প্রকাশ : ০৮ আগস্ট, ২০১৭ ০১:২১:৫৬
রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় ★ বিতর্কিত স্মৃতিফলক ! থমকে আছে নির্মাণ কাজ
বাংলাদেশ বাণী, রাবি প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদ বুদ্ধিজীবি স্মৃতিফলকে বঙ্গবন্ধুর ছবি নিচের দিকে রেখে অসম্মানিত করা হয়েছে এমন অভিযোগ উঠার পর থেকে থমকে আছে নির্মাণ কাজ। নির্ধারিত সময়ের ৯ মাস অতিবাহিত হয়ে গেলেও নির্মাণ কাজ শেষ হয়নি। তাছাড়া কবে নাগাদ শেষ হচ্ছে নির্র্মাণ কাজ সে নিয়েও সৃষ্টি হয়েছে অনিশ্চয়তার। অনেকে দাবি করছেন, সরকার দলীয় ছাত্র সংগঠন ও স্থানীয় আওয়ামীলীগের নেতা-কর্মীদের আন্দোলনের মুখে সিদ্ধান্তহীনতায় কাজ এগোতে পারছেন না বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। তবে নির্মাণ কর্তৃপক্ষ দাবী করছেন, নতুন করে বাজেট বরাদ্দ না পাওয়ার কারণে স্মৃতিফলকের নির্মাণ কাজ শেষ করা সম্ভব হচ্ছে না।

জানতে চাইলে নির্মাণ কমিটির আহবায়ক ও বিশ্ববিদ্যালয় পরিবেশ বিজ্ঞান ইনস্টিটিউটের পরিচালক অধ্যাপক সুলতান উল ইসলাম বলেন, একসাথে বাজেট করে স্মৃতিফলকটির নির্মাণ কাজ শুরু হয়নি। ভৌত কাঠামো নির্মাণ ও শৈল্পিক এই দুই টি পর্যায়ে অর্থ বরাদ্দ দিয়ে কাজ হচ্ছে। এভাবে অর্থ বরাদ্দ নিয়ে কাজ শুরু হয়েছিল।

কবে নাগাদ শেষ হচ্ছে সে বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন যে পরিমাণ অর্থ স্মৃতিফলকটি নির্মাণের জন্য বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে সে অর্থ ব্যয় হয়ে গেছে।  নির্মাণ কাজ শেষ করার জন্য এখনও অনেক টাকা ব্যায়ের প্রয়োজন। বিশ^বিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে অর্থ বরাদ্দের বিষয়ে আবেদন করা হয়েছে সিন্ডিকেটের অনুমোদন পেলে অতিদ্রুত কাজ শেষ করা হবে।
এ বিষয়ে কৌশলে বাজেটে বরাদ্দ না পেলে কাজ সমাপ্ত করা সম্ভব হচ্ছে না বলে উল্লেখ করেন তিনি।

এদিকে বিতর্কিত অবস্থায় পড়ে থাকা এ স্মৃতিফলকটি ভেঙ্গে নতুন করে তৈরি করতে হবে  বলে দাবি জানিয়েছিল বিশ^বিদ্যালয় ছাত্রলীগ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা। এনিয়ে বছরের এপ্রিলের ১৫ তারিখে প্রথম বিক্ষোভ মিছিল করেন তারা। পরে মে মাসে আবারও মে মাসের ১৪ তারিখে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি খায়রুজ্জামান লিটন, সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকারকে সাথে নিয়ে আবারও বিক্ষোভ করেন।

তারা বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতার প্রশ্নে বঙ্গবন্ধু সকলের উর্ধ্বে। ক্যাম্পাসে এই স্মৃতিফলকে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি নিচের দিকে স্থাপন করে তাকে চরমভাবে অবমাননা করা হয়েছে। তাই বঙ্গবন্ধুকে যথাযথ সম্মান প্রদর্শনের মাধ্যমে নতুন করে স্মৃতিফলক নির্মাণের দাবি জানান তারা।
তবে নতুন করে তৈরি হবে কি হবে না সে নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন বা নির্মাণ কমিটির কোন সুনির্দিষ্ট বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সভাপতি গোলাম কিবরিয়া বলেন, গত প্রশাসনের আমলে আমরা আন্দোলন করেছিলাম। নতুন উপাচার্য আসার পর আমরা বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতি নিয়ে কথা বলেছি। উপাচার্য আমাদের আস্বস্ত করেছেন যে বঙ্গবন্ধুকে তার সম্মানের স্থানে রেখেই স্মৃতিফলকের নির্মাণ কাজ সম্পন্ন করা হবে।

স্মৃতিফলকের নির্মাণ কাজ থেমে থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয় উপ-উপাচার্য আনন্দ কুমার সাহা বলেন, দৃশ্যত থেমে আছে দেখালেও প্রকৃত অর্থে নির্মাণ কাজ থেমে নেই। উপাচার্য মহোদয়ের সাথে আলোচনা হয়েছে তিনি বিষয়টি দেখছেন। তাছাড়া অতি দ্রুত নির্মাণ কাজ শেষ করা হবে বলেও জানান তিনি।
নতুন করে নির্মাণ হবে কিনা এ বিষয়ে তিনি বলেন, যদি প্রয়োজন হয় তবে সে বিষয়ে প্রশাসন পদক্ষেপ নিবে।

জানা যায়, মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিরক্ষা এবং শহীদ বুদ্ধিজীবীদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে গত বছরের ১০ আগস্ট বিশ্ববিদ্যালয়ে শহীদ বুদ্ধিজীবী স্মৃতিফলক এর ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন তৎকালীন উপাচার্য ড. মুহম্মদ মিজানউদ্দিন। স্মৃতিফলকটির নির্মাণ ব্যায় ধরা হয় ৬১ লাখ টাকা।
তাছাড়া স্মৃতিফলক নির্মাণ কাজ গত বছরের শহীদ বুদ্ধিজীবী দিবসের (১৪ ডিসেম্বর) আগেই সম্পন্ন করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।
সর্বশেষ সংবাদ
  • ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে টিকে সিরিজে প্রথম জয়ের মুখ দেখলো লংকাআখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শেষ হয়েছেআজ আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে চলতি বছরের ৫৩ তম বিশ্ব ইজতেমাদক্ষিণ সুুনামগঞ্জে সিরিজ ডাকাতি ॥ জনমনে চরম আতঙ্ক : প্রশাসন নিরবযশোরে পৃথক স্থান থেকে ৪ জনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশটঙ্গীর তুরাগ তীরে চলছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব : কঠোর নিরাপত্তা বলয়শ্রীলংকাকে ১৬৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশঢাকা উত্তর সিটি'র উপ-নির্বাচনে আদালতের ৩ মাসের স্থগিতাদেশসুন্দরবনের ৩ কুখ্যাত জলদস্যুবাহিনীর প্রধানসহ ৩৮ জনের আত্মসমর্পণজাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ : ভবিষ্যতে বাংলাদেশে জাতীয় ঐক্যের দাবি প্রধানমন্ত্রী'ররাজধানী'র জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের সফল অভিযান : ৩ মৃতদেহ ও বিস্ফোরক উদ্ধারপদোন্নতি পেলেন বঙ্গবন্ধু'র খুনিদের গ্রেফতারকারী প্রথম পুলিশ অফিসারবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণীআম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বরাজধানীতে তীব্র গ্যাস সংকট : জনমনে ক্ষোভ জঙ্গি ও অন্যান্য অপরাধ দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে : আইজিপিঅর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি'র সভায় ১৩টি প্রকল্প অনুমোদনপুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই : প্রধানমন্ত্রীফারমার্স ব্যাংক কর্তৃক-জলবায়ু ট্রাস্ট তহবিলসহ আমানতকারীদের অর্থ ফেরত না দেয়ায় টিআইবি’র উদ্বেগসুন্দরগঞ্জের আসনটি ছিনিয়ে নিয়েছে আওয়ামী লীগ : এইচ. এম. এরশাদ
  • ফাইনালে উঠার লড়াইয়ে টিকে সিরিজে প্রথম জয়ের মুখ দেখলো লংকাআখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দ্বিতীয় পর্বের বিশ্ব ইজতেমা শেষ হয়েছেআজ আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হবে চলতি বছরের ৫৩ তম বিশ্ব ইজতেমাদক্ষিণ সুুনামগঞ্জে সিরিজ ডাকাতি ॥ জনমনে চরম আতঙ্ক : প্রশাসন নিরবযশোরে পৃথক স্থান থেকে ৪ জনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশটঙ্গীর তুরাগ তীরে চলছে বিশ্ব ইজতেমার দ্বিতীয় পর্ব : কঠোর নিরাপত্তা বলয়শ্রীলংকাকে ১৬৩ রানের বড় ব্যবধানে হারিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশঢাকা উত্তর সিটি'র উপ-নির্বাচনে আদালতের ৩ মাসের স্থগিতাদেশসুন্দরবনের ৩ কুখ্যাত জলদস্যুবাহিনীর প্রধানসহ ৩৮ জনের আত্মসমর্পণজাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ : ভবিষ্যতে বাংলাদেশে জাতীয় ঐক্যের দাবি প্রধানমন্ত্রী'ররাজধানী'র জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের সফল অভিযান : ৩ মৃতদেহ ও বিস্ফোরক উদ্ধারপদোন্নতি পেলেন বঙ্গবন্ধু'র খুনিদের গ্রেফতারকারী প্রথম পুলিশ অফিসারবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণীআম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বরাজধানীতে তীব্র গ্যাস সংকট : জনমনে ক্ষোভ জঙ্গি ও অন্যান্য অপরাধ দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে : আইজিপিঅর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি'র সভায় ১৩টি প্রকল্প অনুমোদনপুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই : প্রধানমন্ত্রীফারমার্স ব্যাংক কর্তৃক-জলবায়ু ট্রাস্ট তহবিলসহ আমানতকারীদের অর্থ ফেরত না দেয়ায় টিআইবি’র উদ্বেগসুন্দরগঞ্জের আসনটি ছিনিয়ে নিয়েছে আওয়ামী লীগ : এইচ. এম. এরশাদ
উপরে