প্রকাশ : ২৮ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০১:৪৫:২৩
দেশ স্বাধীনের সনদ পেলেও মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাননি আব্দুল হামিদ
বাংলাদেশ বাণী, গাইবান্ধ জেলা প্রতিনিধি : ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দে টগবগে একজন যুবক ছিলেন গাইবান্ধার আব্দুল হামিদ। সেই সময় দেশটা ছিল উত্তাল, বাংলাকে নিজের রুপ ফিরিয়ে দেওয়ার নেশায় নিজের রক্তের বিনিময় হলেও মুক্তিযোদ্ধে অংশগ্রহণ করে ছিলেন আব্দুল হামিদ। পাকিস্থানীদের শোষণ আর অত্যাচারের বিরুদ্ধে রুখে দাড়িয়েছিলেন এদেশের আপাময় জনগণ। ঠিক তখনেই আব্দুল হামিদ বাড়ীতে বসে না থেকে দেশকে স্বাধীন করার জন্য নেমে পড়েন মহান মুক্তিযুদ্ধে।
ফলে দেশ স্বাধীন হয়েছে, জনগণ পেয়েছে স্বাধীনতার সুখ। কিন্তু আব্দুল হামিদ দেশ স্বাধীনতার সংগ্রামের সনদ প্রাপ্ত হলেও আজ পর্যন্ত তিনি পাননি মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি। আব্দুল হামিদ জীবন বাজি রেখে ১৯৭১-এ দেশ স্বাধীন করলেও জীবন যুদ্ধে তিনি আজ পরাজিত এক সৈনিক। বর্তমানে তিনি দু’নয়নের দৃষ্টি শক্তি হারিয়ে অন্ধত্ব বরণ করে পরিবার পরিজন নিয়ে মানবেতন জীবন যাপন করছেন। দেশ স্বাধীনের ৪৫ বছর পেরিয়ে গেলেও আব্দুল হামিদ কোন সরকারী সুযোগ সবিধা কিংবা মুক্তিযোদ্ধার স্বীকৃতি পাননি।
গাইবান্ধা জেলার সাদুল্যাপুর উপজেলার বনগ্রাম ইউনিয়নের জয়েনপুর গ্রামের মৃত্যু মুনছুর আলীর পুত্র আব্দুল হামিদ। তার বয়স প্রায় ৬৭ বছর। আব্দুল হামিদ জানান ১৯৬৯ সালে মুজিববাদ ছাত্রলীগের সাদুল্যাপুর থানার সভাপতির দায়িত্ব নিয়ে ঢাকায় রেসকোর্স ময়দানে সম্মেলনে যোগদেন। সম্মেলন শেষে নিজ জেলা গাইবান্ধার বিভিন্ন আন্দোলনে অংশগ্রহন করে সক্রিয় ভুমিকা পালন করেন । তিনি বলেন ছাত্র আন্দোলন অব্যাহত রেখে ১৯৭১ সালে জাতির পিতা শেখ মজিবুর রহমানের আহবানে দেশ স্বাধীনের জন্য মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়েন।
১১নং সেক্টরে সুবেদার আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে তৎকালিন জেলা ছাত্রলীগের নেতা নাজমুল আরেফিন তারেকসহ  অন্যান্যদের সাথে তিনি পীরগঞ্জ উপজেলার মাদারগঞ্জ এলাকায় সম্মুখ যুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। এরপরে পাকিস্থানী বাহিনী পীরগঞ্জের আংড়ার ব্রীজে মুক্তিযোদ্ধাদের আক্রমন করলে তিনি ও তার সহযোগী আবেদ আলীকে সাথে নিয়ে ওই যুদ্ধে ঝাঁপিযে পড়ে তাদের প্রতিহত করেন। এ কারণে তিনি তৎকালিন স্বরাষ্ট সচিব তসলিম আহম্মেদ ও আঞ্চলিক অধিনায়ক মনিরুল ইসলামের স্বাক্ষরিত একটি স্বাধীনতা সংগ্রামের সনদ প্রাপ্ত হন।
যার নং-২০২৩১। এখন পর্যন্ত  সরকারী কোন সুযোগ-সুবিধা না পাওয়ায় স্ত্রী ছালেহা বেগমসহ ৪ ছেলে ও ৪ মেয়েকে নিয়ে বর্তমানে তিনি মানবেতর জীবন যাপন করছেন। সরকারী সুবিধা পেতে একাধিকবার সংশ্লিষ্ট দপ্তরে তিনি আবেদন করেও এখন পর্যন্ত কোন ভাতা কিংবা সুযোগ-সুবিধা পাননি। জীবন চলার পথে তিনি সাদুল্যাপুর সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে দলিল লেখক হিসেবে কাজ করে সংসার চালিয়ে আসলেও ২০১৩ সালের ডিসেম্বর থেকে দু’নয়নের দৃষ্টি শক্তি হারিয়ে অন্ধত্ব বরণ করেন। অর্থাভাবে উন্নত চিকিৎসা সেবা নিতে না পারায় অবশেষে চোখের দৃষ্টি শক্তি হারিয়ে ফেলে ঘরের কোনে বসে দিন অতিবাহিত করছেন। দীর্ঘ সংগ্রামের মাধ্যমে দেশ স্বাধীন করে শুধুই পেয়েছেন একটি সার্টিফিকেট। এটাই তার জীবনের শুধু স্মৃতি হয়ে আছে !
সাদুল্যাপুর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড মেছের আলী সরকার বলেন আব্দুল হামিদ মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেছে এ বিষয়ে আমার জানা নেই। তবে স্থানীয় বীরমুক্তিযোদ্ধো আব্দুল জলিল আজমী জানান আব্দুল হামিদ স্বাধীনতা সংগ্রামে অংশগ্রহণ করেছিলেন। সাদুল্যাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আহসান হাবিব বলেন আব্দুল হামিদের বিষয়টি যাচাই-বাচাই করে দেখা হবে।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে