প্রকাশ : ০১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬ ২২:৪০:৩৫
“পর্যটন শিল্পের অবকাঠামো গড়ে তোলার দাবিতে”
মাদার ফিসারিস অব “টাঙ্গুয়ার হাওরে” ২ দিন ব্যাপী পর্যটকের মিলনমেলা
বাংলাদেশ বাণী টোয়েন্টিফোর ডটকম, হাবিব সরোয়ার আজাদ : ওয়ার্ল্ড হেরিটেইজ রামসার সাইট হিসাবে স্বীকৃত বাংলাদেশের দ্বিতীয় সুন্দরবন ও ভারতের মেঘালয় পাহাড়ের কুলঘেষা সুনামগঞ্জের তাহিরপুর ও-ধর্মপাশা উপজেলার আংশিক এলাকাজুড়ে অবস্থিত টাঙ্গুয়ার হাওরে বসছে দু’দিনের নৌ- যাত্রা। প্রায় ১০ হাজার হেক্টর আয়তনের অধিক জলাভুমি নিয়ে গঠিত মাদার ফিসারিজ অব টাঙ্গুয়ার হাওরকে ঘিরে পর্যটন শিল্পের অবকাঠামো গড়ে তোলার দাবিতে মুলত উৎসবটি কয়েক হাজার  পর্যটক প্রেমীদের মিলন মেলায় পরিণত হবে দু’দিনের নৌ-যাত্রা। দেশ-বিদেশের পর্যটক প্রেমীদের নিকট টাঙ্গুয়ার হাওরের পর্যটন শিল্পের পরিচিতি তুলে ধরার জন্য নৌ-যাত্রাকে উৎসবে পরিণত করার উদ্যোগ নিয়েছে তাহিরপর উপজেলা পরিষদ।
উপজেলা পরিষদের দায়িত্বশীল সুত্রে জানা যায়, টাঙ্গুয়ার হাওরে আগামী ১৬ ও ১৭ সেপ্টেম্বর দুই দিন ব্যাপি নৌ-যাত্রাকে ঘিরে  নেয়া হয়েছে নানা উদ্যোগ। হাওরের জলাভুমি জুড়ে হিজল –করচের সবুজ ছায়ায় নীল জলরাশীতে  ৫৩টি বিল, ১২০ কুড়ি কান্দা-জাঙ্গাল রয়েছে। ১৪১ প্রজাতির মাছ, ২০০ প্রজাতির জলজ উদ্ভিদ, ৩৪০ প্রজাতির দেশী- বিদেশী পাখি, ৯৮ প্রজাতির পরিযায়ী পাখি, ১২১, ২২ প্রজাতির পরিযায়ী হাঁস, ১৯ প্রজাতির স্থন্যপায়ী প্রাণী, ২৯ প্রজাতির সরিসৃপ, বিশ্বের বিলুপ্ত প্যালাসাস পেঙ্গুইন পাখি , প্রায় ১১ প্রজাতির উভচর প্রাণীসহ অসংখ্য স্থলজ, জলজ প্রাণী ও জীববৈচিত্রের অভয়ারণ্য  রয়েছে এই সুবিশাল টাঙ্গুয়ার হাওরের বুক জুড়ে।
টাঙ্গুয়ার হাওরকে ঘিরে বিএনপি ও আওয়ামলীগ দু’সরকারের আমলেই পর্যটন শিল্প গড়ে তোলার ব্যাপারে জেলা বাসী নানা প্রতিশ্রুতি দেয়া হীেছলো কিন্তু সেই প্রতিশ্রুতি আজো আলোর মুখ দেখেনি। বিএনপি সরকারের প্রয়াত সাবেক অর্থ ও পরিকল্পনামন্ত্রী তৎকালীন সরকারের পক্ষ্য থেকে ১৯৯৪ সালে ট্যাকেরঘাটের এক জনসভায় তাহিরপুরে ট্ঙ্গাুয়ার হাওর ও জাদুকাঁটা নদীর কুলঘেষা বারেক টিলাকে ঘিরে একটি পর্যটন কেন্দ্র ও  ট্যাকেরঘাটে একটি সিমেন্ট ফ্যাক্টরী, একটি গ্লাস ফ্যাক্টরী তৈরী করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন।
পরবর্তীতে মহাজোঠ সরকারের প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগের সভাপতি জাতীর জনক বঙ্গবন্ধুর কন্যা শেখ হাসিনা প্রথম বারের মত ২০১০ সালের ১০ নভেম্বর তাহিরপুরে এসে এক জনসভায় টাঙ্গুয়ার হাওর , ট্যাকেরঘাট চুনাপাথর খনিজ প্রকল্পের পতিত ভুমি ও জাদুকাঁটা নদীর বারেক টিলাকে ঘিরে আবারো একটি পর্যটন কেন্দ্র গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দেন। কিন্তু গত ৬ বছর পেরিয়ে গেলেও বঙ্গবন্ধু কন্যার সেই প্রতিশ্রুতিও আলোর মুখ দেখেনি। চলতি বছর সারা দেশের স্কুল, কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, সরকারী চাকুরীজবী ও দেশী -বিদেশী পর্যটক সহ  কমপক্ষে ১ লাখের অধিক পর্যটক ট্গাুয়ার হাওর ট্যাকেরঘাট ও , বারেক টিলা, জাদুকাঁটা নদীতে ভ্রমণে এসে থাকা-খাওয়া সহ নানা বিরম্ভনার শিকার হয়েছেন। পরিবেশ ও মানবাধিকার উন্নয়ন সোসাইটির মহা পরিচালক এবি রাজ্জাক বললেন, এভাবে গত দু’যুগেরও বেশী সময় ধরে পর্যটকদের আনাগুনা বাড়লেও সরকারের প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন না হওয়ায় তাহিরপুরের পর্যটন খাত থেকে একদিকে যেমন সরকার রাজস্ব বঞ্চিত হচ্ছে, তেমনি পর্যটকদের ভোগান্তির শিকার হতে হচ্ছে অপরদিকে স্থানীয় বেকার যুবকদের একটি বড় অংশের কর্মসংস্থানের পথ বন্ধ হয়ে পড়ে আছে।
নৌ-যাত্রার আয়োজক উপজেলা পরিষদ সুত্রে জানা যায়, টাঙ্গুয়ার হাওরে দিন দিন পর্যটক ও  দর্শনার্থীদের উপস্থিতি বৃদ্ধি পাচ্ছে। হাওরের নৌ- যাত্রাকে উৎসবে পরিণত করার জন্য পানির ওপর ভাসমান মঞ্চে রাত কাঁটানোসহ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানও থাকবে। সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে গান পরিবেশেন করবে দেশের জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী আশিক সহ স্থানীয় শিল্পীগণ ।
 
মাদার ফিসারিস অব “টাঙ্গুয়ার হাওরে” ২ দিন ব্যাপী পর্যটকের মিলনমেলা
নৌ-যত্রায়  ৪টি লঞ্চসহ প্রায় অর্ধ শতাধিক নৌ-বহর থাকবে। নৌ-যত্রার দ্বিতীয় দিনে জাদুকাঁটা নদীর কুলঘেষা বারেক টিলায় থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও আলোচনা সভা।  জীববৈচিত্র সমৃদ্ধ টাঙ্গুয়ার হাওরের পর্যটন সম্ভাবনা দেশ-বিদেশে ছড়িয়ে দিতে ও পর্যটন উপযোগী অবকাঠামো গড়ে তোলার দাবিতে দেশের যে কোন স্থান থেকেই এই নৌ-যাত্রায়  অংশ নেওয়ার জন্য পর্যটক ও ভ্রমণপিপাসুদের আহ্বান জানিয়েছে উপজেলা পরিষদ। দু’দিনের নৌ-যাত্রা পর্যটকদের মতামত নিয়ে সরকারের কাছে দ্রুত পর্যটন শিল্প গড়ে তোলার জন্য সুপারিশ জানাবেন আয়োজকরা।
দুই দিনব্যাপি অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন সুনামগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য মোয়াজ্জেম হোসেন রতন এমপি, জেলা প্রশাসক শেখ মো. রফিকুল ইসলাম সহ জেলা পুলিশের দায়িত্বশীল অফিসারগণ।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান কামরুলে সভাপতিত্বে হাওরের নৌ-যাত্রা ও উৎসবকে সফল করার লক্ষ্যে সোমবার উপজেলা পাবলিক লাইব্রেরী মিলনায়তনে এক মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ভারপ্রাপ্ত)  মো. রফিকুল ইসলাম, থানার ওসি মো. শহীদুল্লাহ, উপজেলা সহকারি প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার বিপ্লব সরকার, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আবুল হোসেন খাঁ, সদর ইউপি চেয়ারম্যান বোরহান উদ্দিন,  সহ-সভাপতি নুরুল আমীন, উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক রুহুল আমীন, বাদাঘাট ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান নিজাম উদ্দিন প্রমুখ।

লেখা ও ছবি : গণমাধ্যম কর্মী এবং উপ-পরিচালক-পরিবেশ ও মানবাধিকার উন্নয়ন সোসাইটি, ঢাকা, বাংলাদেশ। ই-মেইল (smhsazadj@gmail.com)

বাংলাদেশ বাণী/কাসা/ডেস্ক/০১/০৯/২০১৬. ১০:৪০ (পিএম) ঘ.
সর্বশেষ সংবাদ
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
  • বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও মন্ত্রিসভার বৈঠকে বিদ্যমান চিনি আইন রহিতের সিদ্ধান্তমহানগরী ঢাকাকে ‘সেফনগরী’ হিসেবে গড়ে তোলা হবে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীদশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন ১০ কার্য দিবস চলবেস্থানীয় সরকারের অধীন দেশের ১৩৩টি প্রতিষ্ঠানে ২৮ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণবিএনপি দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না : খালেদা জিয়া বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ : বিশ্ব ঐতিহ্যের স্বীকৃতি, সোমবার শাহবাগে ‘আনন্দ উৎসব ও স্মৃতিচারণ’ আজ বসছে দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন
উপরে