প্রকাশ : ১৫ জুলাই, ২০১৭ ০৯:৩৯:৫৯
দেশে এমএলএম প্রতারণা : প্রতারকদের শাস্তি নিশ্চিত করাটা জরুরী
বাংলাদেশ বাণী, ঢাকা : দেশের ভুয়া মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম) কোম্পানি নিয়ে আগেও অনেক লেখালেখি হয়েছে। ডেসটিনি, যুবক, ইউনিপেটুইউসহ এ ধরনের কয়েকটি কোম্পানির প্রতারণা ফাঁস হয়ে যাওয়ার পর তাদের কার্যক্রমের বিরুদ্ধে দেশব্যাপী জনমত গড়ে উঠেছিল।

এ পরিপ্রেক্ষিতে মাল্টিলেভেল কোম্পানির প্রতারণা রোধে আইনের কড়াকড়িও আরোপ করা হয়েছিল। মাঝখানে এ ধরনের কোম্পানির প্রতারণার খবর খুব একটি শোনা যায়নি। তবে কি আবারও শুরু হয়েছে মাল্টিলেভেল প্রতারণা? দেশে বহুস্তর বিপণন (এমএলএম) পদ্ধতির সব কোম্পানিই এখন বেআইনি। সরকার লাইসেন্স দিয়েছে, এমন একটিও এমএলএম কোম্পানি আর নেই। এমএলএম পদ্ধতিতে কেউ ব্যবসা করলে আইনত দণ্ডনীয় হবেন। কিন্তু তা সত্ত্বেও ইউনিপেটু নামের এমএলএম কোম্পানিটি আবারও প্রতারণার ফাঁদ নিয়ে মাঠে নেমেছে। এমন অভিযোগ পাওয়া যাচ্ছে।

অথচ সরকারের নির্দেশ সত্ত্বেও এখনও ওই কোম্পানিতে লগ্নিকৃত ২০ লাখ গ্রাহকের অর্থ ফেরত পাওয়া যায়নি। প্রতারক চক্রের নতুন তৎপরতা বন্ধ ও নিঃস্ব গ্রাহকদের বিনিয়োগের অর্থ দ্রুত ফেরত পেতে বাণিজ্য মন্ত্রণালয় সংসদীয় স্থায়ী কমিটিতে প্রতারিত গ্রাহকদের পক্ষ থেকে আবেদন করা হয়েছে।

বিভিন্ন সময়ে আমরা দেখেছি, স্বল্প বিনিয়োগে অধিক মুনাফার লোভ দেখিয়ে এমএলএম কোম্পানিগুলো বিপুল সংখ্যক মানুষের কোটি কোটি টাকা আত্মসাত্ করেছে। টাকার হিসাবে ডেসটিনি প্রতারণা করে মানুষের পকেট কেটে ৪ থেকে ৬ হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে। কিন্তু গোটা সমাজের তরুণদের জীবনের যে ক্ষতি করেছে, তার মূল্য হিসাব করে বের করা কঠিন।

এদিকে প্রতারণার কারণে যারা সর্বস্বান্ত হল তাদের এখন কী হবে? এ দেশের গ্রামীণ মানুষের সচেতনতার স্তর অনেক নিচুতে। অশিক্ষা, কুশিক্ষা ও বাস্তব জ্ঞানের অভাব মিলিয়ে তারা এমন জীবনযাপন করেন যে, তাদের সঙ্গে প্রতারণা করা কঠিন কাজ নয়। তাদের সরলতার সুযোগে দেশের আনাচে-কানাচে গজিয়ে উঠেছে অনেক মাল্টিলেভেল কোম্পানি ও মাইক্রোক্রেডিট সংস্থা।

এদের অধিকাংশই প্রতারণার জাল বিছিয়ে বেআইনিভাবে হাতিয়ে নিচ্ছে মানুষের কষ্টার্জিত টাকা। এসব সংস্থার বিরুদ্ধে আবারও রুখে দাঁড়াতে হবে। সুষ্ঠু তদন্ত হবে এবং সেই তদন্তের ভিত্তিতে আইনের আওতায় আনতে হবে দোষীদের। প্রতারণার মাধ্যমে হাজার কোটি টাকা আয় করে যদি নির্বিঘ্নে তা ভোগ করা যায়, তবে অন্যান্য প্রতারক গোষ্ঠীও নিত্যনতুন প্রতারণার জাল তৈরি করবে।

সুতরাং সরকারের উচিত হবে দ্রুত প্রতারকদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া। অতীতে সরকারের কিছু উদ্যোগ পরিলক্ষিত হলেও প্রতারিতদের টাকা ফেরত পাওয়ার সংবাদ আমাদের জানা নেই। দরিদ্র জনগণের কষ্টার্জিত উপার্জন নিয়ে এমএলএম কোম্পানিগুলোর প্রতারণার পথ বন্ধ করার এখনই সময়। এসব কোম্পানিতে বিনিয়োগকৃত টাকা গ্রাহকদের ফেরত দিতে সরকার কার্যকর পদক্ষেপ নেবে, আমরা সেই রকম প্রত্যাশাই করি।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
উপরে