প্রকাশ : ২১ নভেম্বর, ২০১৮ ২৩:৫৯:১১
নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধ ব্যবহার যেন না হয়

সিরাজী এম আর মোস্তাক : ধর্ম ও মুক্তিযুদ্ধ একতার মূলমন্ত্র। যারা দেশ ও জাতির মুক্তির জন্য জীবন দেন, তারা মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদ। ১৯৭১ সালে এদেশের সাড়ে সাত কোটি বাঙ্গালি মুক্তিযুদ্ধ করেছেন। তাদের ৩০ লাখ শহীদ হয়েছেন।
বাংলাদেশের ১৭ কোটি নাগরিক, তাদেরই প্রজন্ম। আমরা মুক্তিযোদ্ধা ও শহীদদের সর্বোচ্চ শ্রদ্ধা করি। তারা সকল বিতর্কের উর্দ্ধে।

তাদের সংখ্যা ও তালিকা নিয়ে বিতর্ক, বাংলাদেশের কলঙ্কজনক অধ্যায়। স্বার্থান্বেষী রাজনীতিবিদগণ এ কলঙ্ক সূচণা করেছেন। ৩০ লাখ বীর শহীদদের বঞ্চিত করে প্রায় ২ লাখ মুক্তিযোদ্ধা তালিকাভুক্ত করেছেন। তালিকাভুক্তদের ভাতা ও কোটাসুবিধা দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা বিনষ্ট করেছেন।

দেশে মুক্তিযোদ্ধা, অমুক্তিযোদ্ধা, ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা, রাজাকার, আলবদর, স্বাধীনতার পক্ষশক্তি ও বিপক্ষশক্তি প্রভূতি বহু বিভাজন সৃষ্টি করেছেন। শুধু বিভাজন নয়, নির্বাচনে এসকল ব্যাঙ্গাত্মক শব্দাবলি ব্যবহার করেন। এর অনিবার্য পরিণতি-পরাধীনতা, জাতি বিভাজন, বিশৃঙ্খলা ও ক্ষতি। সুতরাং নির্বাচন কমিশনের দায়, নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধ ব্যবহার যেন না হয়।

তারেক রহমান একটি নির্বাচনী বক্তব্যে ১০ কোটি ভোটারকে মুক্তিযোদ্ধা বলেছেন। ভোটার ব্যতিত অন্যদের তিনি মুক্তিযোদ্ধা বলেননি। তবে তিনি ২ লাখ মুক্তিযোদ্ধা তালিকা ও নিকৃষ্ট কোটা বৈষম্যের গন্ডি অতিক্রম করেছেন। আওয়ামী লীগ মুক্তিযোদ্ধাকোটা নিয়ে অনেক বাড়াবাড়ি করেছেন। ১৪ দলের মুখপাত্র জনাব নাসিম একটি বক্তব্যে বারবার ’স্বাধীনতাবিরোধী’ বলেছেন।
তিনি ভালোভাবেই জানেন, তাঁর পিতা জাতীয় চারনেতার অন্যতম হলেও প্রচলিত মুক্তিযোদ্ধা তালিকাভুক্ত নন। অর্থাৎ মুক্তিযোদ্ধা তালিকাবহির্ভূত হলেই কেহ স্বাধীনতাবিরোধী নন। এভাবে তারা জেনে বুঝে স্বার্থের জন্য নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধ ও স্বাধীনতা ব্যবহার করেন। অথচ এটি তাদের নিজস্ব বা একার নয়। এটি দেশের ১৭ কোটি জনতার।

নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধের ব্যবহার তথা তফসিলে যুদ্ধাপরাধের বিচারে বিশেষ বাংলাদেশের লান্থণা বেড়েছে। আওয়ামীলীগ যুদ্ধাপরাধের বিচারে বাংলাদেশে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল গঠন করেছেন। ট্রাইব্যুনালে আন্তর্জাতিক শব্দ থাকলেও তাতে বিচারক এবং অপরাধী সবাই বাংলাদেশি। বিচারকগণ ১৯৭১ সালে জঘন্য হত্যার দায়ে ঘাতক পাকবাহিনীর পরিবর্তে নিজেদের যুদ্ধবিধ্বস্থ
অসহায় দেশবাসীকেই অভিযুক্ত করেছেন। এতে বিশ্বজুড়ে স্বীকৃত হয়েছে, ১৯৭১ এর সকল হত্যাকান্ড বাংলাদেশিরাই করেছে।

তারাই ৩০ লাখ বাঙ্গালি হত্যা করেছে। পাকবাহিনী কোন হত্যাকান্ড করেনি। বাংলাদেশের বিচারকগণ আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালে বসে পাকবাহিনীর অপরাধ পায়নি। এখন পাকবাহিনীকে ঘাতক বা যুদ্ধাপরাধী বললে, তা আন্তর্জাতিক ট্রাইব্যুনালের সুস্পষ্ট অবমাননা। নির্বাচনে মুক্তিযুদ্ধ ব্যবহারে, এটিই প্রত্যক্ষ পাওনা। এর চেয়ে লান্থণা, আর কিছু হতে পারেনা?
----------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------------
লেখক : সিরাজী এম আর মোস্তাক, শিক্ষানবীশ আইনজীবি, ঢাকা। ই-মেইল : musmia786@gmail.com  
 

সর্বশেষ সংবাদ
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
  • রোহিঙ্গা নির্যাতনের তদন্ত টিম এখন ঢাকায়বিএনপি-জামায়তের ষড়যন্ত্রের বিরুদ্ধে সতর্ক থাকতে হবে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধুর জন্য জাতিসংঘে সদরদপ্তরে প্রথমবারের মতো জাতীয় শোক দিবসক্রস ফায়ারের মাঝেও মানব পাচার! থেমে নেই অস্ত্র ও ইয়াবা ব্যবসারোববার কবি শামসুর রাহমানের ১৩ তম মৃত্যুবার্ষিকীঢাকা-দিল্লীর সম্পর্ক এখন নতুন উচ্চতায় : বাংলাদেশ হাইকমিশনারছয় বছর বয়সেই ইসি'র স্মার্টকার্ডবঙ্গবন্ধু বাংলার ইতিহাস : স্বাধীনতা বাঙ্গালীর সোনালী অর্জন বঙ্গবন্ধুর খুনিদের সঙ্গে জিয়ার যোগাযোগ ছিল : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর খুনিদের দেশে ফিরিয়ে এনে রায় কার্যকর করা হবে : আইনমন্ত্রী২২ আগস্ট শুরু হচ্ছে রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন বাঙালীর বিনম্র শ্রদ্ধা আর ভালোবাসায় সিক্ত হলেন জাতির জনক মাশরাফির অবসর নিয়ে দু'দিনের মধ্যেই আলোচনায় বসবে বিসিবিটুঙ্গীপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে প্রধানমন্ত্রীর শ্রদ্ধার্ঘ নিবেদনবঙ্গবন্ধুর খুনিদের ফিরিয়ে আনতে কূটনৈতিক চেষ্টা চলছে : ওবায়দুল কাদেরবঙ্গবন্ধু হত্যার কুশীলবদের মুখোশ উন্মোচনে ‘কমিশন’ গঠনের দাবি জানালেন তথ্যমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে রাষ্ট্রপতি-প্রধানমন্ত্রী ও সর্বস্তরের জনতার বিনম্র শ্রদ্ধাজাতীয় শোক দিবসে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী'র বাণীআজ জাতীয় শোক দিবস : টুঙ্গিপাড়ায় যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধু ও তাঁর পরিবারের অপরাধটা কি? সব খুনিদের বিচার হোক
উপরে