প্রকাশ : ০৭ জানুয়ারি, ২০১৬ ১০:৫৩:৪১
স্বর্নিভর হতে শুরু করেছে ঝিনুক সংগ্রহ করে মালা তৈরির শিল্পীরা
বাংলাদেশ বাণী টোয়েন্টিফোর ডটকম, জামাল জাহেদ, কক্সবাজার থেকে : প্রাকৃতিক নিয়মে জোয়ার ভাটায় সাগর হতে ভেসে আসে নানা জিনিস,সাগর বুকে কিছু ধারন করেনা, সমুদ্র তটে সব জমা করে সত্যিই সাগর যেনো রত্নাভারে সজ্জিত ধনবান। জোয়ারের পানিতে সাগর থেকে তীরে ভেসে আসে লাখ লাখ শামুক-ঝিনুক। এগুলো দিয়ে শিল্পীরা তৈরি করেন মালা, দুল, পুতুল, চুড়ি, ব্রেসলেট, ক্লিপ, ওয়ালমেট, ল্যাম্পশেড ও ঝাড়বাতি। এগুলো তৈরি করে সচ্ছল কক্সবাজার সদর, মহেশখালী, কুতুবদিয়া, সেন্টমার্টিনের হাজারো পরিবার।
শিল্পে জড়িতরা বলেন, জোয়ারের সময় শামুক-ঝিনুক গুলো উপকূলে ভেসে আসে। ভোরে এগুলো সংগ্রহ করা হয়। এ সবের মধ্যে রয়েছে কাঁটা শামুক, কড়ই, কালো প্রবাল, করতাল, আংটি শঙ্খ, ছাদক শঙ্খ, জিঙ্গর শামুক, ক্যাঙ্গারু, রাজমুকুট, বিচ্ছু, বাঘমাড়ি, মালপুরি, নীল শামুক ও লাল শামুক। সারা বছরই এগুলো দিয়ে নানা ধরনের পণ্য নির্মাণ করেন শিল্পীরা। তবে পর্যটন মৌসুমে (ডিসেম্বর থেকে মার্চ) তাদের ব্যস্ততা কয়েক গুণ বেড়ে যায়। কারণ তাদের পণ্যের প্রধান ক্রেতা পর্যটকরা। এছাড়া দেশের বিভিন্ন স্থানের পাশাপাশি এ পণ্য রফতানি হয় বিদেশেও।
পণ্য তৈরিতে ব্যস্ত কক্সবাজার শহরের নুনিয়াছড়া এলাকার মির মোহাম্মদ বলেন, টেকনাফ, সেন্টমার্টিন, মহেশখালী, কুতুবদিয়া ও কক্সবাজার উপকূলে ৫০ থেকে ৬০ প্রজাতির শামুক-ঝিনুক ভেসে আসে। এগুলো কুড়িয়ে এবং কিনে এনে এখানকার শিল্পীরা নানা ধরনের পণ্য তৈরি করেন। তিনি প্রায় ১৬ বছর ধরে মালা তৈরি করে আসছেন। এগুলো তৈরিতে শামুক-ঝিনুকের পাশাপাশি আঠা ও সুতা লাগে। ঝাড়বাতি তৈরিতে বাড়তি প্রয়োজন হয় বাতি। শামুকের রাজমুকুট ৬০০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি করা হয়, ঝাড়বাতি ৩০০ থেকে দুই হাজার ৫০০ টাকায়, ঝিনুকের ল্যাম্প ৫০০ থেকে ১ হাজার টাকায়, শামুকের ব্যাগ ৮০০ থেকে ২ হাজার ৫০০ টাকায় বিক্রি হয়। এছাড়া কানের দুল, বালা, আংটি, চুড়ি ৫০ থেকে ৫৫০ টাকা, ডিমল্যাম্প ২২০ টাকা ও ঝিনুকের মালার ডজন ১০০ টাকা। এছাড়া কালো কড়ি শামুক ও শঙ্খ শামুক দিয়ে তৈরি ঘর, ফুল, ক্লিপ, গহনা, চুড়ি, চুলের ক্লিপ, ওয়ালমেট, মালা, চামচ, ঘরের দরজা ও জানালার নেট ৫০ থেকে ৫০০ টাকার মধ্যে পাওয়া যায়।
নুনিয়াছড়ার রাজেস জানান, ১৬ ডিসেম্বর থেকে ২৬ মার্চ পর্যন্ত কক্সবাজারে পর্যটকের ভরপুর থাকে। এ সময় শামুক-ঝিনুকের তৈরি পণ্যের চাহিদা থাকে বেশি। পর্যটন মৌসুমে কয়েক শ’ লোক এসব শিল্প তৈরিতে ব্যস্ত থাকে। এসব পণ্য বিক্রি করে সংসারে সচ্ছলতা এনেছেন কক্সবাজারের কয়েক হাজার পরিবার। পর্যটনের প্রতিটি স্পটে হাতের তৈরি শামুক-ঝিনুকের পণ্যে বিক্রি হচ্ছে। আর পর্যটকদের এসব পণ্যের প্রতি নজর একটু বেশি।
সোবহান নামে এক শিল্পী বলেন, শামুক-ঝিনুকের ওপর খোদাই করে নাম লেখাতে ৬০ টাকা থেকে ২০০ টাকা খরচ পড়বে। ঝিনুকের মালার দাম পড়বে ৪০ টাকা থেকে ১৫০ টাকা। ঝিনুকের পুতুলের দাম পড়বে ১০০ টাকা থেকে ৪০০ টাকা পর্যন্ত।

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/নি.প্রতি/জামাল/কক্স/০৭/০১/২০১৬. ১০.৫৫ (এএম) ঘ.
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে