প্রকাশ : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ০০:১৬:৪৯
একঝাঁক টগবগে যুবকের টাক বন্ধুত্বের সমিকরণ
বাংলাদেশ বাণী টোয়েন্টিফোর ডটকম, ডেস্ক রিপোর্ট : সংখ্যায় ওরা ২০ জন যুবক। তারুণ্যের উচ্ছ্বাস সবার চোখে-মুখে। তখন রাত অনুমান ১০টার কিছু বেশি সময়। রাজধানীর মিরপুর ট্যাকনিক্যাল মোড় সংলগ্ন এশিয়া সিনেমা হলের সামনে একটা মানব জটলা। জটলার মানুষ গুলো সবাই মাথামুড়ে টাক হয়েছে। এখন সবাই ছবি তোলায় ব্যস্ত।
কাছে গিয়ে জানা গেল, সদ্যটাক হওয়া মিছিলের যুবকগুলো সবাই বাংলা কলেজের বিভিন্ন বিভাগের ছাত্র। সিনিয়র-জুনিয়র মিলিয়ে ওদের দলের সংখ্যায় ২০ জন।
প্রায় সবার হাতে কোল্ড ড্রিংঙ্ক’স আর মিষ্টি। হৈ চৈ আর আনন্দ উল্লাসে মেতে উঠেছে সবাই। আলো-আঁধারীর রাতে যেন এক মহামিলন মেলা।
কারণ জানতে চাইলে, এক যুবক এগিয়ে এসে জানালো-আমরা সবাই বন্ধু। একসাথে টাক হয়ে (মাথা মুড়ে) মজা করছি। বলা যায়, সহমত পোষণ। এই সহমত যুব সমাজের মাঝে সকল ভাল কাজের মাঝে নিহিত হোক এই প্রত্যাশা দেশ ও সমাজের।
সময়ের বিবর্তনে বন্ধুত্বের এই অবিচ্ছেদ্য সম্পর্ক একদিন হয়তো ফিকে হয়ে আসবে! তবে কিছু সময়ের এই বর্ণিল উচ্ছ্বাস, হারাবে কি কখনো? হয়তো স্মৃতির এ্যালবামে ঘুরে ফিরবে সব সময়। উচ্চারিত হবে-“তোরা বন্ধু ছিলি, বন্ধু থাকিস, সারা জীবন”। ছবি ও প্রতিবেদন : কাজী সামাদ।  

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/২৪/০৯/২০১৬. ১২:২০ (এএম) ঘ.
সর্বশেষ সংবাদ
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
  • জার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া
উপরে