প্রকাশ : ১৮ ডিসেম্বর, ২০১৭ ০২:৫০:০৩
মানবেতর : সুন্দরগঞ্জে চরাঞ্চলের কৃষকরা সংসার চালাচ্ছে খড় বিক্রি করে !
বাংলাদেশ বাণী, গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধি : গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ব্রক্ষ্মপুত্র ও তিস্তা নদীর চরাঞ্চলের অনেক কৃষক এখন কাঁশবনের খড় (আড়া) বিক্রি করে জীবিকা নির্বাহ করছে। অপরদিকে, স্থানীয় ভূমিদস্যুরা প্রকৃত জমি মালিকদের খড়ের খেত জবর দখল করে, খড় বিক্রি করছে বলে অভিযোগ উঠেছে। যার কারণে অনেক পরিবার তাদের জমির খড় বিক্রি করতে পারছেন না। উপজেলার তারাপুর, বেলকা, হরিপুর, চন্ডিপুর, শ্রীপুর ও কাপাসিয়া ইউনিয়নের উপর দিয়ে প্রবাহিত ব্রক্ষ্মপুত্র ও তিস্তা নদী এখন ধু-ধু বালুচরে পরিণত হয়েছে। ব্রক্ষ্মপুত্র ও তিস্তার বুকজুরে চাষাবাদ হচ্ছে নানা ধরণের ফসল।

পাশাপশি বিভিন্ন চরে চাষাবাদ ছাড়াই কাশবনে ভরে উঠেছে। বিশেষ করে হরিপুর, চন্ডিপুর, শ্রীপুর ও কাপাশিয়া ইউনিয়নের উজান বোচাগাড়ী, ভাটি বোচাগাড়ী, চরচরিতাবাড়ী, চর হরিপুর, চরবিরহিম, কেরানিরচর, ফকিরের চর কালাসোনারচর, রিয়াজ মিয়ার চর, উজান বড়াইল, ভাটি বড়াইল চরের কৃষকগণ কাঁশবনের খড় বিক্রি করে তাদের সংসার চালাচ্ছে।

কাপাসিয়া ইউনিয়নের ভাটি বড়াইর চরের আনছার আলী বলেন চরের মধ্যে গজিযে উঠা কাঁশবনের খড় বিক্রি করে এখন সংসার চালাচ্ছি। এক শ্রেণীর ভূমিদস্যূ কাঁশবন দখল করে নিচ্ছে। অনেকেই ভূমিসদ্যুদের কারনে নিজের জমির খড় বিক্রি করতে পারছে না। খড়ের পাইকারী বিক্রেতা ফয়জার রহমান বলের একশত কাঁশ খড়ের আটি বর্তমানে ৪ হাজার সাড়ে ৪ হাজার টাকা করে বিক্রি হচ্ছে।

কাপাসিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জালাল উদ্দিন বলেন, চরের মধ্যে জমির সীমানা নির্ধারণ করা সঠিক ব্যাপার। তাই একজনের জমির কাঁশবনের খড় আরেকজন কেটে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটছে।

 
সর্বশেষ সংবাদ
  • ঢাকা উত্তর সিটি'র উপ-নির্বাচনে আদালতের ৩ মাসের স্থগিতাদেশসুন্দরবনের ৩ কুখ্যাত জলদস্যুবাহিনীর প্রধানসহ ৩৮ জনের আত্মসমর্পণজাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ : ভবিষ্যতে বাংলাদেশে জাতীয় ঐক্যের দাবি প্রধানমন্ত্রী'ররাজধানী'র জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের সফল অভিযান : ৩ মৃতদেহ ও বিস্ফোরক উদ্ধারপদোন্নতি পেলেন বঙ্গবন্ধু'র খুনিদের গ্রেফতারকারী প্রথম পুলিশ অফিসারবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণীআম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বরাজধানীতে তীব্র গ্যাস সংকট : জনমনে ক্ষোভ জঙ্গি ও অন্যান্য অপরাধ দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে : আইজিপিঅর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি'র সভায় ১৩টি প্রকল্প অনুমোদনপুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই : প্রধানমন্ত্রীফারমার্স ব্যাংক কর্তৃক-জলবায়ু ট্রাস্ট তহবিলসহ আমানতকারীদের অর্থ ফেরত না দেয়ায় টিআইবি’র উদ্বেগসুন্দরগঞ্জের আসনটি ছিনিয়ে নিয়েছে আওয়ামী লীগ : এইচ. এম. এরশাদজঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশের সাফল্য দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে : প্রধানমন্ত্রীমাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ এ মাসেই শুরু হচ্ছেযশোরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্ত্রাসী পালসার বাবু নিহতদেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ উৎসব২০১৭'র বিদায় : নতুন বছর ২০১৮ কে বরণ করে নিল জাতিঅগ্রগতি ৫০ শতাংশের বেশি ॥ যথা সময়ে শেষ হবে পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ : কাদেররাবির স্নাতক প্রথম বর্ষের ক্লাস শুরু ২১ জানুয়ারি
  • ঢাকা উত্তর সিটি'র উপ-নির্বাচনে আদালতের ৩ মাসের স্থগিতাদেশসুন্দরবনের ৩ কুখ্যাত জলদস্যুবাহিনীর প্রধানসহ ৩৮ জনের আত্মসমর্পণজাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ : ভবিষ্যতে বাংলাদেশে জাতীয় ঐক্যের দাবি প্রধানমন্ত্রী'ররাজধানী'র জঙ্গি আস্তানায় র‌্যাবের সফল অভিযান : ৩ মৃতদেহ ও বিস্ফোরক উদ্ধারপদোন্নতি পেলেন বঙ্গবন্ধু'র খুনিদের গ্রেফতারকারী প্রথম পুলিশ অফিসারবিশ্ব ইজতেমা উপলক্ষে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর বাণীআম বয়ানের মধ্য দিয়ে শুরু হয়েছে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্বরাজধানীতে তীব্র গ্যাস সংকট : জনমনে ক্ষোভ জঙ্গি ও অন্যান্য অপরাধ দমনে পুলিশ বাহিনী সফল হয়েছে : আইজিপিঅর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি'র সভায় ১৩টি প্রকল্প অনুমোদনপুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই : প্রধানমন্ত্রীফারমার্স ব্যাংক কর্তৃক-জলবায়ু ট্রাস্ট তহবিলসহ আমানতকারীদের অর্থ ফেরত না দেয়ায় টিআইবি’র উদ্বেগসুন্দরগঞ্জের আসনটি ছিনিয়ে নিয়েছে আওয়ামী লীগ : এইচ. এম. এরশাদজঙ্গি ও সন্ত্রাসবাদ দমনে পুলিশের সাফল্য দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হয়েছে : প্রধানমন্ত্রীমাতারবাড়ি বিদ্যুৎকেন্দ্রের নির্মাণ কাজ এ মাসেই শুরু হচ্ছেযশোরে র‌্যাবের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সন্ত্রাসী পালসার বাবু নিহতদেশজুড়ে শিক্ষার্থীদের মাঝে নতুন বই বিতরণ উৎসব২০১৭'র বিদায় : নতুন বছর ২০১৮ কে বরণ করে নিল জাতিঅগ্রগতি ৫০ শতাংশের বেশি ॥ যথা সময়ে শেষ হবে পদ্মা সেতু নির্মাণ কাজ : কাদেররাবির স্নাতক প্রথম বর্ষের ক্লাস শুরু ২১ জানুয়ারি
উপরে