প্রকাশ : ০৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০১:৪১:০০
পাহাড়ে-জঙ্গলে কেটেছে এবার রোহিঙ্গাদের ঈদ
বাংলাদেশ বাণী, ফরিদুল মোস্তফা খান কক্সবাজার থেকে : ‘এক সময় সংসার চালাতে কঠোর পরিশ্রম করতে হতো। আর এখন প্রাণ বাঁচাতে পালিয়ে বেড়াতে হচ্ছে। আমাদের কি ঈদ বলতে কিছু আছে? স্বামী হারিয়ে পালিয়ে এসেছি। তিনদিন মুখে কোন দানা-পানি যায়নি। তবু স্বস্তি যে এদেশে আশ্রয় পেয়েছি’। কথা গুলো বলছিলেন কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার থাইংখালীর পাহাড়ে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গা আমিনা বেগম। শনিবার দুপুরে কথা হয় তার সঙ্গে। এসময় তার সঙ্গে ছিলেন মিয়ানমারের রাখাইন রাজ্য থেকে পালিয়ে আসা আরো কয়েক নারী।

আমিনা আরো জানান, মিয়ানমারের বলিবাজারে তার বাড়ি। স্বামী নুরুল আমিনকে সেদেশের সেনারা জবাই করেছে। এক মাত্র ছেলেকে নিয়ে তিনি জঙ্গলে পালিয়ে ছিলেন। দুই দিন পর শনিবার বাংলাদেশে ঢুকেছেন। তিনি বলেন, ‘শুনেছিলাম বিজিবি, কোস্ট গার্ড রোহিঙ্গা ঢুকতে দিচ্ছে না। খুবই চিন্তা ছিলাম। কিন্তু আসার পর কেউ বাধা দেয়নি। এখন সমস্যা খাওয়া আর থাকা।’ আমিনার মতো হাজার হাজার রোহিঙ্গার কাছে এই মুহূর্তে ঈদের কোন মানে নেই। প্রাণ নিয়ে নাফ নদ পেরিয়ে আসতে পারাটাই তাদের কাছে বড় স্বস্তি। হোয়াইক্যং ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নুর আহমদ আনোয়ারী ও উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান মোজাফ্ফর আহমদ জানান, প্রতিদিনই হাজার হাজার রোহিঙ্গা আসছে। শনিবারও উখিয়া-সীমান্ত দিয়ে ১০ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশ করে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, ঈদের দিন শনিবার নাফ নদের সীমান্ত দিয়ে দলে দলে রোহিঙ্গা আসছে। তাদের ঈদের দিনটা কাটছে বনে-জঙ্গলে। ঈদ নিয়ে এসব মানুষের কোন ভাবনা নেই। খুঁজছেন একটু আশ্রয়। উখিয়া টেংখালী পাহাড়ে আশ্রয় নেওয়া বৃদ্ধ করিম আলী জানান, নতুন করে আসা রোহিঙ্গারা অনেকে উখিয়ার কুতুপালং, বালুখালী, টেকনাফের লেদায় আশ্রয় নিয়েছে। কিন্তু তিনি ওখানে জায়গা না পেয়ে পরিবারের ৮ সদস্যকে নিয়ে পাহাড়ে আশ্রয় নিয়েছেন।

অচেনা একব্যক্তি তাদের ঝুঁপড়ি তৈরি করতে বাঁশ ও একটি বড় পলিথিন দিয়েছেন। তাকে তিনি চেনেন না। করিম আলী জানান, পরিবারের সবাই না খেয়ে আছেন তিন দিন। আয়েশা নামের এক রোহিঙ্গা নারীও বলেন একই ভাবে আশ্রয় নেওয়ার কথা। তিনি তিন দিন মিয়ামারের পাহাড়ে ছিলেন। বৃহস্পতিবার রাতে বাংলাদেশে ঢোকার পর অচেনা এক লোক তাকে কলা-বিস্কুট দিয়েছেন। এরপর আর কোন খাবার মেলেনি।

উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের সদস্য (মেম্বার) আলমগীল ফরহাদ বলেন, ‘পালংখালী পাহাড়ের ৫ কিলোমিটার এলাকায় লাখের মতো রোহিঙ্গা অবস্থান করছেন। এদের কোন নিয়ন্ত্রণ নেই। অনেকে গ্রামে গ্রামে আশ্রয় নিচ্ছে। এটা দেশের জন্য মঙ্গলকর হবে না।’ অনুপ্রবেশকারী রোহিঙ্গাদের দ্রুত একখানে করার দাবি জানান তিনি। অনুপ্রবেশকারী নুর বানু ও ইয়াছমিন আক্তার বলেন, ‘গত বছর ঈদে গরু কিনে কোরবানি দিয়েছি। আর এবার নিজের ঘরবাড়ি আত্মীয় স্বজন ফেলে পালাতে হচ্ছে। রোহিঙ্গা বলে আমাদের এ হাল।’ তারা জানান, মিয়ানমারের সেনারা রোহিঙ্গাদের গুলি ও জবাই করে হত্যা করছে। নিস্পাপ শিশুদেরও রেহাই দিচ্ছে না।

এদিকে লেদা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে আশ্রয়ের খোঁজে আসা দিলু মিয়া বলেন, ‘মরতে মরতে প্রাণে বেচেঁ এপারে এসেছি। অল্পের জন্য পরিবারের ৮ জন বেচেঁ গেলাম’। তিনি বলেন, ‘সোমবার শিলখালী গ্রামে আগুন দেয় সেনারা। লোকজনের চিৎকার শুনে পরিবার নিয়ে জঙ্গলে পালিয়ে যাই। এরপর জঙ্গলে হেলিকপ্টার দিয়ে আকাশ থেকে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন দেয়। সেখান থেকে পালিয়ে এপারে আসি।’

লেদা বস্তির রোহিঙ্গা নেতা আবদুল মতলব বলেন, ‘নতুন অনুপ্রবেশকারি রোহিঙ্গারা আশ্রয়েরে জন্য ঘোরাঘুরি করছে। অনেকে জায়গা না পেয়ে অন্যত্র চলে যাচ্ছে।’ টেকনাফ-২ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্ণেল এসএম আরিফুল ইসলাম বলেন, ‘রোহিঙ্গারা অনুপ্রবেশের চেষ্টা অব্যাহত রেখেছে। শনিবার ভোর থেকে রাত পর্যন্ত উপজেলার বিভিন্ন সীমান্ত দিয়ে অনুপ্রবেশকালে দেড় হাজার রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে। পরে তাদের মানবিক সহায়তা দিয়ে ফেরত পাঠানো হয়। অনুপ্রবেশ ঠেকাতে বিজিবি চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে বলে জানান তিনি।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • গাজীপুরে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে নির্বাচন কমিশনের ব্যাপক প্রস্তুতিকলম্বিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করলো এশিয়ার দল জাপানদলীয় মনোনয়ন নিয়ে নানামুখী আলোচনা ॥ বরিশালে সিটি’তে চার মেয়র প্রার্থীসহ ৪৭ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহআজিজ আহমেদকে নতুন সেনা প্রধান নিয়োগআনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্যদিয়ে রাজধানীসহ দেশজুড়ে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছেদু’বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার সাথে আইসল্যান্ডের ১-১ গোলে ড্রআজ খুশি'র ঈদ ❏ মুসলিম জাহানের সমৃদ্ধি কামণার অঙ্গীকারে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র পৃথক পৃথক বাণীপ্রধানমন্ত্রী গণভবনে আজ ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেনশেষ মুহূর্তের আত্মঘাতী গোলে বিশ্বকাপে মিসরকে হারালো উরুগুয়েআজ চাঁদ দেখা গেলে : শনিবার সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপননিজেদের মাঠে দাপুটে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করলো স্বাগতিক রাশিয়াঈদে অজ্ঞান ও মলম পার্টির দৌরাত্ম রোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর : আইজিপি ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা কাল আজ মহিমান্বিত পবিত্র লাইলাতুল কদরের রজনীআজ বাজারে আসছে নতুন ২ ও ৫ টাকা মূল্যমানের নোটনারী এশিয়া কাপ টি টোয়েন্টিতে ভারতকে হারিয়ে, বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করায়, প্রাণঢালা আন্তরিক অভিনন্দন।চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেতমালয়েশিয়াকে ৭০ রানে হারিয়ে এশিয়া কাপের স্বপ্নের ফাইনালে বাংলাদেশ : প্রতিপক্ষ ভারত আজ শুরু হচ্ছে দশম জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন
  • গাজীপুরে সুষ্ঠুভাবে নির্বাচন সম্পন্ন করতে নির্বাচন কমিশনের ব্যাপক প্রস্তুতিকলম্বিয়াকে হারিয়ে বিশ্বকাপে শুভ সূচনা করলো এশিয়ার দল জাপানদলীয় মনোনয়ন নিয়ে নানামুখী আলোচনা ॥ বরিশালে সিটি’তে চার মেয়র প্রার্থীসহ ৪৭ জনের মনোনয়নপত্র সংগ্রহআজিজ আহমেদকে নতুন সেনা প্রধান নিয়োগআনন্দ-উচ্ছ্বাসের মধ্যদিয়ে রাজধানীসহ দেশজুড়ে ঈদুল ফিতর উদযাপিত হচ্ছেদু’বারের চ্যাম্পিয়ন আর্জেন্টিনার সাথে আইসল্যান্ডের ১-১ গোলে ড্রআজ খুশি'র ঈদ ❏ মুসলিম জাহানের সমৃদ্ধি কামণার অঙ্গীকারে পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র পৃথক পৃথক বাণীপ্রধানমন্ত্রী গণভবনে আজ ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করবেনশেষ মুহূর্তের আত্মঘাতী গোলে বিশ্বকাপে মিসরকে হারালো উরুগুয়েআজ চাঁদ দেখা গেলে : শনিবার সারাদেশে পবিত্র ঈদুল ফিতর উদযাপননিজেদের মাঠে দাপুটে জয় দিয়ে বিশ্বকাপ শুরু করলো স্বাগতিক রাশিয়াঈদে অজ্ঞান ও মলম পার্টির দৌরাত্ম রোধে আইন-শৃঙ্খলা বাহিনী তৎপর : আইজিপি ঈদুল ফিতরের তারিখ নির্ধারণে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা কাল আজ মহিমান্বিত পবিত্র লাইলাতুল কদরের রজনীআজ বাজারে আসছে নতুন ২ ও ৫ টাকা মূল্যমানের নোটনারী এশিয়া কাপ টি টোয়েন্টিতে ভারতকে হারিয়ে, বাংলাদেশ চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করায়, প্রাণঢালা আন্তরিক অভিনন্দন।চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেতমালয়েশিয়াকে ৭০ রানে হারিয়ে এশিয়া কাপের স্বপ্নের ফাইনালে বাংলাদেশ : প্রতিপক্ষ ভারত আজ শুরু হচ্ছে দশম জাতীয় সংসদের বাজেট অধিবেশন
উপরে