প্রকাশ : ২১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৯:৫১:৪৫
কুড়ুলগাছির কৃতি সন্তান ভাষা সৈনিক আবু কায়জার একজন মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক
বাংলাদেশ বাণী টোয়েন্টিফোর ডটকম, শামীম রেজা, চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রতিনিধি : ‘ওরা আমার মুখের ভাষা কাইড়া নিতে চায়’। ৫২’র মা মাটি ও মানুষের ভাষার আন্দোলনে জব্বার, রফিক, শফিকের বুকের রক্তে লেখা বাংলা বর্ণমালা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। এর নৈপথ্যে আরো নাম না জানা অজানা ভাষা সৈনিকের শ্রম মেধা ও আত্ম ত্যাগের মহিমা জড়িত আছে যা আজে অজানাই রয়ে গেছে। কালের বিবর্তনের ধারাবাহিকতায় সেই নাম না জানা দলের অনেকের নাম বাস্তবতার নিরিখে উঠে আসতে শুরু করেছে।
সুপ্রিয় পাঠক আপনাদের জ্ঞাতার্থে এমনি একজন ভাষা সৈনিকের সাথে আপনাদের পরিচয় করিয়ে দিতে চাই, যিনি কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন পরিষদের তিন তিন বারের নির্বাচিত চেয়ারম্যান এবং ৭১-এর মুক্তিযোদ্ধার অন্যতম সংগঠক মুর্তিমান শিক্ষাবিদ ভাষা সৈনিক আবু কায়জার।
যার জন্ম ১৯২৩ সালে। ভারত বর্ষের পশ্চিম বঙ্গের নদীয়া জেলার কোমরপুর গ্রামের একটি সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান। যার পিতার নাম প্রয়াত ফরজ আলী। ১৯৫০ সালে মাতৃভূমি ভারত ছেড়ে বাংলাদেশের যশোর জেলার অন্তর্ভুক্ত কোর্টচাদপুর গ্রামে এসে বসবাস শুরু করে। সে সময় চলছিল বাংলা ভাষার দাবীতে প্রাণান্ত আন্দোলন। অত্র অঞ্চলের প্রধান সংগঠক হিসাবে এলাকার খ্যাতনামা আওমী মুসলিম লীগের তরুন নেতাদেরকে একত্রিত করে ভাষা আন্দোলনকে উত্তোরত্তর বেগবান করতে আত্ম নিয়োগ করেন।
সে সময় তদানিন্তন কেন্দ্রিয় ভাষা আন্দোলনের সংগঠকদের সাথে যোগাযোগ করে এ আন্দোলনকে প্রতিষ্ঠা দেয়। কেন্দ্রের নির্দেশ অনুযায়ী যখন যা হওয়া উচিত সেই সমস্ত কর্মকাণ্ডে অগ্রণি ভূমিকা পালন করে এসেছে ভাষা সৈনিক আব কায়দার। শিক্ষা জীবন বলতে বলা যায় ১৯৫০ সালের দিকে নদীয়া জেলার কৃষ্ণনগর কলেজ থেকে বিএ পাশ করার করেন । সে সময় তিনি কুড়–লগাছি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষকতা করতেন এবং শিক্ষার মান উন্নয়নের সর্বস্তরের সুশিক্ষিত করার নিমিত্তে সুশীল সমাজ গড়ার অন্যতন কারিগর । পরবর্তীতে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় থেকে এমএ পাশ করেন।
১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধে জেলা অন্যতম নেতা হেবা ডাক্তারের নেতৃত্বে এলাকার অন্যান্ন বন্ধুদের সাথে একত্রিত হয়ে মুক্তিযুদ্ধের বিশেষ সংগঠক হিসাবে নিজেকে সোপর্দ করে। দেশ স্বাধীন হওয়ার পরে পর পর ৩ বার কুড়ুলগাছি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে এলাকার উন্নয়নে বিশেষ অবদান রেখেছেন। বর্তমানে তাঁর বয়স শতবর্ষ ছুঁই ছুঁই। বয়সের ভারে ন্যুজ্ব হয়ে পড়েছে। তার পরেও তিনি কলম ছাড়েননি। অসুস্থ্যতার মধ্যদিয়েও লেখা লেখির মধ্য দিয়ে তার জীবন অতিবাহিত হচ্ছে। এক প্রশ্নে জিজ্ঞাসা করা হয়, সে আপনি মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ছিলেন কিন্তু মুক্তিযোদ্ধাদের তালিকাভুক্ত হয়নি কেন? উত্তরে বলেন সে সময়ের সব নেতারাই তো আমাকে চেনে আমি কার কাছে গিয়ে তালিকা ভুক্ত হব। আর ভাষা সৈনিক হিসাবে পরিচিতি পাই নাই, তার অন্যতম কারন হল আজকের মিডিয়ার যুগ।
গণমাধ্যমের সুফল ভোগ করছে জনগন। ইতিপূর্বে এই ধরনের সুযোগ সুবিধা ছিল না। এক কথায় অনুকুল পরিবেশ না থাকার কারনে সেই আবস্থানে আমি অবস্থিত হতে পারি নাই। তার পরিবারের ইচ্ছা শেষ বয়সে এসে যদি তাকে মুক্তিযোদ্ধা ও ভাষা সৈনিকের তালিকায় অন্তর্ভূক্ত করা হয়, তাহলে তাহলে সে তার জীবদ্দশায় কিছু না হলেও একটু খানি তৃপ্তির ঢেঁকুর তুলতে পারবেন এমনটাই প্রত্যাশা সবার।

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/নি.প্রতি/শামীম/চুয়াডাঙ্গা/২১/০২/২০১৬. ০৭:৫০ (পিএম) ঘ.



 
সর্বশেষ সংবাদ
  • বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ভাষা শহীদদের স্মরণ করেছে সমগ্র জাতি“আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ”একুশের গ্রন্থমেলায় মেলায় প্রতিদিনই বই বিক্রি বাড়ছেআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাতায়াতের রুটম্যাপ প্রণয়নবিশ্ব ভালবাসা দিবসে অমর একুশের গ্রন্থমেলায় দর্শনার্থীদের ঢলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ নির্ধারিত সময়ের আগেই উন্নত দেশে পরিণত হবে : সরকারি দলরোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা নিরসনে ইইউ বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে টাঙ্গাইলের মধুপুরে চাঞ্চল্যকর রূপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসি’র আদেশআদালতের আদেশ অনুযায়ী কারাগারে ডিভিশন পেলেন খালেদা জিয়াভারতীয় গণমাধ্যমের মন্তব্য খালেদার দণ্ড হাসিনাকে শক্তিশালী করেছেএকুশের বই মেলায় প্রাণ এসেছে : বেড়েছে বিক্রি জনগণের জানমাল রক্ষায় যতদিন প্রয়োজন ততদিনই পুলিশি নিরাপত্তা থাকবে : আইজিপি‘রায়ের কপি হাতে পেলেই হাইকোর্টে আপিল করা হবে’তারেকসহ অন্যদের ১০ বছর কারাদন্ড-জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় রায় : সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ৫ বছর জেল ভীত হবেন না : আশ্বস্ত করছি ৮ ফেব্রুয়ারি কিছু হবে না : আইজিপি রাষ্ট্রপতি পদে এ্যাড. মো. আবদুল হামিদের পক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিলবিএডিসি ও পিআইবি আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভাবিএনপিসহ সবদল একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে : সিইসি'র আশাবাদরাষ্ট্রপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ চূড়ান্ত করেছেনরক্তঋনে কেনা, কারো দানে নয় ! ‘অমর একুশের সিঁড়ি বেয়ে আমার বাংলা মায়ের কোল’
  • বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় ভাষা শহীদদের স্মরণ করেছে সমগ্র জাতি“আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো মহান আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস আজ”একুশের গ্রন্থমেলায় মেলায় প্রতিদিনই বই বিক্রি বাড়ছেআন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে যাতায়াতের রুটম্যাপ প্রণয়নবিশ্ব ভালবাসা দিবসে অমর একুশের গ্রন্থমেলায় দর্শনার্থীদের ঢলশেখ হাসিনার নেতৃত্বে দেশ নির্ধারিত সময়ের আগেই উন্নত দেশে পরিণত হবে : সরকারি দলরোহিঙ্গা শরণার্থী সমস্যা নিরসনে ইইউ বাংলাদেশের প্রতি সমর্থন অব্যাহত রাখবে টাঙ্গাইলের মধুপুরে চাঞ্চল্যকর রূপা ধর্ষণ ও হত্যা মামলায় ৪ জনের ফাঁসি’র আদেশআদালতের আদেশ অনুযায়ী কারাগারে ডিভিশন পেলেন খালেদা জিয়াভারতীয় গণমাধ্যমের মন্তব্য খালেদার দণ্ড হাসিনাকে শক্তিশালী করেছেএকুশের বই মেলায় প্রাণ এসেছে : বেড়েছে বিক্রি জনগণের জানমাল রক্ষায় যতদিন প্রয়োজন ততদিনই পুলিশি নিরাপত্তা থাকবে : আইজিপি‘রায়ের কপি হাতে পেলেই হাইকোর্টে আপিল করা হবে’তারেকসহ অন্যদের ১০ বছর কারাদন্ড-জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় রায় : সাবেক প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়ার ৫ বছর জেল ভীত হবেন না : আশ্বস্ত করছি ৮ ফেব্রুয়ারি কিছু হবে না : আইজিপি রাষ্ট্রপতি পদে এ্যাড. মো. আবদুল হামিদের পক্ষে মনোনয়নপত্র দাখিলবিএডিসি ও পিআইবি আইনের খসড়া অনুমোদন করেছে মন্ত্রিসভাবিএনপিসহ সবদল একাদশ সংসদ নির্বাচনে অংশ নেবে : সিইসি'র আশাবাদরাষ্ট্রপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনকে প্রধান বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ চূড়ান্ত করেছেনরক্তঋনে কেনা, কারো দানে নয় ! ‘অমর একুশের সিঁড়ি বেয়ে আমার বাংলা মায়ের কোল’
উপরে