প্রকাশ : ১২ অক্টোবর, ২০১৮ ০৩:০৩:৪৬
শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের মাঝে হতাশা-
মজিদপুর কওমী মাদ্রাসা : ৩৮ বছর পর এক নোটিশে বন্ধ হয়ে গেল !
বাংলাদেশ বাণী, কেশবপুর (যশোর) প্রতিনিধি : দীর্ঘ ৩৮ বছর ধরে ধর্মীয় শিক্ষা দান করার পর অবশেষে ইউএনও’র নির্দেশে পুলিশের দেয়া এক নোটিসে বন্ধ হয়ে গেছে যশোরের কেশবপুরে জামি‘আ মাদানীয়া মজিদপুর কওমী মাদ্রাসাটি। ওই এলাকার একমাত্র প্রতিষ্ঠানটি ছেড়ে চলে গেছে দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী। অন্য চাকরীর বয়স না থাকায় ৮ শিক্ষক কর্মচারী পরিবারগুলোই নেমে এসেছে হতাশা।
মাদ্রাসা পরিচালনা কমিটির সেক্রেটারী মেম্বার  আব্দুল আহাদ জানান, ১৯৮০ সালে গ্রামবাসির প্রচেষ্টায় জামি‘আ মাদানিয়া মজিদপুর কওয়ামী মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠিত হয়। পরবর্তীতে হেফজখানা ও এতিমখানা চালু করা হয়।
দীর্ঘদিন ধরে আলতাপোল গ্রামের মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক প্রতিষ্ঠানটির মুহতামিমের দায়িত্ব পালনকালে এলাকাবাসিকে পাশ কাটিয়ে নিজের ইচ্ছামত প্রতিষ্ঠানটি পরিচালনা করে আসছিলেন।

চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে গ্রামবাসির কাছে ওই মুহতামিমের অনিয়ম, দুর্নীতি ও স্বেচ্ছাচারিতা ধরা পড়ে। ফলে ২৩ ফেব্রুয়ারী মাদ্রাসার শুরা কমিটির এক জরুরী সভায় ৪০টি অনিয়ম ও অর্থ আতœসাতের অভিযোগে তাঁর অপসারণ দাবি করে এলাকাবাসী।

তাৎক্ষণিক পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মজিদপুর জামে মসজিদের ঈমাম মাওলানা আব্দুল বারীকে আহবায়ক করে ৩ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়।

তদন্ত শেষে গত ২৬ ফেব্রুয়ারী ওই মুহতামিমের বিরুদ্ধে ৪ লাখ ৬৬ হাজার ৩২৩ টাকা আতœসাতের একটি তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করেন। এ সময় মুহতামিম মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক তাঁর অফিস কক্ষে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে গা ঢাকা দেন।

পরবর্তীতে মাদ্রাসা প্রাঙ্গনে গ্রামবাসির সাথে এ বিষয়ে সাবেক ধর্মপ্রতিমন্ত্রী মনিরামপুরের মুফতি মোহাম্মদ ওয়াক্কাস ও কেশবপুর পৌরসভার মেয়র রফিকুল ইসলামের একাধিক বৈঠক হয়। তারা মাওলানা আব্দুর রাজ্জাক ক্ষমা চাইলে তাকে ক্ষমা করে দিয়ে কাজ করার সুযোগ দেওয়ার অনুরোধ করে যান। কিন্তু নির্দিষ্ট দিনে মাওলানা রাজ্জাক প্রতিষ্ঠানে না এসে মঙ্গলকোটের মাওলানা হাবিব্লু¬াহকে দিয়ে মাদ্রাসার চাবি পাঠিয়ে দেন।

এরপর মাদ্রাসার সিনিয়র শিক্ষক মাওলানা ইয়াছিন আলীকে ভারপ্রাপ্ত মুহতামিমের দায়িত্ব দিয়ে পাঠদান ও পরিচালনা অব্যাহত রাখা হয়। পরবর্তীতে মাওলানা রাজ্জাক ওই মাদ্রাসার নামিও আলতাপোল ও দোরমুটিয়া গ্রামের জমি বিক্রি করে দিয়ে টাকা আতœসাৎ করেন বলে জানা যায়। ফলে যশোর আদালতে তার বিরুদ্ধে ১০ লাখ টাকা আতœসাতের অভিযোগে মামলা করা হয়। এ সময় বিষয়টি নিরসনে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে দু‘দফা সালিস হলেও অমিমাংশিত থেকে যায়।

মজিদপুর গ্রামের সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুস সামাদ আজাদ বলেন, মাদ্রাসাটিতে দেড় শতাধিক শিক্ষার্থী হাফিজিয়া ও কওমী বিষয়ে লেখাপড়া করে। প্রতিষ্ঠানটি বাড়ি সংলগ্ন হওয়ায় অনেক দরিদ্র পরিবারের ছেলেরা এখানে লেখাপড়া করতো।

এলাকাবাসি তাদের লেখাপড়া ও খাওয়া দাওয়ার সব ব্যবস্থা করে থাকেন। এতকিছুর পরও  মাদ্রাসাটি সুন্দরভাবে পরিচালিত হচ্ছিল এবং কোন উত্তেজনা বা সংঘর্ষের আশংকাও ছিল না।

কিন্তু উপজেলা নির্বাহী অফিসার দুর্নীতিবাজ মুহতামিম মাওলানা আব্দুর রাজ্জাকের পক্ষ নিয়ে তাকে মাদ্রাসায় স্বপদে পুনর্বহাল করতে বার বার পুলিশ পাঠিয়ে গ্রামবাসি, শিক্ষক ও কোমলমতি শিক্ষার্থীদের মধ্যে আতঙ্ক সৃষ্টি করছেন এবং রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশংকার নামে তিনি মাদ্রাসাটি বন্ধের নির্দেশ দিয়েছেন।

গত শনিবার থানার উপপরিদর্শক নাজমুল হুসাইন স্বাক্ষরিত একটি নোটিশ মাদ্রাসার প্রিন্সিপ্যালের নিকট পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এ ব্যাপারে এলাকাবাসির পক্ষ থেকে উচ্চ আদালতে যাওয়া হবে বলে তিনি জানান।

কেশবপুর থানার উপপরিদর্শক নাজমুল হুসাইন বলেন, কেশবপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মিজানূর রহমান গত ২ অক্টোবর স্মারক নং ০৫.৪৪.৪১৩৮.০০০.০৯.০৪৭.২০১৮-১২৬১ পত্রে মজিদপুর কওমী মাদ্রাসার সকল কার্যক্রম সাময়িকভাবে বন্ধ করার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য থানার অফিসার ইনচার্জকে পত্রে অনুরোধ করেছেন। ফলে, অফিসার ইনচার্জ দ্বারা আদিষ্ঠ হয়ে ওই প্রতিষ্ঠান বন্ধে নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে শহীদ শেখ রাসেলের ৫৫ তম জন্মদিন উদযাপিত ‘দেশের অপরাধীদের জন্য অশনি সংকেত অপেক্ষা করছে’: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাআগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জঙ্গিবাদ কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না : আইজিপি সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকারবাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরএনটিআরসিএ'র নতুন চেয়ারম্যান পদে আশফাক হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকারমানুষের স্বচ্ছতা বাড়ায় প্রতিবছর দেশে পূজা মণ্ডপ বাড়ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী“দেশে কোন সংখ্যালঘু নেই” : র‌্যাবের মহাপরিচালক নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে-মতবিরোধ থাকলেও জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় প্রভাব পড়বে না : সিইসিবাসাবাড়ি'র গ্যাসের মূল্য আপাতত বাড়ছে না : বিইআরসিঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জন্য দেড় বিঘা জমি প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী‘পদ্মাসেতু রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীবাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুরু সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে‘তিতলি’'র প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস : ভূমিধসের আশঙ্কাপ্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের ‘শেখ রাসেল সেতু’ উদ্বোধনভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে ৮ জনের প্রাণহানি : ক্রমশ: দুর্বল হচ্ছেএকুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় : বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড ❏ তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনইতিহাসের বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার মামলা ❏ বিচারের ঐতিহাসিক রায় আজ
  • নানা কর্মসূচির মধ্যদিয়ে শহীদ শেখ রাসেলের ৫৫ তম জন্মদিন উদযাপিত ‘দেশের অপরাধীদের জন্য অশনি সংকেত অপেক্ষা করছে’: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নভেম্বরের প্রথম সপ্তাহে সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণাআগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জঙ্গিবাদ কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না : আইজিপি সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকারবাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরএনটিআরসিএ'র নতুন চেয়ারম্যান পদে আশফাক হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকারমানুষের স্বচ্ছতা বাড়ায় প্রতিবছর দেশে পূজা মণ্ডপ বাড়ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী“দেশে কোন সংখ্যালঘু নেই” : র‌্যাবের মহাপরিচালক নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে-মতবিরোধ থাকলেও জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় প্রভাব পড়বে না : সিইসিবাসাবাড়ি'র গ্যাসের মূল্য আপাতত বাড়ছে না : বিইআরসিঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জন্য দেড় বিঘা জমি প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী‘পদ্মাসেতু রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীবাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুরু সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে‘তিতলি’'র প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস : ভূমিধসের আশঙ্কাপ্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের ‘শেখ রাসেল সেতু’ উদ্বোধনভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে ৮ জনের প্রাণহানি : ক্রমশ: দুর্বল হচ্ছেএকুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় : বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড ❏ তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনইতিহাসের বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার মামলা ❏ বিচারের ঐতিহাসিক রায় আজ
উপরে