প্রকাশ : ২৮ জুলাই, ২০১৭ ১১:০৮:৪৪
অবশেষে মিডিয়ায় আবার ফিরছেন তিন্নি !
বাংলাদেশ বাণী, বিনোদন প্রতিবেদক : মিডিয়ায় এসে বেশ পরিচিতি পেয়েছিলেন শ্রাবস্তী দত্ত তিন্নি। পেয়েছিলেন জনপ্রিয়তাও। তবে সে পরিচিতি আর জনপ্রিয়তা কাজে লাগাতে পারেননি। মাদকাসক্তি তাকে দূরে সরিয়ে দিয়েছে আলো ঝলমল দুনিয়া থেকে।

মাদকের জন্যই ক্যারিয়ারে এগিয়ে যাওয়ার সময়ে শুধু পিছিয়েই নয়, একেবারে ছিটকে পড়েছেন তিনি। হয়ে যান অন্তঃপুরের যাত্রী।

তবে অন্তরাল থেকে গত বছর দ্বিতীয় বিয়ে বিচ্ছেদের জন্য আলোচনায় আসেন।  

এরপর ‘একই বৃন্তে’ এবং ‘চেক  পোস্ট’ নামের দুটি নাটকেও অভিনয় করেন। ফলে অনেকেই ধারণা করছিলেন, হারিয়ে যাওয়া তিন্নি আবারও অভিনয়ে নিয়মিত হবেন। কিন্তু না, তা আর হল না। আবারও ডুব দেন তিন্নি। বারবার ফোন করেও পাওয়া যাচ্ছিল না। দেড় বছর পর সম্প্রতি হুট করে আবারও খবরে এলেন তিনি।

জানা গেছে, সিলেটে নির্মাতা পারভেজ আমিনের ‘কুয়াশা’ নামে একটি নাটকের শুটিং করছেন। তার সঙ্গে রয়েছেন জনপ্রিয় অভিনেতা আবদুন নূর সজল।

নতুন নাটকে অভিনয় ও কাজে ফেরা সম্পর্কে তিন্নির সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘নাটকের গল্পটা ভালো। সিলেটের বিভিন্ন  লোকেশনে কাজ করছি। আমার অভিনয়ে ফেরার পুরো কৃতিত্ব নির্মাতা পারভেজ আমিনের। তিনি কয়েক দিন আগে আমাকে নিজ দায়িত্বে খুঁজে বের করে সিডিউল নিয়েছেন। আমি তার কাছে কৃতজ্ঞ। এখন থেকে নিয়মিত কাজ করতে চাই। সত্যি সত্যিই চাই। এর জন্য মিডিয়ার সাপোর্ট খুব জরুরি।’

তিন্নির ওপর এখন আর বিশ্বাস নেই শোবিজ অঙ্গনের কারও। সব ভুলে নতুন করে গত বছরও ফেরার কথা জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু কথা রাখেননি।

বিশ্বস্ত সূত্র জানিয়েছে, এখনও নেশার জগৎ থেকে বের হতে পারেননি এ তারকা। তাই অনেকে মন্তব্য করেছেন, তিন্নি ফিরছেন এটা ভালো কথা। কিন্তু এ জন্য নেশার দুনিয়া থেকে সরে এসে ধারাবাহিক কাজ দেখিয়ে তাকে বিশ্বাস অর্জন করতে হবে। এরপরই দর্শকের বিশ্বাস জন্মাবে তার ওপর। অন্যথায় তিন্নিকে আড়ালের তারকা হিসেবেই ডুবে থাকতে হবে। মডেলিংয়ের মাধ্যমে তিন্নির অভিনয়ে আসা।

২০০৪ সালে তিনি মিস বাংলাদেশ নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর অসংখ্য জনপ্রিয় টিভি নাটকে অভিনয় করেন। জনপ্রিয়তা পান বিজ্ঞাপনের মডেল হিসেবেও। এছাড়া বেশ কিছু চলচ্চিত্রেও অভিনয় করেন তিনি।

 
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে