প্রকাশ : ১৬ নভেম্বর, ২০১৮ ০৪:৩৭:৫০
প্রসঙ্গ ভাবনা : ইসলামের দৃষ্টিতে ভোট ও নেতা নির্বাচন
ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর : ভোট হলো সমর্থন করা, মতামত দেওয়া, বাছাই করা ইত্যাদি । পারিভাষিক অর্থে ভোট বা নির্বাচন হলো সিদ্ধান্ত  গ্রহণের এমন একটি আনুষ্ঠানিক প্রক্রিয়া, যার মাধ্যমে জনগণ তার মতামত দিয়ে  প্রশাসনিক কাজের জন্য, দেশ পরিচালনার জন্য একজন প্রতিনিধিকে বেছে নেয়। এক কথায়  নির্বাচন করার মানে হলো "বাছাই করা অথবা একটা সিদ্ধান্ত নেওয়া"।  সপ্তদশ শতক থেকে আধুনিক প্রতিনিধিত্বমূলক গণতন্ত্রে নির্বাচন একটি আবশ্যিক প্রক্রিয়া হয়ে দাঁড়িয়েছে। নির্বাচনের মাধ্যমে রাষ্ট্রের আইনসভার পদগুলি পূরণ করা হয়, কখনও আবার কার্যনির্বাহী ও বিচারব্যবস্থা ছাড়াও আঞ্চলিক এবং স্থানীয় সরকারে প্রতিনিধি বাছাইও নির্বাচনের মাধ্যমে করা হয়। আধুনিক গণতন্ত্রে প্রতিনিধি বাছাইয়ের ক্ষেত্রে  নির্বাচনকে  সার্বজনীন হিসেবে  ব্যবহার করা হচ্ছে।  

দ্য স্পিরিট অব লজ’ বইয়ের দ্বিতীয় খন্ডের দ্বিতীয় অধ্যায়ে মন্টেসকিউই বলেছেন যে, প্রজাতন্ত্র অথবা গণতন্ত্র যে কোনো ক্ষেত্রের ভোটেই হয় একটি দেশের চালিকা শক্তির মূল নিয়ামক। নিজেদের দেশে কোন ধরনের সরকার আসবে তা বাছাই করার মূল ‘মাস্টার’ হিসেবে কাজ করে ভোটাররাই, ভোট দিয়ে একটি সার্বভৌম  শাসক ব্যবস্থাকে চালু রাখে জনসাধারণই।

ইসলামের দৃষ্টিতে ভোট :
প্রতিটি মানুষ মহান আল্লাহতায়ালার পক্ষ থেকে কোনো না কোনো বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত। প্রত্যেকেরই একে অপরের প্রতি কিছু দায়িত্ব-কর্তব্য ও দায়বদ্ধতা রয়েছে। এ দায়বদ্ধতার বিষয়ে কিয়ামতের দিন প্রত্যেককেই জবাবদিহিতার সম্মুখীন হতে হবে। গণতান্ত্রিক শাসন ব্যবস্থায় ভোট একটি আমানত । এই আমানতের মাধ্যমে গনতান্ত্রিকভাবে সমাজে একজন দায়িত্বশীল বা নেতা নির্বাচিত হয় যিনি একটি সমাজ বা পুরো রাষ্ট্র পরিচালনা করেন। এমতাবস্থায় রাষ্ট্রনায়ক নির্বাচন করার এ গুরুত্বপূর্ণ স্থানে  আমানতের খেয়ানত করা, ভঙ্গ করা বা ভূল জায়গায় তা প্রদান করা কবিরা গুনাহ বলে সাব্যাস্ত হবে।।

ইসলামের দৃষ্টিতে ভোট হচ্ছে চারটি বিষয়ের সমষ্টি। ১.সাক্ষ্য প্রদান ২. সুপারিশ ৩. প্রতিনিধিত্ব বাছাই ও ৪. আমানত।
কুরআন-সুন্নাহ সম্পর্কে ওয়াকিফহাল এমন  সকলেরই জানা রয়েছে যে, শরীয়তে উপরোক্ত চারটি বিষয়ের  গুরুত্ব অপরিসীম। যেমন :-

১.সাক্ষ্য প্রদান :
সাক্ষ্য প্রদান মানে, একজন ভোটার যখন কোন ব্যক্তিতে নির্বাচিত করার জন্য মতামত দেয় তখন এমনিতেই একটি সাক্ষ্য হয়ে যায় যে ,তিনি যাকে সমর্থন দিচ্ছেন বা ভোট দিচ্ছেন তিনি একজন যোগ্য ও সৎ  ব্যাক্তি। তিনি দায়িত্বপ্রাপ্ত হলে আমার দৃষ্টিতে সে কোন খারাপ কাজের সাথে নিজেকে যুক্ত করবে না কিংবা সে নিজেও খারাপ চরিত্রের  নয়। এমতাবস্থায় ভোটার যদি কোন খারাপ প্রকৃতির লোককে ভোট দেয় তাহলে ধরে নিতে হবে ভোটার জেনে বুঝে একজন খারাপ প্রকৃতির লোককে ভাল চরিত্রের সাক্ষ্য প্রদান করলেন যা ইসলামি শরীয়তে হারাম। মোটকথা একজন ভোটার কোনো ব্যক্তিকে রাষ্ট্রীয় নীতিমালা তৈরির এবং রাষ্ট্্র পরিচালনার জন্য প্রতিনিধিত্বের সনদ দেওয়াার মানে হচ্ছে প্রতিনিধিত্ব দানকারী বা ভোটার ঐ ব্যক্তির ভবিষ্যত সকল কার্যকলাপের দায়িত্ব নিজ কাঁধে তুলে নিলেন।

এ সম্পর্কে আল্লাহ বলেন-
‘হে ঈমানদারগণ, তোমরা ন্যায়ের ওপর প্রতিষ্ঠিত থাক; আল্লাহর ওয়াস্তে ন্যায়সঙ্গত সাক্ষ্যদান কর, তাতে তোমাদের নিজের বা পিতা-মাতার অথবা নিকটবর্তী আত্মীয়-স্বজনের যদি ক্ষতি হয় তবুও। কেউ যদি ধনী কিংবা দরিদ্র হয়, তবে আল্লাহ তাদের শুভাকাঙ্খী তোমাদের চাইতে বেশি। অতএব, তোমরা বিচার করতে গিয়ে মনের কামনা-বাসনার অনুসরণ করো না। আর যদি তোমরা ঘুরিয়ে-পেঁচিয়ে কথা বল কিংবা পাশ কাটিয়ে যাও, তবে আল্লাহ তোমাদের যাবতীয় কাজ কর্ম সম্পর্কেই অবগত।’ (সূরা নিসা-১৩৫)

‘হে মুমিনগণ! তোমরা আল্লাহর উদ্দেশে ন্যায় সাক্ষ্যদানের ব্যাপারে অবিচল থাকবে এবং কোন সম্প্রদায়ের শত্রুতার কারণে কখনও ন্যায়বিচার পরিত্যাগ করো না। সুবিচার কর এটাই খোদাভীতির অধিক নিকটবর্তী। আল্লাহকে ভয় কর। তোমরা যা কর, নিশ্চয় আল্লাহ সে বিষয়ে খুব জ্ঞাত।’ (সূরা: মায়েদা, আয়াতে: ৮)

১.সুপারিশ :
আর যদি ভোটকে কারো জন্য সুপারিশ হিসেবে ধরি তবুও এর গুরুত্ব অত্যধিক। আপনি সমর্থন দিয়ে কিংবা ভোট দিয়ে যাকে রাষ্ট্রের আইন প্রণেতা করার সুপারিশ করছেন সে আসলে কতটুকু যোগ্য আপনাকে অবশ্যই তা ভাবতে হবে। আপনার সুপারিশ পেয়ে সে যদি রাষ্ট্র বিরোধী, ইসলাম বিরোধী, নীতি নৈতিকতা বিবর্জিত আইন প্রনয়ণে সহয়তা করে তাহলে কুরআনের দৃষ্টিতে তার অপরাধের সমান অপরাধী হবেন আপনিও । যেমন কুরআনে  আল্লাহ বলেন ‘যে ভালো সুপারিশ করবে সে তার নেকীর ভাগী হবে। আর যে মন্দ সুপারিশ করবে সেও মন্দের হিস্যা পাবে।’ -সূরা নিসা, আয়াত ৮৫

২.প্রতিনিধিত্ব বাছাই :
ভোটের মাধ্যমে একজন ভোটার তার এলাকার কিংবা দেশের জন্য যোগ্য দায়িত্বশীল বা প্রতিনিধি নির্বাচিত করে থাকে। নির্বাচিত প্রতিনিধিই রাষ্ট্রের  গুরুত্বপূর্ণ সকল কর্মকান্ড পরিচালনা করে থাকেন। নির্বাচিত হবার পর ঐ প্রতিনিধির উপরই নির্ভর করে এলাকার শান্তি, শৃঙ্খলা ও স্থিতি। এক্ষেত্রে তিনি যদি সৎ ও যোগ্য প্রতিনিধি হোন তাহলে তার পরিচালনার নীতিমালাও  হবে সততার উপর ভিত্তি করে কিন্তু তিনি যদি অসৎ ও চরিত্রহীন  হোন তাহলে তার নেতেৃত্বেই গোটা সমাজে অশান্তির দাবানল দাও দাও জ্বলে উঠবে। তাই বলা হয়, একজন ভাল ও খারাপ প্রতিনিধি বাছায় করার মূল নিয়ামক শক্তি হলো একজন ভোটার। তার ভোটের বদৌলতেই রাষ্ট্রের প্রতিনিধি হয়ে আসতে পারে যোগ্য ও সৎ নেতৃত্ব আবার ঐ ভোটের কারনেই দায়িত্বে আসতে পারে অসৎ ও লম্পট নেতৃত্ব। এখানে কেমন প্রতিনিধি আসবে তা নির্ভর করবে ঐ ভোটারের ভোট বা মতামতের উপর। বিধায় একজন প্রতিনিধি নির্বাচিত হবার পর তার সকল কর্মকান্ড ঐ ভোটারের উপরই বর্তায়।

৩.আমানত :
ইসলামের দৃষ্টিতে ভোট হলো ব্যক্তির কাছে গচ্ছিত একটি  আমানত। সেই আমানতের হক হলো তার প্রাপককে যথাযথ স্থানে প্রদান করবে । সমাজ পরিচালনার জন্য একজন  প্রতিনিধি নিয়োগে ভোটাধিকার প্রয়োগ আল্লাহর পক্ষ থেকে মুসলমানদের কাছে আমানতস্বরূপ। সুতরাং শরী‘আতের দৃষ্টিতে ভোট দেওয়ার অর্থ হল, আমানত রাখা বস্তুটি যথাযথ প্রাপকের পৌঁছে দেওয়া। আর আমানতকৃত বস্তু তাঁর পাওনাদারের কাছে যথাযথভাবে হস্তান্তর করা একজন ভোটারের উপর ফরয। আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন-
“নিশ্চয়ই আল্লাহ তোমাদের নির্দেশ দিচ্ছেন যে, তোমরা আমানতসমূহ তার প্রাপকদের কাছে পৌঁছে দাও।” (সুরা : ৫৮)।
আমানতকৃত বস্তু তাঁর যথার্থ প্রাপকের কাছে না পৌঁছানো হল আমানতের খেয়ানত এবং তা হারাম। খেয়ানতের ব্যাপারে রাসুল (সা.) অত্যন্ত কঠোর সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন। হজরত আনাস (রা.) বলেন, এমন ঘটনা খুব কমই ঘটেছে যে রাসুল (সা.) কোনো খুতবা দিয়েছেন আর তাতে নিম্নের বাণী উচ্চারণ করেননি-
“যার মধ্যে আমানতদারি নেই তার মধ্যে ইমান নেই এবং যার মধ্যে প্রতিশ্রুতি রক্ষার তাগিদ নেই, তার ধর্ম নেই।” (বায়হাক্বী)। (চলবে..)

---------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
লেখক : ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর, খতিব, থুকড়া বায়তুস সালাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ, ডুমুরিয়া, খুলনা।


 
সর্বশেষ সংবাদ
  • সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় নারী ও শিশুসহ ৬৭ জন রোহিঙ্গা উদ্ধারআদায় করা হচ্ছে বাড়তি ভাড়া : বাস টিকিটের জন্য হাহাকার বাড়ছে সৌম্য-মোসাদ্দেকের বিধ্বংসী ব্যাটিং : ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০৫৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আজ মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিননিরপেক্ষভাবে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের প্রতি সিইসি’র নির্দেশ৬টি সংসদীয় আসনের সবকটি কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে : ইসি সচিবওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম জয়ের স্বাদ পেল টাইগাররাসংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে কোন আইনগত বাঁধা নেই : সিইসি ‘ডেইলি লিডারশিপ’-এ প্রতিবেদন-বিশ্বের সাদাসিধে জীবনযাপনকারী রাষ্ট্রপ্রধানদের ১জন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুইম্যাচ সিরিজে প্রথম দিনে মোমিনুলের সেঞ্চুরি : বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩১৫আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীকে সিইসি’র ১২ দফা নির্দেশনা যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালিতযথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপিত বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ নূর মোহাম্মদ শেখের স্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেসা’র ইন্তেকালওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বন্ধ্যাত্ব ঘোচানোর মিশনে নামছে টাইগাররা আজ পবিত্র ঈদ-ই মিলাদুন্নবী (সা.) : রাষ্টপতি ও প্রধানমন্ত্রী’র পৃথক বাণীবিদেশি টিভি চ্যানেলে দেশিপণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার অবিলম্বে বন্ধের নির্দেশ রাজধানীতে ট্রাফিক আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ট্রাফিক বিভাগের অভিযানআগামী বুধবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) : পক্ষকালব্যাপী অনুষ্ঠানমালা
  • সাগর পথে মালয়েশিয়া যাওয়ার সময় নারী ও শিশুসহ ৬৭ জন রোহিঙ্গা উদ্ধারআদায় করা হচ্ছে বাড়তি ভাড়া : বাস টিকিটের জন্য হাহাকার বাড়ছে সৌম্য-মোসাদ্দেকের বিধ্বংসী ব্যাটিং : ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন বাংলাদেশএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ৩০৫৬ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেছেন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আজ মনোনয়নপত্র দাখিলের শেষ দিননিরপেক্ষভাবে নির্বাচনী দায়িত্ব পালনে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের প্রতি সিইসি’র নির্দেশ৬টি সংসদীয় আসনের সবকটি কেন্দ্রে ইভিএম ব্যবহার করা হবে : ইসি সচিবওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট ক্রিকেটে প্রথম জয়ের স্বাদ পেল টাইগাররাসংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারে কোন আইনগত বাঁধা নেই : সিইসি ‘ডেইলি লিডারশিপ’-এ প্রতিবেদন-বিশ্বের সাদাসিধে জীবনযাপনকারী রাষ্ট্রপ্রধানদের ১জন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুইম্যাচ সিরিজে প্রথম দিনে মোমিনুলের সেঞ্চুরি : বাংলাদেশের সংগ্রহ ৩১৫আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনীকে সিইসি’র ১২ দফা নির্দেশনা যথাযথ মর্যাদা ও উৎসাহ-উদ্দীপনার মধ্য দিয়ে সশস্ত্র বাহিনী দিবস পালিতযথাযোগ্য ধর্মীয় মর্যাদায় পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) উদযাপিত বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ নূর মোহাম্মদ শেখের স্ত্রী বেগম ফজিলাতুন্নেসা’র ইন্তেকালওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে বন্ধ্যাত্ব ঘোচানোর মিশনে নামছে টাইগাররা আজ পবিত্র ঈদ-ই মিলাদুন্নবী (সা.) : রাষ্টপতি ও প্রধানমন্ত্রী’র পৃথক বাণীবিদেশি টিভি চ্যানেলে দেশিপণ্যের বিজ্ঞাপন প্রচার অবিলম্বে বন্ধের নির্দেশ রাজধানীতে ট্রাফিক আইন ভঙ্গকারীদের বিরুদ্ধে ট্রাফিক বিভাগের অভিযানআগামী বুধবার পবিত্র ঈদে মিলাদুন্নবী (সা.) : পক্ষকালব্যাপী অনুষ্ঠানমালা
উপরে