প্রকাশ : ১৫ জুলাই, ২০১৭ ০৯:১০:৩৫
পৃথিবীর ভয়ঙ্কর এক এয়ারপোর্ট !
বাংলাদেশ বাণী, ডেস্ক রিপোর্ট : পৃথিবীর সবচেয়ে ভয়ঙ্কর এয়ারপোর্টের কথা জানাবো আজ। আপনি হয়তো ভাবতে পারেন, বছরে হয়তো একবারও বাইরে যাওয়া হয় না, আদার ব্যাপারী হয়ে এয়ারপোর্টের খবর নিয়ে কাজ কি! কিন্তু না! এটা আমাদের প্রতিবেশী একটা দেশেরই এয়ারপোর্ট। আর আপনি যদি বেড়াতে ভালবাসেন, তাহলে খুবই সম্ভব যে আপনাকে সেই ভয়ঙ্কর জায়গাটিতে এক দুবার হলেও যেতে হবে। পারো এয়ারপোর্ট ভুটানের চারটার এয়ারপোর্টের মাঝে একটা।
এটা আসলে ভুটানের একমাত্র আন্তর্জাতিক এয়ারপোর্ট। এই এয়ারপোর্টটা তৈরি হয়েছে বিশাল বিশাল সব পর্বত শৃঙ্গের মাঝে ছোট্ট একটা সমতল ভূমিতে। এই জায়গাটি এতটাই ভয়ানক, সারা পৃথিবীতে মাত্র আটজন পাইলট আছেন যারা এখানে নামতে পারেন।
রানওয়েটা যেখানে শেষ হয়েছে, সেখানে শুরু হয়েছে একটা খাদ।   একে তো জায়গাটি চারপাশে পর্বত দিয়ে ঘেরা, তার উপরে আবার বিমান যখন মাটি স্পর্শ করবে, তখনই তাকে চলন্ত অবস্থাতেই দিক পরিবর্তন করতে হবে গতি কমিয়ে নিয়ে আসার জন্য। কারণ সোজা চলতে থাকলে সেটা গিয়ে পড়বে পাশের খাদটায়!

ল্যান্ড করার সময় একবার বামে, তারপর ডানে, আবার বামে, আবার ডানে, এভাবে পর্বত চূড়া এড়িয়ে তারপরেই আপনি নামতে পারবেন।
ভুটানের অফিশিয়াল এয়ারলাইন্স এর নাম ড্রুক এয়ার, এবং ঢাকা থেকে সেখানে যেতে হলে আপনাকে এই এয়ারপোর্ট দিয়েই যেতে হবে। এরকম একটা এয়ারপোর্টে ল্যান্ড করতে গেলে যে কারোই হার্ট এর অবস্থা খারাপ হয়ে যাবে সন্দেহ নেই। সুতরাং ভুটান যখন যাবার পরিকল্পনা করবেন, তখন এটা মাথায় রেখেই করবেন। কারণ হঠাৎ করে যদি আপনি দেখতে পান আপনার বিমান পাথরের মত টুপ করে একটা ছোট্ট রানওয়েতে খসে পড়ছে, সেই দৃশ্য আপনাকে বিভিন্ন রকম শারীরিক সমস্যা ফেলতে পারে! আর সব এয়ারপোর্টে বিমান নামে সোজা, আস্তে আস্তে গতি আর উচ্চতা কমিয়ে। এখানে নামে ঝুপ করেই, এঁকেবেঁকে, সার্কাসের বিমানের মত করে। ভাবছেন ঝড় হলে কি হবে? এবার আপনি বসে ভাবতে থাকুন!
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন বঙ্গবন্ধু'র ৭ মার্চের ভাষণ : ২৫ নভেম্বর দেশব্যাপী আনন্দ শোভাযাত্রা দ. কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজ মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর যৌথ সামরিক মহড়ায় যোগ দেবেঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ‘কাস্টমস এন্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিস’ চালু২০২৪ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে শতভাগ বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে : বানিজ্যমন্ত্রীরোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্যের সহযোগীতা চাইলো ঢাকা খুলনা-কলকাতা চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেনের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
  • ‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন বঙ্গবন্ধু'র ৭ মার্চের ভাষণ : ২৫ নভেম্বর দেশব্যাপী আনন্দ শোভাযাত্রা দ. কোরিয়ার যুদ্ধজাহাজ মার্কিন বিমানবাহী রণতরীর যৌথ সামরিক মহড়ায় যোগ দেবেঢাকা-কলকাতা মৈত্রী এক্সপ্রেস ট্রেনের ‘কাস্টমস এন্ড ইমিগ্রেশন সার্ভিস’ চালু২০২৪ সালের মধ্যে ঘরে ঘরে শতভাগ বিদ্যুত পৌঁছে দেয়া হবে : বানিজ্যমন্ত্রীরোহিঙ্গাদের ফিরে যাওয়া নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্যের সহযোগীতা চাইলো ঢাকা খুলনা-কলকাতা চলাচলকারী মৈত্রী ট্রেনের আজ আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন
উপরে