প্রকাশ : ০১ ডিসেম্বর, ২০১৬ ০১:২৩:২৬
দ্বীনের মহব্বতে এসেছি ছারছীনায় : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
বাংলাদেশ বাণী, ছারছীনা থেকে মো: আবদুর রহমান : আমীরে হিযবুল্লাহ, মুজাদ্দিদে যামান ছারছীনা শরীফের পীর ছাহেব কেবলা আলহাজ্ব হযরত মাওলানা শাহ্ মোহাম্মদ মোহেব্বুল্লাহ (মা.জি.আ) বলেছেন-নামাজ শ্রেষ্ঠ ইবাদত। কিয়ামতের মাঠে সর্বপ্রথম আল্লাহ নামাজের হিসাব নিবেন। তাই নামাজ কায়েমের ব্যাপারে সকলকে যতœবান হতে হবে। আর নামাজ কবুলের জন্য বিশুদ্ধ কোরআন তেলাওয়াত একান্ত প্রয়োজন। পাশাপাশি নিয়মিত আল্লাহর জিকির করা এবং প্রিয় নবী (স:) এর শানে দরূদ পাঠ করার দ্বারা নামাজের মধ্যে একাগ্রতা বেশি পয়দা হয়।
পীর ছাহেব বলেন, ইলমে মারেফাতের চর্চা করব শরীয়তের মধ্যে থেকে। শরীয়ত বিরোধী কর্মকান্ড যে দরবারে হয়, যারা নামাজ রোজার ধার ধারেনা, সুন্নতের আমল করেনা তারা কখনো হক্কানী হতে পারেনা। ছারছীনা দরবার দলীয় রাজনীতিমুক্ত একটি হক দরবার। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকেই কোরআন-সুন্নাহ মোতাবেক এ দরবার পরিচালিত হচ্ছে। বেদায়াতী, বেয়াদবী ও ভন্ডামীর স্থান এ দরবারে নেই।
পীর ছাহেব কেবলা মাহফিলে আগত লাখো লাখো পীর-ভাই, মুহিব্বীন ও ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন-আমাদের ভারত বর্ষে কোন নবীর আগমণ ঘটেনি। বণিক ও মুবাল্লিগ বেশে কতিপয় সাহাবায়ে কেরাম এ দেশে এসেছেন। তবে উল্লেখ যোগ্য হারে যারা এসেছেন তারা হচ্ছেন নায়েবে নবী তথা আউলিয়ায়ে কেরাম। এ দেশের মুসলিম শাসন আউলিয়ায়ে কেরামের আগমনের পথ সুগম করেছে মাত্র। এদেশের কোন বিধর্মীকে জোর পূর্বক ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত করা হয়েছে মর্মে ইতিহাসে কোন প্রমাণ নেই। বরং আউলিয়ায়ে কেরামের চরিত্র-মাদধুর্য এবং তাছাররুফের বদৌলতে সাগর পাড়ের এ বঙ্গদেশটি মুসলমান সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে। আমরা তাদের উত্তরসূরী, এ কথাটি আমাদের মনে রাখতে হবে। তবে শয়তান বসে নেই, সে নিত্য নতুন সুরাতে নানা বেশে মানুষের দ্বারে হাযির হয় তার গোমরাহীর পসরা সাজিয়ে। বে এলেম, মূর্খ, হাকীকতে দীন সম্পর্কে অজ্ঞ লোকদের মুখেও এটা কিতাবে নেই, ওটা হাদীসে নেই, এটা বেদআত, ওটা সুন্নাতের খেলাফ, এটা যঈফ অথবা জাল হাদীস ইত্যাদি বক্তব্য বেশ শোনা যাচ্ছে।
আমরা হানাফী মাযহাবের অনুসারী। হানাফী মাযহাব যে হাদীসের নির্যাস থেকে উৎসারিত তা সহীহ হাদীস দ্বারা আল্লামা ইমাম ত্বহাবী (রহ:) প্রমাণ করে গেছেন। ওলামায়ে কেরামের ইজমা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে একথার উপরে যে, কেবল মাত্র চার মাযহাবের অনুসারীগণই আহলে সুন্নাত ওয়াল জামায়াতের অন্তর্ভুক্ত। এবং কেবল মাত্র তারাই নাযী বা পরিত্রাণ প্রাপ্ত দল। যাদের শানে প্রিয় নবী (সা:) এরশাদ করেছেন, যে মত ও পথের উপর আমি ও আমার সাহাবাগণ আছে। কিন্তু বর্তমানে বিদেশী মদদে আমাদের চারপাশে একদল লোক ইসলামের নামে উদ্ভট বক্তব্য দিয়ে সাধারণ মানুষকে বিভ্রান্ত করছে। এদেও থেকে আমাদের বেঁচে থাকতে হবে।
পীর ছাহেব কেবলা মায়ানমারের মুসলমানদের উপর নির্মম নির্যাতনের কথা উল্লেখ করে এ ব্যাপারে সকলকে সোচ্চার হওয়ার এবং বিশেষ করে সরকারকে এ ব্যাপারে জোরালো ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।      
বুধবার ছারছীনা দরবার শরীফের তিন দিনব্যাপী ১২৬ তম ইছালে ছওয়াব মাহফিল ও বাংলাদেশ জমইয়াতে হিযবুল্লাহ সম্মেলনের শেষদিনে আখেরী মোনাজাতের পূর্বে গুরুত্বপূর্ণ নসীহত করতে গিয়ে পীর ছাহেব কেবলা একথা বলেন।
মাহফিলে বিশেষ মেহমান হিসেবে উপস্থিত ছিলেন- বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী জনাব আসাদুজ্জামান খান কামাল (এমপি), আমিন মোহাম্মদ গ্রুপের চেয়ারম্যান আলহাজ্ব এম.এম এনামুল হক, বানারীপাড়া-২ আসনের সংসদ সদস্য এড. তালুকদার মো: ইউনুস, পিরোজপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব এ.কে.এম.এ আউয়াল, বরিশাল বিভাগীয় কমিশনার মো: গাউস, ডিআইজি শেখ মারুফ হাসান সহ সরকারের বিভিন্ন স্তরের এবং বাংলাদেশ জমইয়তে হিযবুল্লাহর নের্তৃবৃন্দ।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন- ছারছীনা দরবারে দ্বীনের জন্য, নিজের শান্তির জন্য ঢল নামে। এখানে যারা আসে তারা নিজের ঈমান ও আমলকে মজবুত করে আল্লাহওয়ালা হওয়ার জন্যই আসে। আমি মুসলমান। আমি দ্বীন তথা ধর্মকে ভালোবাসি। আর তাই দ্বীনের মহব্বতেই এ হক্কানী দরবারে আমার ছুটে আসা।
মাহফিলে কোরআন ও হাদীসের গুরুত্বপূর্ণ বিষয়াবলীর উপর আলোচনা করেন- বাংলাদেশ জমইয়তে হিযবুল্লাহর সিনিয়র নায়েবে আমীর ও পীর ছাহেব কেবলার বড় ছাহেবজাদা আলহাজ্ব শাহ আবু নছর নেছারুদ্দিন আহমদ হুসাইন, মরহুম হযরত পীর ছাহেব কেবলার সফরসঙ্গি আলহাজ্ব মাওলানা আবু জাফর মোঃ শামসুদ্দোহা, চৈতা দরবারের পীর ছাহেব আলহাজ্ব মাওলানা মোঃ নূর খান, দারুন্নাজাত সিদ্দিকীয়া কামিল মাদরাসার মুহাদ্দিস মাওলানা ওসমান গণি ছালেহী, সহ অন্যান্য ওলামায়ে কেরাম।
মাহফিলে কোরআন তেলাওয়াত, জিকির-আজকার, মীলাদ-কিয়াম ও তওবা-ইস্তেগফার করে লাখো লাখো মুরীদানদের নিয়ে দেশ-জাতি ও মুসলিম উম্মাহর সার্বিক কল্যান ও মায়ানমারের মুসলমানদেও সুখ-শান্তি ও আল্লাহর রহমত কামনা করে আমীওে হিযবুল্লাহ হযরত পীর ছাহেব কেবলা আখেরী মুনাজাত পরিচালনা করেন।
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে