহাদতবার্ষিকীআজ শোকাবহ ১৫ আগষ্ট : আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধাবরেণ্য সাংবাদিক ও সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই‘শেখ মুজিব পালিয়ে যাবে না, মরলে বাংলার মাটিতেই মরবে’৩-০ গোলে নেপালকে উড়িয়ে দিয়ে সেমিতে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলসেই রাতের বর্ণণা ❏ ঘাতকদের মুখোমুখি হয়েও গর্জে উঠেছিলেন জাতির জনক আগামী ২২ আগস্ট পবিত্র ঈদুল আজহামোমিনুলের বিধ্বংসী ব্যাটিং : জয়ের স্বাদ পেল বাংলাদেশ ‘এ’ দলকোরবানির পশুর চামড়ার দর নির্ধারণ করেছে সরকারবাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের ১৪-০ গোল পাকিস্তানের জালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের সভায় ১২টি প্রকল্প অনুমোদন আজ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের ৮৮ তম জন্মবার্ষিকীতারেক জিয়ার নীল নকশা বাস্তবায়ন হয়নি : রুখে দিল সরকারমধ্যপাড়া পাথর খনি থেকে ফের ৩ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিকটন পাথর উধাওআন্দোলনরত কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের ঘরে ফিরে যাওয়ার আহবান প্রধানমন্ত্রী'র আজ ২২ শ্রাবণ : বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৭ তম মৃত্যুবার্ষিকী
  • সমগ্র জাতির পক্ষ থেকে বঙ্গবন্ধুর প্রতি রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধা নিবেদনগোপালগঞ্জের টুঙ্গীপাড়ায় জাতির জনকের সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাবাংলাদেশকে দ্বিতীয় পাকিস্তান বানাতে খুনি মুশতাক-জিয়া অনেক অপকর্ম করেছে : শেখ সেলিমবঙ্গবন্ধু স্মরণে শেখ হাসিনা রচিত “শেখ মুজিব আমার পিতা” আজ সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির জনক বঙ্গবন্ধু'র শাহাদতবার্ষিকীআজ শোকাবহ ১৫ আগষ্ট : আমাদের বিনম্র শ্রদ্ধাবরেণ্য সাংবাদিক ও সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার আর নেই‘শেখ মুজিব পালিয়ে যাবে না, মরলে বাংলার মাটিতেই মরবে’৩-০ গোলে নেপালকে উড়িয়ে দিয়ে সেমিতে বাংলাদেশ নারী ফুটবল দলসেই রাতের বর্ণণা ❏ ঘাতকদের মুখোমুখি হয়েও গর্জে উঠেছিলেন জাতির জনক আগামী ২২ আগস্ট পবিত্র ঈদুল আজহামোমিনুলের বিধ্বংসী ব্যাটিং : জয়ের স্বাদ পেল বাংলাদেশ ‘এ’ দলকোরবানির পশুর চামড়ার দর নির্ধারণ করেছে সরকারবাংলাদেশ নারী ফুটবল দলের ১৪-০ গোল পাকিস্তানের জালে জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের সভায় ১২টি প্রকল্প অনুমোদন আজ বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের ৮৮ তম জন্মবার্ষিকীতারেক জিয়ার নীল নকশা বাস্তবায়ন হয়নি : রুখে দিল সরকারমধ্যপাড়া পাথর খনি থেকে ফের ৩ লাখ ৬০ হাজার মেট্রিকটন পাথর উধাওআন্দোলনরত কোমলমতি ছাত্র-ছাত্রীদের ঘরে ফিরে যাওয়ার আহবান প্রধানমন্ত্রী'র আজ ২২ শ্রাবণ : বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ৭৭ তম মৃত্যুবার্ষিকী
উপরে