প্রকাশ : ০৪ মে, ২০১৭ ০০:২১:২০
বিশ্বমানের উন্নয়ন করার পরিকল্পনা-
শেষ হয়েছে কলাতলী-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়কের কাজ
বাংলাদেশ বাণী, ফরিদুল মোস্তফা খান, কক্সবাজার থেকে : অবশেষে শেষ হয়েছে কক্সবাজার শহরের কলাতলী থেকে টেকনাফ পর্যন্ত ৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ মেরিন ড্রাইভ সড়কের কাজ। মে মাসের প্রথম সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনের মাধ্যমে উন্মুক্ত হবে স্বপ্নের এই সড়ক। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, মেরিন ড্রাইভ সড়কের মাধ্যমে খুলে যাবে অপার সম্ভাবনার পর্যটনের অবারিত দুয়ার। এক পাশে সবুজের সমারোহ নিয়ে উঁচু পাহাড় আর অপর পাশে উত্তাল সমুদ্রের ঢেউ আছড়ে পড়ছে বালিয়াড়ির বুকে।

এই দু’য়ের বুক চিরে সু-প্রশস্ত পিচঢালা পথ।এটি বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের কোলঘেঁষে উদ্বোধনের অপেক্ষায় থাকা কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়ক।  নানা জটিলতায় ১৯৯৮ সালে শুরু হওয়া মেরিন ড্রাইভ প্রকল্পের কাজ শেষ হতে পার হয়ে যায় দীর্ঘ সময়। সম্প্রতি সেনাবাহিনীর ১৬ ইসিবির তত্ত্বাবধানে শেষ হয় সড়কটির নির্মাণ কাজ। চলছে শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি।

স্থানীয়রা বলছেন, সড়কটি উদ্বোধনের মাধ্যমে খুলবে পর্যটনের নতুন দুয়ার। স্থানীয়দের একজন বলেন, ‘বিভিন্ন ধরণের কর্মসংস্থান মূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে উঠছে। এই কর্মকা-ের জন্য আমরা সবাই উপকৃত।

স্থানীয় অপর আর একজন বলেন, ‘মেরিন ড্রাইভ সড়ক চালু হলে আমাদের অর্থনৈতিক চাকা আরো সচল হবে।’  এ সড়কের মাধ্যমে কক্সবাজার একটি সমৃদ্ধশালী পর্যটন শিল্প হিসেবে প্রকাশ পাবে বলে মনে করছেন কক্সবাজার হোটেল মালিক সমিতির সহ সভাপতি সাখাওয়াত হোসাইন।

তিনি বলেন, ‘এই ১২০ কি. মি. রাস্তাকে যদি পরিকল্পিত ভাবে ব্যবহার করতে পারি তাহলে বিশ্বের দরবারে কক্সবাজারকে আরো সমৃদ্ধশালী একটি পর্যটন শিল্প হিসেবে প্রকাশ করতে পারবো।’  কক্সবাজার সড়ক ও জনপথ বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী রানাপ্রিয় বড়ুয়া জানালেন, মেরিন ড্রাইভ সড়ক পর্যটন শিল্পের জন্য নতুন মাত্রা যোগ করবে।  দীর্ঘ এ সড়কে রয়েছে ১৭টি ব্রিজ ও ১শ ৮টি কালর্ভাট। সড়কটি নির্মাণে ব্যয় হয়েছে প্রায় পাঁচশো কোটি টাকা।

মেরিন ড্রাইভ সড়ককে বিশ্বমানের উন্নয়ন করার পরিকল্পনা

অপরদিকে, কক্সবাজার থেকে টেকনাফ পর্যন্ত মেরিন ড্রাইভ সড়কের কাজ শেষ হয়েছে। আগামী মে মাসের প্রথম সপ্তাহে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই সড়ক উদ্বোধন করবেন। এর জন্য সকল প্রস্তুতি শেষ করেছে বলে জানিয়েছেন প্রকল্প বাস্তবায়নকারি সেনা কর্মকর্তা।

তিনি বলেছেন শুরুতে নানা চ্যালেঞ্জিং নিয়ে এ সড়কের কাজ করতে হয়েছে। এসড়কের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে সংশ্লিষ্ট এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হবে। এ সড়কটি বিশ্ব মানের করার পরিকল্পনাও রয়েছে। এ সড়কের উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে পর্যটন শিল্পের ব্যাপক পরিবর্তন হবে বলে জানান সেনা কর্মকর্তা। একপাশে দাঁড়িয়ে আছে সবুজের সমারোহ নিয়ে উঁচু পাহাড়।

অপর পাশে উত্তাল সমুদ্রের ঢেউ আছড়ে পড়ছে বালিয়াড়ির বুকে। এই দু’য়ের বুক চিরে চলে গেছে সু-প্রশস্ত পিচঢালা পথ। আর এটাই বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকতের কোলঘেঁষে তৈরী হওয়া কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ সড়ক।

আগামি ৬ মে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সড়কের উদ্বোধন করার কথা রয়েছে। আর এ উপলক্ষে মঙ্গলবার সকালে গণমাধ্যম কর্মীদের মুখোমুখি হন প্রকল্পবাস্তবায়নকারি সেনা বাহিনীর ১৬ ইসিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল কে এম মেহেদী হাসান।  তিনি বলেন, শুরুতে এ সড়কের কাজ করতে নানা জটিলতা তৈরী হয়। তবে সড়কের কাজ শেষ করা সম্ভব হয়েছে। এ সড়কের কারণে সংশ্লিষ্ঠ এলাকার জীবন মানের ব্যাপক উন্নয়ন হবে। এ সড়কটিতে নানা উদ্যোগের মাধ্যমে বিশ্বমানের মেরিন ড্রাইভ সড়ক হিসেবে তৈরীর পরিকল্পনাও রয়েছে বলে জানান তিনি।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সড়কের উদ্বোধনের সকল প্রস্তুতি শেষ এবং এ সড়কের উদ্বোধনের পর কক্সবাজার একটি সমৃদ্ধশালী পর্যটন শিল্প হিসেবে প্রকাশ পাবে বলে মনে করছেন তিনি। এ সড়কে ১৭ টি ব্রীজ, ১০৮টি কালর্ভাট রয়েছে। যেখানে ব্যয় হয়েছে ১ হাজার ৫০ কোটি টাকার কাছাকাছি।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
উপরে