প্রকাশ : ২৯ মে, ২০১৭ ০২:৩৬:৩৬
তীব্র দাবদাহের কারণে বাড়ছে শিশু রোগী সংখ্যা, সতর্কতা প্রয়োজন
বাংলাদেশ বাণী, ঢাকা, ২৯ মে : গত কয়েক দিন ধরেই চলছে তীব্র দাবদাহ। এই গরমে যেন জনজীবনই ওষ্ঠাগত। অতিরিক্ত গরমের কারণে নানা ধরনের দুর্ভোগে বিপর্যস্ত হচ্ছে সাধারণ মানুষের জীবন। ভুগতে হচ্ছে নানা রকম অসুখ-বিসুখেও। হাসপাতালগুলোতেও ভিড় বাড়ছে রোগীর। আর যখন প্রচন্ড দাবদাহে শিশুরোগীর সংখ্যা বাড়ছে তখন তা সন্দেহাতীভাবেই উদ্বেগজনক পরিস্থিতির ইঙ্গিত বহন করে।

বলার অপেক্ষা রাখে না যে, স্বাভাবিকভাবেই এই পরিস্থিতিতে শিশুদের বিশেষ যত্ন নিতে হবে, রোদ থেকে দূরে রাখার পাশাপাশি তাদের গায়ে যাতে ঘাম না জমে, সেটি খেয়াল রাখতে হবে। বাতাসে রাখা ছাড়াও জ্বর বা কোনো অসুখ দেখা দিলে দেরি না করে ডাক্তারের কাছে নেয়ার পরামর্শও দিয়েছেন চিকিৎসকরা।

আমরা মনে করি, এহেন পরিস্থিতিতে মানুষের সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি সংশ্লিষ্টদেরকে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে কার্যকর পদক্ষেপ নিশ্চিত করার বিকল্প নেই।
পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত খবরে জানা যাচ্ছে যে, গত কয়েক দিনের তীব্র দাবদাহের কারণে রোগী বাড়ছে। মূলত জ্বর, টাইফয়েড, আমাশয় ও ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যাই বেশি। আর যেখানে কিছুদিন আগেও হাসপাতালের বেশকিছু বিছানা ফাঁকা থাকতো সেখানে এমন পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে যে, ফাঁকা তো নেই, উপরন্তু স্থান সংকুলান না হওয়ায় রোগীদের ফিরে যেতে হচ্ছে।

ঢাকা শিশু হাসপাতালের একজন সিনিয়র জনসংযোগ কর্মকর্তা জানিয়েছেন, আগে যেখানে প্রতিদিন গড়ে ৬০০ থেকে ৬৫০ রোগী আসত, এখন সেখানে ৮০০ থেকে ৮৫০ রোগী আসছে। মূলত গত এক দেড় সপ্তাহ ধরে গরম বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে রোগীর সংখ্যা বেড়েছে এমনটি জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, আমরা বলতে চাই, এই বিরূপ আবহাওয়াকে কেন্দ্র করে সৃষ্ট পরিস্থিতি সামগ্রিকভাবেই উৎকণ্ঠার। ফলে, অভিভাবক সচেতনতা বৃদ্ধির বিষয়টি যেমন জরুরি, তেমনি সরকার সংশ্লিষ্টদেরও যথাযথ উদ্যোগ জারি রাখতে হবে। এটা সত্য যে, বিপুল জনসংখ্যার এই দেশে চিকিৎসা নিশ্চিত করা সহজ নয়। এ ছাড়া চিকিৎসক এবং চিকিৎসা সরঞ্জামাদির সংখ্যাও প্রয়োজনের তুলনায় অপ্রতুল। ফলে, পরিস্থিতি অনুযায়ী সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার মধ্য দিয়ে এ সংক্রান্ত পরিস্থিতি মোকাবেলায় কার্যকর পদক্ষেপ নেয়া অপরিহার্য। বিশেষ করে যেভাবে একের পর শিশুরা অসুস্থ হয়ে পড়ছে, এই বিষয়টি আমলে নিয়ে সংশ্লিষ্টরা বিশেষ নজর দেবে এমনটি আমাদের কাম্য।

উল্লেখ্য যে, বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসকরা চিকিৎসা দিচ্ছেন এবং প্রতিদিন অসংখ্য রোগী ফেরত যাচ্ছে এমন ঘটনা যেমন ঘটছে, তেমনিভাবে জরুরি হলে অন্য হাসপাতালে পাঠানোরও ব্যবস্থা করছেন। এ ছাড়া জানা গেছে, চিকনগুনিয়া রোগীদেরও সাধারণ রোগীদের মতো চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। আর এটা নিয়ে যাতে কোনো বিভ্রান্তি না ছড়ায় এই বিষয়টিও বিশেষভাবে নজর দেয়া হচ্ছে।

আমরা বলতে চাই, এই সময়ে যে দুঃসহ গরমের মধ্য দিয়ে মানুষকে জীবনযাপন করতে হচ্ছে তার ফলে জ্বর, ডায়রিয়া থেকে শুরু করে নানা অসুখ-বিসুখ বৃদ্ধির কারণে চিকিৎসা নিশ্চিত করা কঠিন হয়ে পড়ে। আবার যদি শিশু রোগীর সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে থাকে তবে তা স্বাভাবিকভাবেই এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। আমরা মনে করি, প্রয়োজনে ব্যাপক প্রচার প্রচারণা চালাতে হবে, বিশেষ করে এই সময়গুলোতে করণীয়র বিষয়টি তুলে ধরে অভিভাবকদের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে।

সর্বশেষে আমরা এ কথাই বলতে চাই যে, চলতি তাপপ্রবাহে শিশুদের প্রতি বিশেষ যত্ন নেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন শিশু বিশেষজ্ঞরা, সেটি আমলে নিয়ে কার্যকর পদক্ষেপ নিশ্চিত করা জরুরি। মনে রাখা সঙ্গত, শিশুদের পোশাক থেকে শুরু করে খাওয়া-দাওয়া সবদিকে নজর দেয়া হলে এই পরিস্থিতি অনেকাটাই মোকাবেলা করা সম্ভব হবে।

সামগ্রিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ সাপেক্ষে চিকিৎসা ব্যবস্থাকে আরো এগিয়ে নেয়া এবং এই গরমের কারণে সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবেলায় সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি প্রয়োজনীয় সব উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে এমনটি আমাদের সময়ের প্রত্যাশা।

 
সর্বশেষ সংবাদ
  • আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত ভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।তাজিকিস্তান রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সব রকম সহযোগিতা দেবেসাম্প্রদায়িক ও অশুভ শক্তিকে রুখে দেবার অঙ্গীকার নিয়ে বাংলা বর্ষ বরণউন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জনের ঘোষণায় সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে ধন্যবাদ প্রস্তাব গ্রহণআজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস : নানা কর্মসূচি গ্রহণ একনেকের সভায় ৩,৪১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদনপ্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িতরা জাতির শত্রু : বেনজির আহমেদপ্রশ্ন ফাঁসমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে আমরা সব ব্যবস্থা নিয়েছি : শিক্ষামন্ত্রীগাইবান্ধায় নবজাতককে আঁছড়িয়ে দিয়ে হত্যা করলো পাষণ্ড পিতা!গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা : ১৫ মে ভোট আমি কী পাগল ? প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিত করবো ! ফের সমালোচনা ও শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে সরকার দলীয় এমপি রতন !আজ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া পৌরসভা নির্বাচনযশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালীতে ছেলের হাতে বাবা খুন।সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনআজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস : জাতির বিনম্র শ্রদ্ধাকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত পিয়াস রায়কে অশ্রুসিক্ত নয়নে শেষ বিদায় ভিয়েতনামে'র হোচিমিন সিটি'র একটি বহুতল ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড : নিহত ১৩ভারতে রাজ্যসভার জন্য ৭টি রাজ্যে ২৬টি আসনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছেমৌসুমি পাখিদেরকে দলে আশ্রয় প্রশ্রয় দেবেন না : ওবায়দুল কাদেরকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত আরো ৩ জনের মরদেহ ঢাকায় : পরিবারের কাছে হস্তান্তর
  • আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত ভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।তাজিকিস্তান রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সব রকম সহযোগিতা দেবেসাম্প্রদায়িক ও অশুভ শক্তিকে রুখে দেবার অঙ্গীকার নিয়ে বাংলা বর্ষ বরণউন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জনের ঘোষণায় সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে ধন্যবাদ প্রস্তাব গ্রহণআজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস : নানা কর্মসূচি গ্রহণ একনেকের সভায় ৩,৪১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদনপ্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িতরা জাতির শত্রু : বেনজির আহমেদপ্রশ্ন ফাঁসমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে আমরা সব ব্যবস্থা নিয়েছি : শিক্ষামন্ত্রীগাইবান্ধায় নবজাতককে আঁছড়িয়ে দিয়ে হত্যা করলো পাষণ্ড পিতা!গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা : ১৫ মে ভোট আমি কী পাগল ? প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিত করবো ! ফের সমালোচনা ও শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে সরকার দলীয় এমপি রতন !আজ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া পৌরসভা নির্বাচনযশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালীতে ছেলের হাতে বাবা খুন।সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনআজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস : জাতির বিনম্র শ্রদ্ধাকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত পিয়াস রায়কে অশ্রুসিক্ত নয়নে শেষ বিদায় ভিয়েতনামে'র হোচিমিন সিটি'র একটি বহুতল ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড : নিহত ১৩ভারতে রাজ্যসভার জন্য ৭টি রাজ্যে ২৬টি আসনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছেমৌসুমি পাখিদেরকে দলে আশ্রয় প্রশ্রয় দেবেন না : ওবায়দুল কাদেরকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত আরো ৩ জনের মরদেহ ঢাকায় : পরিবারের কাছে হস্তান্তর
উপরে