প্রকাশ : ০৩ আগস্ট, ২০১৭ ০১:২০:১২
জগন্নাথপুরে ধর্ষনের পর কলেজ ছাত্রীর আত্মহত্যা
বাংলাদেশ বাণী, জগন্নাথপুর (সুনামগঞ্জ) প্রতিনিধি : উপজেলার পাটলী ইউনিয়নের কবিরপুর নয়াবাড়ি গ্রামের আখলুছ মিয়ার কলেজে অধ্যায়নরত মেয়ে রুমেনা বেগম বখাটে কর্তৃক ধর্ষনের ৪দিন পর সোমবার সকালে বিষপানে আত্মহত্যার চেষ্টায় ব্যর্থ হয়ে ঐদিন  বিকেলে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে তার মৃত্যু হয়েছে।
ওসমানী হাসপাতালে ময়না তদন্ত শেষে মঙ্গলবার বিকেলে জানাজার নামাজ শেষে কবিরপুর নয়াবাড়ি গ্রামে রুমেনা বেগমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। নিহত কলেজ ছাত্রী রুমেনার ভাই জুয়েল মিয়া জানান, তার বোন রুমেনাকে বাচাঁতে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন। রুমেনার মৃত্যুর পেছনে যে ঘটনা রয়েছে এ ব্যাপারে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

জগন্নাথপুর সরকারি ডিগ্রী কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের ছাত্রী রুমেনা বেগম অসচ্ছল পরিবারে উচ্চ শিকাষা গ্রহনে সে নিজেই লেখা পড়ার খরচ যোগাতে বাড়ি বাড়ি গিয়ে প্রাইভেট পড়ানোর কাজে ব্যস্ত থাকে।

রুমেনার পারিবারিক সূত্রে জানাযায়, বেশ কিছুদিন ধরে রুমেনা কলেজে যাওয়া আসা ও প্রাইভেট পড়ানোর কাজে যাতায়াতের সময় পাশ্বর্তী গ্রামের চক আছিমপুর গ্রামের আবু মিয়ার পুত্র বখাটে ইউনুছ আলী উত্তপ্ত করাসহ প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিল।

সিএনজি চালক বখাটে ইউনুছ আলীর কথায় সাড়া না দেয়া রুমেনাকে প্রায় অপহরন করার হুমকি দিয়ে আসছিল। গত ৪দিন পূর্বে রুমেনা বেগম কলেজে যাওয়ার পথে বখাটে ইউনুস আলী তারসহযোগীদের মাধ্যমে রাস্তা থেকে জোর পূর্বক সিএনজি যোগে উঠিয়ে নিয়ে নির্জন কোন এক স্থানে তাকে ধর্ষন করে।

ধর্ষিতা রুমেনা বেগম বাড়িতে এসে ঘটনাটি বাবা মাকে জানায়। ধর্ষিতা কলেজ ছাত্রী রুমেনার কৃষক বাবা আকলুছ মিয়া গ্রামের গন্যমান্য ব্যক্তিদের এবং বখাটে ধর্ষক ইউনুছের পরিবারকে ঘটনাটি জানান। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ধর্ষক ইউনুছ আলীর পরিবারের লোকজন ধর্ষিতা রুমেনার বাবাকে অপমান করেন। নিহত রুমেনা এসব ঘটনা শুনে লোক লজ্জায় অপমানে বিমর্ষ হয়ে পড়ে।

অবশেষে সোমবার সকাল ৮টায় পরিবারের লোকজনদের আড়ালে রুমেনা বেগম কীট নাশক পান করে। বিষের জ্বালায় ছটপট করতে দেখে পরিবারের লোকজন প্রথমে তাকে জগন্নাথপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স-এ নিয়ে যাওয়ার পর, কর্তব্যরত চিকিতৎক রুমেনার অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরন করেন। সেখানে ৩ ঘন্টা হাসপাতাল বেডে মৃত্যুর সাথে যুদ্ধ করে রুমেনা বেগম মৃত্যুর কূলে ঢলে পড়ে।

গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে নিহত রুমেনা বেগমের ময়না তদন্ত শেষে তার মৃত দেহ গ্রামে এসে পৌছলে পরিবার ও আত্মীয় স্বজনদের করুন আহাজারীতে হৃদয় বিদারক দৃশ্যের সৃষ্টি হয়। নিহত রুমেনা বেগমের দরিদ্র পিতা-মাতা ও পরিবারের সদস্যরা হাউ-মাউ করে কাঁদছেন আর বলছেন রুমেনার মত আর কোন মেয়ে যেন বখাটেদের লালসার শিকার না হয়ে অকালে প্রান দিতে না হয়। তারা বখাটে ইউনুসের ফাঁসির দাবী জানান।

এদিকে, শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত এ ঘটনায় জগন্নাথপুর থানায় লিখিত কোন অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

 
সর্বশেষ সংবাদ
  • ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন বঙ্গবন্ধু'র ৭ মার্চের ভাষণ : ২৫ নভেম্বর দেশব্যাপী আনন্দ শোভাযাত্রা দ. কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজ মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর যৌথ সামরিক মহড়ায় যোগ দেবেঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ‘কাস্টমস এন্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিস’ চালু২০২৪ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে শতভাগ বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে : বানিজ্যমন্ত্রীরোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্যের সহযোগীতা চাইলো ঢাকা খুলনা-কলকাতা চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেনের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
  • ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন বঙ্গবন্ধু'র ৭ মার্চের ভাষণ : ২৫ নভেম্বর দেশব্যাপী আনন্দ শোভাযাত্রা দ. কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজ মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর যৌথ সামরিক মহড়ায় যোগ দেবেঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ‘কাস্টমস এন্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিস’ চালু২০২৪ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে শতভাগ বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে : বানিজ্যমন্ত্রীরোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্যের সহযোগীতা চাইলো ঢাকা খুলনা-কলকাতা চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেনের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
উপরে