প্রকাশ : ২৩ ডিসেম্বর, ২০১৬ ১৩:৪০:১৩
তালার মাগুরা যুদ্ধ :
সহযোদ্ধাদের হারানোর সেই স্মৃতি এখনও তাড়া করে গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকারকে
বাংলাদেশ বাণী, মীর ইমরান মাহমুদ, তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধি : কোন কিছুই বুঝে উঠার আগেই পাকমিলিশিয়া বাহিনী ও স্থানীয় রাজাকারদের সশ্রস্ত্র আক্রমণ। বৃষ্টির মত গুলি ছুড়তে ছুড়তে পাকমিলিটারী বাহিনীকে এগিয়ে আসতে দেখে তাদের প্রতিহত করতে পাল্টা গুলি চালাই আমরা। গুলিতে পাকবাহিনী পিছু হঠলেও অকালে ঝরে যায় আমাদের তিন মুক্তিযোদ্ধা। ঘাতকদের বুলেটবিদ্ধ হয়ে শহীদ হন মুক্তিযোদ্ধা তালার বারাত গ্রামের আব্দুল আজিজ, বাতুয়াডাঙ্গার সুশিল সরকার ও কলারোয়ার আবু বক্কর। সাতক্ষীরার তালা উপজেলা মাগুরা যুদ্ধে পাকমিলিটারী বাহিনীর সাথে যুদ্ধে কমান্ডার হিসেবে নেতৃত্বে দিয়ে তিন মুক্তিযোদ্ধাকে হারানোর সেই স্মৃতি আজও তাড়া করে ফেরে মুক্তিযোদ্ধা গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকারকে।
তিন জনকে এক কবরে মাটি দেয়ার সেই ঘটনা মনে উঠতেই চোখের জল আর ধরে রাখতে পারেনি তালা উপজেলার নগরঘাটা ইউনিয়নের গোয়ালপোতা গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা অধ্যাপক সুভাষ সরকার। মুক্তিযোদ্ধা সুশিল, আব্দুল আজিজ ও আবু বক্করের লাশ নিয়ে কিভাবে দাফন করা হয়েছিল তার সেই স্মৃতি যেন এখন চোখের সামনে জ¦ল জ¦ল করে ভেসে বেড়াচ্ছে। লাশ তিনটিকে সৎকার করার স্থান নিয়ে মাগুরার কয়েক হিন্দু বাড়িতে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত ঘুরতে হয়েছে। পাকবাহিনীর হামলার ভয়ে কোন হিন্দু পরিবার লাশ দাফনে রাজি হচ্ছিল না। এক পর্যায় হিন্দু একটি পরিবার বুঝিয়ে রাজি করা হলে একস্থানে পাশাপাশি দু’টি কবর খুড়ে একটি কবরে শহীদ আবু বকর ও আব্দুল আজিজকে মাঝখানে একটি দেয়াল রেখে পাশের কবরে সুশিল সরকারকে সমাহিত করেন মুক্তিযোদ্ধারা। মাগুরা যুদ্ধে তিন মুক্তিযোদ্ধা শহীদ হয়েছে শুনে সেখানে আসেন মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার রহমত উল্লাহ দাদু, ইঞ্জিনিয়ার শেখ মুজিবুর রহমান, কামরুজ্জামান টুকু ও কর্নেল শফিউল্লাহ।
১৯৭১ সালের ২৫ নভেম্বর খুলনার কপিলমুনি যুদ্ধে যাওয়ার প্রস্তুতি নিতে তালা পাটকেলঘাটা অঞ্চলের মুক্তিযোদ্ধারা যখন মাগুরায় জড়ো হয়ে দুপুরের খাবার খাচ্ছেন হঠাৎ ১০-১৫ জন পাকমিলিটারী বাহিনীর সদস্য এবং এলাকার কয়েকজন রাজাকার গুলি করতে করতে পাটকেলঘাটার দিক থেকে মাগুরা বাজারে ঢুকে পড়ে। মুক্তিযোদ্ধা তালা অঞ্চলের গেরিলা গ্রুপের কমান্ডার সুভাষ সরকার ও মুক্তিযোদ্ধা নুরুজ্জামান এর নেতৃত্বে ১২ সদস্যের মুক্তিযোদ্ধা পাকমিলিটারী বাহিনীর সদস্যদের প্রতিহত করতে গুলি বর্ষণ শুরু করে। সুভাষ সরকার বলেন, আমাদের তিন মুক্তিযোদ্ধা গুলিতে নিহত হলেও ঘটনাস্থলে দুই পাকমিলিটারী সদস্যও গুলিবিদ্ধ হতে দেখেছিলাম। সাতক্ষীরা টেক্সটাইল মিল এলাকার শেখ নুরুজ্জামান মন্টুর পাকবাহিনীর গুলিতে ভুড়ি বেরিয়ে যায়। সেখান থেকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে নুরুজ্জামান মন্টুকে ভারতে পাঠিয়ে চিকিৎসা করেছিলাম। সে দিনের এমন সব স্মৃতির কথা বলতেই গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকার ডুকরে কেঁদে উঠেন। নুুরুজ্জামান মন্টু এখন বাড়িতে চিকিৎসার অভাবে মৃত যন্ত্রণায় ছটফট করছে। দেশ স্বাধীন হলে পাটকেলঘাটায় প্রথম স্বাধীন বাংলার পতাকা উত্তোলন করা হয়।
আর ১৯৭১ সালের ২৫ নভেম্বর মাগুরা যুদ্ধে নিহত শহীদ সুশীল সরকারের মা-বাবা গ্রাম ছেড়ে পালিয়ে ভারতে চলে গেছে। বঙ্গবন্ধুর ভাষনের পর গোয়ালপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্র সুশীল সরকার বাড়ী থেকে পালিয়ে যুদ্ধে যোগ দিয়ে দেশের জন্য জীবন দিয়েছে।
১৫ বছরের কিশোর আব্দুল আজিজ মারা যাওয়ার খবরটা তার মা-বাবাকে না দিতে পারার যন্ত্রণা এখনও বয়ে বেড়াচ্ছি। আর ২২ বছরের যুবক সবে বিয়ে করে স্ত্রীর গর্ভে সন্তান রেখে স্বাধীনতার জন্য যুদ্ধে গিয়ে পাকবাহিনীর বুলেটে নিহত আবু বক্কর পরিবারকে বলতে পারিনি সে শহীদ হয়েছে। অবশ্যই পরবর্তীতে সবই যেনে যায় তিনটি পরিবার। দেশ স্বাধীনের পরে সবাই আনন্দে উদ্বেলিত হয়ে ঘরে ফিরলেও আবু বক্করের স্ত্রী স্বামীর অপেক্ষার প্রহর গুনতে গুনতে এক সময় পাথর হয়ে যায়। এরই মধ্যে বাবার মুখ না দেখেই জন্ম নেয় শহীদ আবু বক্করের কন্যা। বর্তমানে কলারোয়ার একটি গ্রামে শহীদ আবু বক্করের কন্যার বিয়ে হয়েছে। স্ত্রী অন্যাত্র বিয়ে করে ঘর সংসার করছে।
গেরিলা কামন্ডার এভাবে ৭১ এর সেই উত্তাল অগ্নিঝরা দিনের কথা বলতে গিয়ে জানান, তালার মাগুরা যুদ্ধে শহীদদের স্মরণে সেখানে এখনও স্মৃতিস্তম্ভ গড়ে উঠেনি।
উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে দায়সারা গোছের দিনটি স্মরণ করা হয়। মাগুরা যুদ্ধে গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকার ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন আজও আবু বক্কর, আব্দুল আজিজ ও সুশীল সরকারের পরিবার শহীদ পরিবার হিসেবে স্বীকৃতি পায়নি। স্বাধীনতার এত বছর পরও কেউ খোঁজ নেয়নি অকুতোভয়ী এই তিন বীর যোদ্ধার পরিবারের।
গেরিলা কমান্ডার সুভাষ সরকার বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণের পর যুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েন। ভারতের তকিপুরে দুই মাস গেরিলা ট্রেনিং নিয়ে ১২জন মুক্তিযোদ্ধাকে নিয়ে তালা অঞ্চলে পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেন। ভারী ম্যাশিনগান এসএমজি চালাতে তার বুক কাপেনি। সুভাষ সরকার বলেন, মুক্তিযুদ্ধে মুড়াগাছার সুজায়েত মাষ্টার, কানাইদিয়া কৃষ্ণকাটির মোড়ল আব্দুল সালাম মাগুরার শেখ ছামছুর রহমান, বারাত গ্রামের সোবহান মাষ্টার, এবং স, ম আলাউদ্দিনের নেতৃত্বে তালা কপিলমুনি অঞ্চলে পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে শত্রুমুক্ত করেছেন।
স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর যুদ্ধাপরাধীদের বিচার এবং বিচারে শীর্ষ কয়েক যুদ্ধাপরাধীর ফাঁসির রায় দেখতে পেয়ে সুভাষ সরকারের বুকের পাথর যেন সরেগেছে। মাগুরা যুদ্ধে নিহত আবু বক্কর, আব্দুল আজিজ ও সুশীল সরকারে আত্মাযেন শান্তি পেয়েছে বললেন সুভাষ সরকার। তার আশা স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কন্যা শেখ হাসিনাকে রাষ্ট্রক্ষমতায় রাখতে দেশের সকল মুক্তিকামী মানুষকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার দাবি জানান।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে