প্রকাশ : ০৩ মে, ২০১৬ ২০:২৫:৪৭
আপনার সন্তানের খোঁজ রাখছেন তো?
জিয়াউর রহমান : একটা কথা আছে, শহরে সন্তান পালন করা সহজ কিন্তু মানুষ করা কঠিন । কথাটির তাৎপর্য ভাবতে গেলে আমাদের অনেক গভীরে যেতে হবে । একটা ছোট শিশু যখন জন্ম গ্রহন করে তখন আপন বলতে শুধু মাকেই সে চিনে । আস্তে আস্তে সে বড় হয়, সেই সাথে পরিবারের বাকি মানুষদের সে চিনতে থাকে । এভাবে শিশু থেকে কৈশোর, তারপর যৌবনে পদার্পন করে । তার এই বেড়ে উঠার পথে সে সমাজের বিভিন্ন মানষের সাথে মিশে নানান বিষয় শিখে থাকে । তার এই বেড়ে উঠার একেকটা ধাপে সে একেক রকম পরিস্থিতির মুখোমুখি হয় । তবে সকল পরিস্থিতিতে সে যাই শিখা গ্রহন করুক না কেন তার শৈশবে তার পরিবারের কাছ থেকে সে যে শিখাটা গ্রহন করে থাকে সেটাই সে পরবর্তিতে বেশি কাজে লাগায় । এক্ষেত্রে তারপরিবার যদি তাকে ভালো কিছু শেখায় তাহলে পরবর্তিতে সে  খারাপ কাজের মধ্যেও তার শৈশবের ভাল শিখাটাকে কাজে লাগাতে চায় ।  
বর্তমান প্রেক্ষাপটে বাবা ও মা উভয়েই কর্মজীবী হয় । কারন ছেলে মেয়েদের উজ্জল ভবিষ্যতের কথা চিন্তা করে তারা উদ্ধিগ্ন থাকে । তাই সন্তানদের যাতে কখনো কোন অভাবে পড়তে না হয় সেজন্য পিতামাতা সর্বদাই সচেষ্ট থাকে । কিন্তু এত কিছুর মাঝে সন্তানের লালন পালন করছে কে? কাজের লোক ?  
একটি শিশুর সবচেয়ে কাছের মানুষ হলো তার বাবা মা এবং পরিবারের অন্যান্য সদস্য । কিন্তু বুজ হওয়ার পর থেকে শিশুটি দেখে আসছে তাকে লালন পালন করছে কাজের লোক । বাবা মা অফিস শেষ করে রাত করে বাসায় আসে আবার সকালে চলে যায় । মায়ের আদর, বাবার ভালবাসা আর তাই ছেলেটির পাওয়া হয়ে উঠেনা ।
এভাবে চলতে চলতে যখন সন্তান বড় হয় তখন তার একাকিত্ব মোচনের জন্য বন্ধু বান্ধব, আড্ডা, ইন্টারনেটে ডুবে থাকে । সে তার ইচ্ছা মত সব কিছুই করতে পারে কারন তাকে বাধা দেওয়ার মত কেউ থাকেনা । আর লাগামহীন ঘোড়া যেমন একসময় তার মালিককেও চিনেনা তেমনি খারাপ বন্ধুদের পাল্লায় পড়ে এই সন্তানের খারাপ হতেও বেশি সময় লাগেনা ।  
কাদের সন্তান বিপদগামী বেশি হয় সেই প্রশ্নটা তোলাই থাক । আমি শুধু কয়েকটা কথা বলতে চাই । গ্রামের একটা মেয়ে অথবা একটা ছেলে বাড়িতে বলে স্কুলে গেলো । সে স্কুল থেকে আগেই চলে আসলো অথবা সে স্কুলে যাওয়ার নাম করে কোথাও ঘুরতে গেলো । ভেবে দেখুন, সে যেখানেই ঘুরতে যাক, ঐ এলাকায় তাকে চিনে এমন কেউ থাকা অস্বাভাবিক কিছু নয় । কারন এই গ্রাম সেই গ্রামে অনেকের আত্নীয়স্বজন থাকে । তাদের মধ্যে যে কেউই তাকে দেখে চিনে ফেলতে পারে । তাই বুজে শুনে কোন মেয়ে বা ছেলে এমন  করবেনা । এবার ভাবুন, শহরে একটা মেয়ে বা ছেলে যখন স্কুল বা কলেজে গেলো  তখন সে বাসার গেইটের বাইরের চলে আসার পরই মুক্ত । কারন হয়তো তার বাসার আশেপাশে কিছু লোক তাকে চিনলেও তাদের চেনাজানা সেই বাসার মধ্যেই সীমাবদ্ধ ।  তাই তারা ইচ্ছা মত যেখানে খুশি যেতে পারে । এখন আপনার সন্তান যদি তার বয়ফ্রেন্ডের সাথে বা গার্লফ্রেন্ডের সাথে কোথাও গিয়ে সময় কাটিয়ে আসে  আপনি কি সেটা বুঝতে পারবেন  ? কারন আপনি নিজেই তো জানেন না  আপনার সন্তান সাধারনত ক্লাস শেষে  কখন বাসায় ফিরে। অফিস শেষে বাসায় পৌছে দেখেন আপনার সন্তান বাড়িতেই আছে । দেখে একটা সস্তির নি:শ্বাষ ফেলেন । কিন্তু একবারো কি জানতে চেয়েছেন সারাদিন সে কি করেছে, কোথায় গিয়েছে, কার সাথে মিশেছে? আর ইন্টারনেটের বদৌলতে পর্ন জগতের সবকিছু এখন মোবাইলেই পাওয়া যাচ্ছে । এতে কি হচ্ছে ? আপনার সন্তান সেসব দেখে দেখে আকৃষ্ট হয়ে পড়ছে । যার পরিনাম হতে পারে ভয়াবহ ।  
কয়েকমাস আগে একটা সংবাদ প্রকাশ হয়েছিলো, প্রেমিকার বাবার কাছে চাদা দাবী, না দিলে গোপন ভিডিও ফাঁস । অনেক মেয়ে এমন বিভ্রতকর পরিস্থিতিতে পরে করছে আত্নহত্যা । ভেবে দেখুন এই কাজের রাস্তা কিন্তু আপনারই তৈরি করে দেওয়া । সন্তানদের খোজ খবর না রেখে  তাদের বানিয়েছেন বিপথগামী । ফলে তারা খারাপ বন্ধুদের পাল্লায় পরে যা খুশি তাই করে বেড়াচ্ছে । তাহলে আপনার টাকা পয়সা কি আপনার সন্তানের নিরাপত্তার জন্য যথেষ্ট ছিলো নাকি আপনার আদর ও শ্বাসনের দরকার ছিলো?  
এবার অন্তত নজর দিন আপনার সন্তানের প্রতি । কোথায় যাচ্ছে, কি করছে, কার সাথে মিশে, ঠিক মত বাসায় ফিরে কি না, স্কুলে নিয়মিত যাচ্ছে কিনা   এসব খোজ খবর রাখুন ।  তাহলে হয়তো আর কোন বখাটে যুবক/বিপদগামী তরুনীর জন্ম হবেনা আমাদের সমাজে ।
লেখা : সাংবাদিক জিয়াউর রহমান
সর্বশেষ সংবাদ
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
উপরে