প্রকাশ : ০৫ এপ্রিল, ২০১৬ ১৯:৪১:১৬
নড়াইলে নি:সঙ্গ পাখি পেঁচা, লক্ষ্মী পেঁচা ধন-সম্পদের দেবী !
বাংলাদেশ বাণী টোয়েন্টিফোর ডটকম, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি : নি:সঙ্গতা ও নিশাচর জীবনের প্রতীক পেঁচা। দেশের মফস্বল অঞ্চলে এখনো রাতে হুতুম পেঁচা ডাকলে তাকে গৃহস্থের অকল্যাণ হিসেবে ধরা হয়। তবে লক্ষ্মী জন্য আলাদা আয়োজন। লক্ষ্মী ধন-সম্পদের দেবী। তাঁর বাহন লক্ষী পেঁচা। লক্ষ্মীপেঁচা কোথাও বসলে যেন উড়ে না যায় সে জন্য গৃহস্থের চেষ্টার শেষ থাকে না। তাদের বিশ্বাস লক্ষ্মী পেঁচা বসলে ধনে-জনে পূর্ণ হবে।  জানা যায়, সাহিত্যে পেঁচার অবস্থান খাটো করে দেখার উপায় নেই। হুতোম  পেঁচার নকশা লিখে বাংলা সাহিত্যে স্মরণীয় হয়ে আছেন কালীপ্রসন্ন সিংহ। এ ছাড়াও জীবনানন্দ দাশের কবিতায় পেঁচার ব্যবহার অসংখ্যবার বিভিন্ন ভাবে এসেছে। পেঁচা মূলত: Stringiness বর্গভুক্ত নিশাচর শিকারি পাখি। পেঁচার মাথা বড়, মুখম-ল চ্যাপ্টা, পুচ্ছ গোলাকার ও ডানা চওড়া। এদের ডানার পালক নি:শব্দে ওড়ার জন্য পরিবর্তিত। শিকার করা ও শিকার ধরে রাখার জন্য পেঁচা বাঁকানো ঠোঁটের সঙ্গে নখরও ব্যবহার করে। রাতের স্বল্প আলোয় পেঁচার চোখ অধিক আলোর সংস্থান করতে পারায় এই শিকারি পাখিরা অন্ধকারে ভালোই দেখে। অক্ষিগোলক সামনে অগ্রসর থাকায় পেঁচারা দ্বিনেত্র দৃষ্টির অধিকারী। এদের চোখ এতটাই আলো শোষণ করে যে অনেক পেঁচা দিনের উজ্জ্বল আলোয় অস্বস্থি অনুভব করে। তবে কিছু দিবাচর পেঁচাও আছে। ছোট চোখওয়ালা লক্ষ্মীপেঁচারা ব্যতিক্রমী শ্রবণশক্তিধর। শুধু শব্দ দ্বারা চালিত হয়। নিরেট অন্ধকারে এরা শিকার ধরতে পারে। শব্দ ধরার জন্য এদের ও অন্য কতকগুলি পেঁচার মুখমণ্ডলীয় বিশেষ গঠন রয়েছে। মাথার গড়ন রূপান্তরিত হওয়ার জন্যই পেঁচার দুই কানে সামান্য আগে পরে শব্দ পৌঁছায় এবং মাথা ঘোরালে তারা অনুচ্চ শব্দেরও উৎস সনাক্ত করতে পারে, যেমন ইঁদুরের শস্যদানা চিবানোর সঠিক আওয়াজ। সাধারণত পেঁচা নি:সঙ্গচর। ডাক শুনেই এদের সনাক্ত করা যায় বলে অনেক পেঁচার নামকরণ তাদের ডাক অনুসারেই হয়েছে। সব পেঁচাই ডাকে, বিশেষত প্রজননকালে।  পেঁচা গাছের কোঠর, পাহাড় ও পাথরের গর্তে, পুরনো দালান বা কাক ও অন্যান্য পাখির পরিত্যক্ত বাসায় থাকে। কতক পেঁচা বাসা বানায়। পেঁচার হুট হুট শব্দের ডাক ও রহস্যময় নিশাচর স্বভাব নানা কুসংস্কারের ভিত্তি। আর এভাবেই পেঁচা মানুষের অলৌকিক চিন্তার সঙ্গে যুক্ত হয়েছে। অধিকাংশ পেঁচা ছোট ছোট স্তন্যপায়ী ও পাখি শিকার করে খায়। এরা মাটিতে থাকা ছোট ইঁদুরজাতীয় স্তন্যপায়ী বা কীটপতঙ্গ ধরার সময় উঁচু জায়গা থেকে নিচে ছোঁ মারে। গাছের ডালপালা থেকেও পোকামাকড় এবং অন্যান্য শিকার ধরতে অভ্যস্ত। পৃথিবীর সর্বত্র পেঁচা ছড়িয়ে আছে। কুমেরু ও কতক মহাসাগরীয় দ্বীপ ছাড়া সব মহাদেশেই পেঁচা দেখা যায়। বাংলাদেশের ১৭ প্রজাতির পেঁচার মধ্যে ১৫টি স্থায়ী বাসিন্দা এবং দুটি পরিযায়ী। স্থায়ী বাসিন্দা পেঁচাদের মধ্যে রয়েছে লক্ষ্মীপেঁচা, খুড়–লে পেঁচা, হুতুম পেঁচা, ভুতুম পেঁচা, কুপোখ ও নিমপোখ।

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/নি.প্রতি/উজ্জ্বল/নড়াইল/০৫/০৪/২০১৬. ০৭:৩৫ (পিএম) ঘ.    
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে