প্রকাশ : ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০০:২৯:০৫
২০১৮ সালের ডিসেম্বরে রেল দেখবে কক্সবাজারের মানুষ : রামুতে রেলমন্ত্রী
বাংলাদেশ বাণী, ডেস্ক রিপোর্ট : কক্সবাজার জেলার রামুতে রেল লাইনের জংশন পরিদর্শন পূর্বক পথসভায় রেলমন্ত্রী মুজিবুল হক এমপি বলেছেন, বর্তমান শেখ হাসিনা সরকার উন্নয়ন বান্ধব। তাই কক্সবাজার ও রামুর পর্যটন ব্যবসা এবং এলাকার উন্নয়নের অগ্রধিকার ভিত্তিতে সরকার রেল লাইন নির্মাণ করছে। শিগগিরই বৃহৎ এই প্রকল্পের  ঠিকাদারের প্রতিষ্ঠানের সাথে চুক্তি হবে। এরপর রেল লাইনের পুরোপুরি কাজ শুরু হয়ে যাবে। কক্সবাজারে নির্মাণ হবে বিশ্বমানের ঝিনুক আকৃতির প্রধান রেলস্টেশন। রামুতে হবে লাইনের বড় জংশন।

তিনি বলেন, বিএনপির আমলে এই রেলপথ ছিল সবচেয়ে বেশি অবহেলিত। কোনো নতুন রেললাইন নির্মাণ, নতুন ট্রেন সংযোজন করা হয়নি। কিন্তু জননেত্রী শেখ হাসিনার সরকার ক্ষমতায় আসার পর রেলপথের উন্নয়ন হয়েছে। আমাদের লক্ষ্য শুধু একটা রেলের মাধ্যমে জনগণকে সেবা  দৌগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া।
রেললাইন চালু হলে বিশ্ব পর্যটনের আরেকটি দুয়ার খুলে যাবে। সেইসাথে ঢাকার সাথে রামু ও কক্সবাজারের যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হবে। যোগাযোগের ধারণা পাল্টে দেবে রেলওয়ে। যাত্রী ও পণ্য পরিবহনে সুবিধা বাড়বে। পাল্টে যাবে কৃষি, পর্যটনসহ পুরো অর্থনীতির চিত্র।

মন্ত্রী আরো বলেন, রেলওয়ে একটি গণমুখী, নিরাপদ, সাশ্রয়ী ও আরামদায়ক গণপরিবহন প্রতিষ্ঠান হিসেবে যাত্রীদের কাঙ্খিত প্রত্যাশা পূরণ হবে। আগামী ৩মাসের মধ্যে দোহাজারি হতে কক্সবাজার-রামু হয়ে ঘুমধুম পর্যন্ত রেললাইন নির্মাণ কাজ শুরু হবে। যাদের জমি অধিগ্রহন করা হয়েছে তাদের ন্যায্য অর্থ শীঘ্রই হস্তান্তর করা হবে। ইতিমধ্যে অধিগ্রহনের জন্য বরাদ্ধকৃত অর্থ জেলা প্রশাসকের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

আগামী ২০১৮ সালের ডিসেম্বরে রেল দেখবে রামু কক্সবাজারের মানুষ।  চট্টগ্রামের দোহাজারী থেকে রামু কক্সবাজার ও ঘুমধুম পর্যন্ত রেল লাইন নির্মাণের কাজ দ্রুত  শুরু করা হবে। তিনি আরো বলেন সরকারের লক্ষ্য যাত্রী সেবা দেওয়া এই সরকারের অবশিষ্ট মেয়াদের মধ্যে রেলের দৃশ্যমান উন্নয়ন দেখা যাবে। প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পর্যায়ক্রমে সারাদেশকে রেল নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হবে। এজন্য আমরা নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

শনিবার (৯ সেপ্টেম্বর) সকালে রামু রেল লাইনের জংশন নির্মাণের স্থান পরিদর্শন শেষে বাইপাসস্থ এশিয়ার বৃহত্তম ফুটবল চত্ত্বরে আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন। এতে প্রধান আলোচক ছিলেন, রামু কক্সবাজারের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল।

রামু উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান রিয়াজ উল আলমের সভাপতিত্বে ও জেলা মৎস্যজীবিলীগের সহ সভাপতি আনছারুল হক ভুট্টোর সঞ্চালনায় পথসভায় বক্তব্য রাখেন, রেলওয়ে কর্মকর্তাদের মধ্যে ডিপুটি ডিরেক্টর আবুল কালাম, পূর্বাঞ্চলের মহাব্যবস্থাপক (জিএম) আবদুল হাই, প্রকল্প পরিচালক মফিজুর রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান আলী হোসেন কোম্পানি, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ শাহজাহান আলী, জেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি জাফর আলম চৌধুরী, মহিলা সম্পাদক মুসরাত জাহান মুন্নি।

গর্জনিয়া চেয়ারম্যান সৈয়দ নজরুল ইসলাম, কাউয়ারখোপ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহাম্মদ, ফতেখাঁরকুল চেয়ারম্যান ফরিদুল আলম, চাকমারকুল চেয়ারম্যান নুরুল ইসলাম সিকদার, রাজারকুল চেয়ারম্যান মুফিজুর রহমান, রশিদ নগর চেয়ারম্যান এম.ডি শাহ আলম, আওয়ামীলীগ নেতা মুক্তিযোদ্ধা মাষ্টার ফরিদ আহাম্মদ, রামু স্বেচ্ছাসেবলীগের সহ-সভাপতি এড. মোজাফ্ফর আহাম্মদ হেলালী, জেলা যুবলীগ নেতা পলক বড়ুয়া আপ্পু, উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নীতিশ বড়ুয়া।

এতে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য ও উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা নবীউল হক আরকান, সংবাদিক খালেদ হোসেন টাপু, আওয়ামীলীগ নেতা সৈয়দ মোহাম্মদ আব্দুর শুক্কুর, তাঁতীলীগের সভাপতি নুরুল আলম জিকু, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা আবু বক্কর ছিদ্দিক, সৈনিক লীগের সভাপতি মিজানুল হক রাজা, সাধারণ সম্পাদক রাশেদুল হক বাবু, সাংগঠানিক সম্পাদক মোঃ ফরহাদ, ফতেখাঁরকুল স্বেচ্ছা সেবক লীগের সভাপতি আজিজুল হক আজিজ, ছাত্রলীগ নেতা সাদ্দাম হোসেন ও নোমান, প্রজন্ম লীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন বাবলা, সাধারণ সম্পাদক রিদোয়ানুল বিন-শরীফ, বঙ্গবন্ধু ছাত্র পরিষদের সভাপতি ইয়াছিন, আবু বক্কর মেম্বার প্রমুখ। খবর : প্রেস বিজ্ঞপ্তি।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
উপরে