প্রকাশ : ১২ আগস্ট, ২০১৭ ০২:২৯:৩১
শিশু ও নারী নির্যাতকদের কঠোরভাবে দমন করতে হবে
বাংলাদেশ বাণী, ঢাকা : শিশু ও নারী নির্যাতনের একটি ঘটনার বিহ্বলতা কাটাতে না কাটাতেই আমাদের চোখে-কানে বিষ ঢেলে দিচ্ছে অন্য একটি ঘটনা। সাম্প্রতিক সময়ে শিশু ও নারী নির্যাতনের ঘটনা উদ্বেগজনক হারে বেড়ে গেছে। ধর্ষণের পর হত্যা যেন ধর্ষকদের হিংসা চরিতার্থের আরও একটি পদ্ধতি হয়ে দাঁড়িয়েছে। রাজধানী ঢাকাসহ প্রায় সারাদেশে শিশু ও নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে।

কোনো কোনো ধর্ষণের ঘটনা ঘটানো হচ্ছে পূর্বপরিকল্পিত উপায়ে প্রলোভনসহ নানা ধরনের ফাঁদ পেতে। কোনো কোনো নারী ধর্ষণের কয়েকটি ঘটনায় সমাজের বিত্তবান প্রভাবশালীরা জড়িত থাকে। তবে আশার কথা হচ্ছে, ধর্ষণ বিষয়ে মানুষের দৃষ্টিভঙ্গির কিছুটা হলেও পরিবর্তন হয়েছে।

আগে সমাজ বা লোকলজ্জার ভয়ে ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীটি বা তার পরিবার আইনের আশ্রয় নিতে এগিয়ে আসত না। এখন সে চিত্র পালটে গেছে। সমাজবিজ্ঞানীরা বারবার বলছেন, ধর্ষণের শিকার হওয়া অন্যান্য দুর্ঘটনার মতোই একটি ঘটনা। যে ধর্ষণের শিকার হয়, তার কোনো অপরাধ থাকে না। তারপরও ধর্ষণের শিকার হওয়া নারীদের কেউ কেউ লজ্জার হাত থেকে বাঁচতে আত্মহননের পথ বেছে নেয়, যা কখনও গ্রহণযোগ্য নয়। ধর্ষিতাকে আইনগত সাহায্য-সহযোগিতার ক্ষেত্রে কিছু পরিবর্তন এসেছে, যা ইতিবাচক ফলাফল ঘটাবে বলে মনে করছেন সমাজবিশ্লেষকরা।

সম্প্রতি এক প্রতিবেদন থেকে শিশুর প্রতি পাশবিকতার যে চিত্র পাওয়া যায়, তা যে কোনো সংবেদনশীল মানুষকে ব্যথিত ও উদ্বিগ্ন করবে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চলতি বছর ৩৫২টি শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিবেদনে পাওয়া পরিসংখ্যানে দেখা যাচ্ছে, যত দিন যাচ্ছে, শিশু ধর্ষণের ঘটনা তত বাড়ছে।

২০১১ সালে শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছিল ৮৬টি, পরের বছর তা দাঁড়িয়েছে ১৭০টিতে। ২০১৪ সালে বেড়ে হয়েছে ১৯৯টি। পরের বছর শিশু ধর্ষণের সংখ্যা ছিল ৫২১। গত বছর তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬০১টিতে। প্রত্যাশিত ছিল শিশু ধর্ষণের ঘটনা কমে আসার, কিন্তু দুর্ভাগ্যজনক সত্যটি হচ্ছে তা বাড়ছে। শিশু ও নারী নির্যাতনের ঘটনা বৃদ্ধি পাওয়ায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী রিয়াজুল হক। ন্যায়বিচার নিশ্চিত না হওয়াকে এর জন্য দায়ী বলে মন্তব্য করেছেন মানবাধিকার কমিশনের চেয়ারম্যান।

সমাজের বিশিষ্টজনরা বলছেন রাজনৈতিক দুর্বৃত্তায়ন, পেশিশক্তি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের ফলে সমাজে বখাটেদের দৌরাত্ম্য বেড়েছে। এতে ধর্ষণ, শিশু ধর্ষণ, গণধর্ষণ ও ধর্ষণের পর হত্যার ঘটনা বাড়ছে।

সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করে শিশু ও নারী নির্যাতন প্রতিরোধে সমাজের সকল অংশকে এগিয়ে আসতে হবে। এতে ব্যর্থ হলে সমাজে এর দীর্ঘস্থায়ী এবং মারাত্মক নেতিবাচক প্রভাব পড়বে। কাজেই শিশু ও নারী নির্যাতকদের কঠোরভাবে দমন করতে হবে। আইনের যথাযথ প্রায়োগিক ইতিবাচকতায় ধর্ষণ ঘটনার প্রত্যেককে শাস্তি দিতে হবে। এক্ষেত্রে কোনো প্রকার শৈথিল্য থাকা চলবে না বলে আমরা মনে করছি ।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত ভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।তাজিকিস্তান রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সব রকম সহযোগিতা দেবেসাম্প্রদায়িক ও অশুভ শক্তিকে রুখে দেবার অঙ্গীকার নিয়ে বাংলা বর্ষ বরণউন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জনের ঘোষণায় সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে ধন্যবাদ প্রস্তাব গ্রহণআজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস : নানা কর্মসূচি গ্রহণ একনেকের সভায় ৩,৪১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদনপ্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িতরা জাতির শত্রু : বেনজির আহমেদপ্রশ্ন ফাঁসমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে আমরা সব ব্যবস্থা নিয়েছি : শিক্ষামন্ত্রীগাইবান্ধায় নবজাতককে আঁছড়িয়ে দিয়ে হত্যা করলো পাষণ্ড পিতা!গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা : ১৫ মে ভোট আমি কী পাগল ? প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিত করবো ! ফের সমালোচনা ও শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে সরকার দলীয় এমপি রতন !আজ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া পৌরসভা নির্বাচনযশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালীতে ছেলের হাতে বাবা খুন।সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনআজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস : জাতির বিনম্র শ্রদ্ধাকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত পিয়াস রায়কে অশ্রুসিক্ত নয়নে শেষ বিদায় ভিয়েতনামে'র হোচিমিন সিটি'র একটি বহুতল ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড : নিহত ১৩ভারতে রাজ্যসভার জন্য ৭টি রাজ্যে ২৬টি আসনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছেমৌসুমি পাখিদেরকে দলে আশ্রয় প্রশ্রয় দেবেন না : ওবায়দুল কাদেরকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত আরো ৩ জনের মরদেহ ঢাকায় : পরিবারের কাছে হস্তান্তর
  • আবহাওয়া : দেশের কোথাও কোথাও বিক্ষিপ্ত ভাবে শিলাবৃষ্টি হতে পারে।তাজিকিস্তান রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশকে সব রকম সহযোগিতা দেবেসাম্প্রদায়িক ও অশুভ শক্তিকে রুখে দেবার অঙ্গীকার নিয়ে বাংলা বর্ষ বরণউন্নয়নশীল দেশের যোগ্যতা অর্জনের ঘোষণায় সংসদে সর্বসম্মতিক্রমে ধন্যবাদ প্রস্তাব গ্রহণআজ বিশ্ব স্বাস্থ্য দিবস : নানা কর্মসূচি গ্রহণ একনেকের সভায় ৩,৪১৭ কোটি টাকা ব্যয়ে ১০ প্রকল্প অনুমোদনপ্রশ্নপত্র ফাঁসের সাথে জড়িতরা জাতির শত্রু : বেনজির আহমেদপ্রশ্ন ফাঁসমুক্ত পরীক্ষা অনুষ্ঠানে আমরা সব ব্যবস্থা নিয়েছি : শিক্ষামন্ত্রীগাইবান্ধায় নবজাতককে আঁছড়িয়ে দিয়ে হত্যা করলো পাষণ্ড পিতা!গাজীপুর ও খুলনা সিটি করপোরেশনের নির্বাচনী তফসিল ঘোষণা : ১৫ মে ভোট আমি কী পাগল ? প্রধান শিক্ষককে লাঞ্চিত করবো ! ফের সমালোচনা ও শিক্ষার্থীদের তোপের মুখে সরকার দলীয় এমপি রতন !আজ গোপালগঞ্জের কোটালীপাড়া পৌরসভা নির্বাচনযশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালীতে ছেলের হাতে বাবা খুন।সাভার জাতীয় স্মৃতিসৌধে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধাঞ্জলি নিবেদনআজ মহান স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস : জাতির বিনম্র শ্রদ্ধাকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত পিয়াস রায়কে অশ্রুসিক্ত নয়নে শেষ বিদায় ভিয়েতনামে'র হোচিমিন সিটি'র একটি বহুতল ভবনে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ড : নিহত ১৩ভারতে রাজ্যসভার জন্য ৭টি রাজ্যে ২৬টি আসনে ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছেমৌসুমি পাখিদেরকে দলে আশ্রয় প্রশ্রয় দেবেন না : ওবায়দুল কাদেরকাঠমান্ডুতে বিমান দুর্ঘটনায় নিহত আরো ৩ জনের মরদেহ ঢাকায় : পরিবারের কাছে হস্তান্তর
উপরে