প্রকাশ : ১৩ এপ্রিল, ২০১৭ ০১:৪৪:১৮
প্রাতিষ্ঠানিক দুর্নীতি রোধ করাটা খুবই জরুরী
বাংলাদেশ বাণী, ১৩ এপ্রিল, ঢাকা : বহুল প্রচারিত একটি পত্রিকায় দুর্নীতির দুটি ভয়াবহ চিত্র উঠে এসেছে। একটি রাজধানী ঢাকার পার্শ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসের। অন্যটি ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষকের নিয়োগ বাণিজ্যসংক্রান্ত। ভূমি অফিসের দুর্নীতি প্রসঙ্গে বলা হয়েছে, সেখানে প্রতিদিন রীতিমতো ‘ঘুষের হাট’ বসে।

ঘুষ ছাড়া কোনো ফাইলের মুক্তি মেলে না। উদ্বেগের বিষয় হলো, খোদ এসি ল্যান্ড এসব অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত বলে অভিযোগ উঠেছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, এসি ল্যান্ড পদে সাধারণ কেউ নিয়োগ পান না। পাবলিক সার্ভিস কমিশনের মাধ্যমে বিসিএস পরীক্ষায় উত্তীর্ণরাই কেবল পদটি অলংকৃত করেন। তারা নিঃসন্দেহে মেধাবী ও যোগ্য। সঙ্গত কারণেই আমাদের প্রত্যাশা থাকে, তারা তাদের মেধা ও যোগ্যতা দেশ ও জাতির কল্যাণে উৎসর্গ করবেন।

অথচ নবাবগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিসে এর বিপরীত চিত্র পরিলক্ষিত হচ্ছে, যা মেনে নেয়া কষ্টকর। দুঃখজনক হলো, কেবল নবাবগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিস নয়-দেশের ভূমিসংক্রান্ত সরকারি অফিসগুলোয় নানা রকম অনিয়ম, অব্যবস্থাপনা ও দুর্নীতি বিদ্যমান। এর ফলে জমিজমা নিয়ে সাধারণ মানুষের ভোগান্তি ছাড়াও ঝগড়া-ফ্যাসাদ, মারামারি, খুন-খারাবি, মামলা-মোকদ্দমার ঘটনা সুবিদিত। ভূমি অফিসের কাজ হলো, মানুষের দুর্ভোগ হ্রাসে সাহায্য করা। অথচ জমিজমা নিয়ে সাধারণ মানুষের আবেগ ও অজ্ঞতাকে পুঁজি করে প্রায় ক্ষেত্রেই তারা দুর্ভোগের পরিমাণ আরও বাড়িয়ে দেন। ‘ভূমিসেবা সপ্তাহ’ উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে ভূমিমন্ত্রী ভূমি অফিসে সেবা দেয়া ও সেখান থেকে সেবা পাওয়ার ক্ষেত্রে দুর্নীতিকে ‘অস্বস্তিকর বিষয়’ বলে উল্লেখ করেছেন।

ভূমি অফিসে বিরাজমান অস্বস্তিকর এ পরিবেশ স্বস্তিকর করার দায়িত্ব নিশ্চয়ই সংশ্লিষ্ট মন্ত্রীর। ভূমি সংক্রান্ত দুর্নীতির অক্টোপাস থেকে দেশের মানুষকে মুক্ত করতে তিনি ও তার সরকার কী ভূমিকা রাখছেন, এ প্রশ্ন করা অন্যায় হবে কি? পরিবারের প্রধান ব্যক্তি যদি সৎ, নির্লোভ এবং নীতি ও আদর্শের অনুসারী হন, তাহলে অন্য সদস্যদের বিপথগামী হওয়ার আশংকা থাকে না। সংশ্লিষ্ট দপ্তরের অভিভাবক হিসেবে তিনি যদি সব ধরনের অনিয়ম ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে শক্ত অবস্থান নেন, তাহলে অবস্থার উন্নতি হতে বাধ্য। প্রশ্ন হলো, বিড়ালের গলায় ঘণ্টা বাঁধবে কে?

অন্যদিকে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের ফিন্যান্স অ্যান্ড ব্যাংকিং বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান নিয়োগ বাণিজ্যসংক্রান্ত কথাবার্তায় ফোনে তার এক বন্ধুর সঙ্গে যেসব শব্দ ব্যবহার করেছেন, তাকে অরুচিকর, অশালীন ও কদর্য বললে কম বলা হয়।

এতদিন বাংলা সিনেমার বিরুদ্ধে অরুচিকর শব্দমালা প্রয়োগের অভিযোগ শোনা যেত। এখন দেখা যাচ্ছে, এক্ষেত্রে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরাও কম পারঙ্গম নন। বিষয়টি কেবল দুঃখজনক নয়, হতাশাজনকও বটে। দেশের সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠের একজন শিক্ষকের এ অধঃপতন মেনে নেয়া কষ্টকর।

জ্ঞানের আলোয় সমাজকে আলোকিত করার মহৎ দায়িত্বে নিয়োজিত শিক্ষকসমাজ অর্থলোভে মত্ত হয়ে যদি অনিয়ম ও দুর্নীতির সঙ্গে নিজেদের যুক্ত করেন, তাহলে জাতির ভরসা করার জায়গা থাকে কোথায়? দলবাজি ছাড়াও বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের বিরুদ্ধে পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস, উৎকোচ গ্রহণ, ছাত্রীর সঙ্গে অনৈতিক সম্পর্ক ইত্যাদি নানাবিধ অভিযোগ প্রায়শই উচ্চারিত হচ্ছে। এ অবস্থার পরিবর্তন জরুরি।

সন্দেহ নেই, দুর্নীতি হচ্ছে দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন, অগ্রগতি ও দারিদ্র্য বিমোচনের প্রধান অন্তরায়। শুধু নবাবগঞ্জ উপজেলা ভূমি অফিস ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষক নন, দেশের সব দুর্নীতিবাজদের সমূলে উৎপাটিত করতে কঠোর আইন প্রয়োগ ও দুদকের ভূমিকা আরও শক্তিশালী করা প্রয়োজন। তবে শুধু আইন করে নয়, দেশ থেকে দুর্নীতি হটাতে হলে এর বিরুদ্ধে জনসচেতনতা গড়ে তোলাও জরুরি।

সমাজে সততা ও স্বচ্ছতা নিশ্চিত করাসহ নিষ্ঠাবান নাগরিক তৈরির লক্ষ্যে ইতিমধ্যে স্কুল, কলেজ ও মাদ্রসার ছাত্রদের নিয়ে সততা সংঘ গড়ে তোলা হয়েছে। এটি নিঃসন্দেহে একটি ভালো উদ্যোগ। আমাদের পরবর্তী প্রজন্ম যদি দুর্নীতির কুফল সম্পর্কে অবহিত হয়ে এর বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ায়, তবে সমাজ থেকে দুর্নীতি নির্মূল হতে বাধ্য।


 
সর্বশেষ সংবাদ
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
উপরে