প্রকাশ : ১৩ জুলাই, ২০১৬ ০১:৩৪:০৫
অষ্টধরের বাসিন্দাদের দু’শ বছর আগের স্বপ্ন পুরণ হবে তো ?
ইউসুফ আলী মন্ডল : বাংলাদেশের ইতিহাস নদী মাতৃক ভ্রমপুুত্র বিশাল তার জলরাশী আর এই বিশাল ভ্রমপুত্রকে ঘিরে ঘরে ওঠছে হাজার হাজার হেক্টর ফসলী জমি। এ ধরনের তলদেশ থেকে জেগে ওঠা তেরটি চর বিস্তৃত হয়ে ৯ কিলোমিটার জায়গায় অবস্থিত। এলাকার নবীন প্রবীন সমন্বয়ে রোজ বিকেলে নদীর পাড়ে ভ্রমণ করে হাজার হাজার পর্যটক যেখানে মিলন মেলায় পরিনত হয় প্রাকৃতিক পরিবেশ। আর এই শুভাসৌন্দর্য বর্ধিত নদীই হলো ব্রমপুুত্র নদী। যার বুক চিরে এখন জেগে ওঠা চরে বসবাস করছে হাজার হাজার মানুষ।
কিন্তু চরবাসীরা এখন যোগাযোগে পিছনে পড়ে রয়েছেন। তারা জানান, এই দিক দিয়ে একটি মাত্র ব্রীজ তৈরি হলেই মাত্র ৪০ মিনিটেই ময়মনসিংহ বিভাগের সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হত। তাদের নকলা সদর হয়ে ফুলপুর দিয়ে ময়মনসিংহ যেতে সময় লাগে প্রায় ২ ঘন্টা ভাড়া বাবদ খরচ হয় ১শ ৫০ টাকা। আর ভ্রমপুত্র নদীর অষ্ট্রধর অংশে একটি ব্রীজ ২শ মিটার নির্মিত হলে তারা ৮০ কিলোমিটারের জায়গায় ৪০ কিলোমিটার পথে ৩০ টাকা খরচেই যেতে পারতেন।
যোগাযোগের উত্তম সময়ে এলাকাবাসী জানান, তাদের পিয়ারপুর হয়ে ময়মনসিংহ ঢাকা, মুক্তাগাছা, টাঙ্গাইল যাতায়াতের জন্য ঘাটপারে ব্রীজ নির্মাণ একান্ত জরুরী হয়ে পড়েছে। তা না হলে প্রতিবছর ভাঙ্গনে তাদের স্কুল, মাদ্রাসা, মসজিদ, বাড়ীঘরসহ ফসলী জমি নিশ্চিহ্ন  হয়ে যাচ্ছে।
৮নং ইউনিয়নের ভোট স্কুুল বলে খ্যাত একটি প্রাইমারি স্কুল একটি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়, ৭০ বছরের একটি পুরোনা মসজিদ ভেঙ্গে নদীতে পড়ে যাচ্ছে। ভাঙ্গন শুরু হয়ে ৯ কিলোমিটার বিস্তৃত হয়ে পড়ে। ইউনিয়ন চেয়ারম্যান নকলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সাবেক আওয়ামীলীগ সভাপতি গোলাম রব্বানী বলেন, এখানে নেই কোন সামাজিক অবস্থান। নিরাপত্তা ও জনকল্যানে নাগরিকদের কোনো সুযোগ সুবিধা যদি এসকল থাকতো তাহলে এলাকাটিকে পর্যটক এলাকা হিসাবে গড়ে তোলা সম্ভব হতো।
প্রধান শিক্ষক এমরান হোসেন ফটু বলেন, ভাঙ্গন রোধ করা না গেলেও সামাজিক বিনোদনের কেন্দ্র হিসেবে জায়গাটি বিশেষ উপযোগী ও পরিবেশ বান্ধব। ভিআইপিদের বাড়ীর ঐ অঞ্চলে হলেও এখনো কোনো সড়ক যোগাযোগ ও পাকা রাস্তা হয়নি। শেরপুর জেলার নকলা ও নালিতাবাড়ী উন্নয়নে মতিয়া চৌধুরীর সহযোগীতা রয়েছে ব্যাপক ভাবে তাই উক্ত অষ্টধর এলাকায় একটি ব্র্রীজ নির্মান করে ২শ বছরের অবস্থা ফিরিয়ে আনবেন বলে আশা করছেন অনেকেই। মুক্তাগাছার বাসিন্দা সিরাজুল ইসলাম নকলা চাকুরি করেন। তিনি বলেন, সড়কটি হোক এটা আমার প্রানের দাবী। মন্ত্রী মহোদয় সড়কটি উন্নয়নে ভূমিকা রাখবেন বলে আশা করছি। এই জলরাসিতে একসময় ছিল জোয়ার ভাটা দেশী জাতীয় পুষ্টি সমৃদ্ধ মাছের ছিল অভয়ারন্য আজ তা নেই। আছে শুধু জলরাসী আর বিশাল পর্যটক ভুমি।
পূর্ব দিকে ৬ কিলোমিটার পশ্চিমে ১০ কিলোমিটার দক্ষিনে ২ কিলোমিটার আয়তনে প্রায় ৫ শ’ একর ভূমি রয়েছে। ঐখানকার চাষীরা নদীশুকিয়ে গেলে জেগে ওঠা চরে শুধু বাদামের চাষ করে থাকেন। অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক আজহার বলেন, আমাদের দেশের একশতাংশ জমি পতিত নেই। অথচ এই্ বিশাল চরে শত শত একর জমি পতিত রয়েছে যা কোনো কাজে লাগানো হচ্ছে না। সরকারী উদ্যোগে এখানে কোনো স্থাপনা নির্মাণ করা হলে বৎসরে সরকারের রাজস্ব আদায় হতো একশ কোটি টাকা। নদীর পাড়ের বাসিন্দা আব্্দুল মোতালেব বলেন, বহু বছর যাবৎ ভাঙ্গন শুরু হয়েছে রক্ষা করতে এখনও কেউ এগিয়ে আসেনি। ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ সাধারন সম্পাদক সিয়াবুল বাদশা বলেন, এদিক দিয়ে বাইপাস সড়ক নির্মাণ করলে লক্ষ লক্ষ লোকের যাতায়াত সুবিধা বৃদ্ধি পাবে। খরচ ও কমবে অনেক। ইউনিয়ন আওয়মীলীগ সভাপতি এনামুল হক জিন্নাহ বলেন, এখান দিয়ে রেল লাইন পরিকল্পনার কথা ছিল কিন্তু শুনেছি সরকারি ব্যয় হবে ৫ থেকে ৬ শ’ কোটি টাকা যে কারণে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করতে বিলম্ব হচ্ছে। আবার কেউ কেউ বলছেন, রেল লাইন বাস্তবায়নে পরিকল্পনা নেই।
১৬টি চরে বসবাসরত ৩ লাখ লোকের এই নিরাপদ ভূমি সরকারি উদ্যোগে কোনো আবাসন তৈরি হলে নবগঠিত ময়মনসিংহ বিভাগের সাথে ২ কোটি লোকের ৩৫টি উপজেলার ২৬টি পৌরসভার সবচেয়ে বেশি সুবিধা ভোগ করতে পারবেন এ অঞ্চলের মানুষেরা এবং এ পথেই জামালপুর শেরপুর দু’জেলার বাসিন্দারা অনায়াসে যাতায়াত করতে পারবেন। আসুন সমন্বিত উদ্যোগ নেই এবং বিশাল এ পতিত ভূমিকে কাজে লাগাই। বেকারদের কর্মমূখী হিসেবে গড়ে তুলি।

লেখক : ইউসুফ আলী মন্ডল, সাংবাদিক ও লেখক, শেরপুর।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
উপরে