প্রকাশ : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ০০:০৩:০৮
রক্তঋনে কেনা, কারো দানে নয় !
‘অমর একুশের সিঁড়ি বেয়ে আমার বাংলা মায়ের কোল’
কাজী আব্দুস সামাদ : (পূর্ব প্রকাশরে পর) স্বাধীনতা-পরবর্তী চার দশকজুড়েই বাংলা ও বাঙালির বিরুদ্ধে নানামুখী ষড়যন্ত্র হয়েছে এবং তা এখনো অব্যাহত আছে। কখনো তা দৃশ্যমান হয়েছে, কখনো তা অদৃশ্যই থেকে গেছে। এখন একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধীদের বিচারকে কেন্দ্র করে সেই পাকিস্তানি প্রেতাত্মারা আবার নতুন করে হামলে পড়তে চাইছে। তাই এবারের একুশে আমাদের নতুন প্রত্যয়ে, নতুন বিশ্বাসে এগিয়ে যাওয়ার শপথ নিতে হবে।

তাই ‘একুশ’ এবং ‘মাথা নত না করা’র চেতনাকে একসাথে পাঠ করতে হবে যাতে যথাযথভাবে উপলব্ধি করা যায়, কীভাবে মহান একুশের আদর্শে বাঙালির প্রতিরোধের চরিত্র নির্মিত হয়। এর ভেতর দিয়ে বাঙালি ভাষা আন্দোলনের সড়ক বেয়ে মুক্তিসংগ্রামের মহাসড়কে উপনীত হয়।

‘মহান একুশে’র চেতনা এবং ‘মাথা নত না করা’র দর্শনকে একসাথে উপলব্ধি করার প্রয়োজন আছে। কেননা এ যুক্তপাঠ ‘স্বাধীনতা অর্জনের চেয়ে রক্ষা করা কঠিন’র মতো মহান ব্রত নিয়ে নিত্য মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় প্রদীপ্ত হতে আমাদের প্রেরণা যোগায়।

হাজার বছরের ইতিহাস ঐতিহ্যমণ্ডিত বাংলা সমৃদ্ধ একটি ভাষা। রবীন্দ্রনাথ, নজরুল, জীবনানন্দ দাশের মতো লেখক সৃষ্টি হয়েছে এই ভাষায়ই। কিন্তু সেই ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠায় পরবর্তী সময়ে তেমন কোনো উদ্যোগ কি নেয়া হয়েছে?

সময়ের অভিঘাতে পাল্টে যাচ্ছে সবকিছু। প্রযুক্তি নির্ভর একবিংশ শতাব্দীতে তরুণ প্রজন্মও বাংলা ভাষার প্রতি চরম উদাসীন। অন্যভাষা শেখায় কোনো দোষ নেই। রবীন্দ্রনাথের কখা স্বরণ করে বলতে হয়-‘আগে চাই বাংলা ভাষার গাঁথুনি পরে, ইংরেজি শেখার পত্তন’।

বাঙালি জাতির হাজার বছরের ইতিহাসে আমাদের অমর একুশের অবস্থান অনন্যসাধারণ, মর্যাদায় ভাস্বর। অনেক দেন-দরবার ও কূটনৈতিক তৎপরতার মাধ্যমে আমরা সে সাফল্য অর্জন করি।
১৯৯৯ সালে ইউনেস্কোর ৩০ তম সাধারণ সম্মেলনে বাংলাদেশ সরকারের প্রস্তাবটি সর্বসম্মতভাবে অনুমোদন পাওয়ায় একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে স্বীকৃতি পায়।

একুশের চেতনায় উজ্জীবিত বাঙালি জাতি, জাতির জনকের আপসহীন ও অকুতোভয় নেতৃত্বে আন্দোলন করে স্বাধীনতার পথে এগিয়ে যায়। তারই পথ ধরে স্বাধীকার আন্দোলন, মহান মুক্তিযুদ্ধ ও সবশেষে স্বাধীনতা অর্জন।
আমাদের দেশের ৯৯ শতাংশ মানুষ বাংলায় কথা বলে। বাংলা ছাড়া অন্যান্য ভাষা যাদের মাতৃভাষা, তারাও বাংলা বলতে পারে। অথচ বিশ্বের অধিকাংশ দেশই বহু ভাষাভাষী, সেখানে প্রধান ভাষা একাধিক।

সেসব দেশে ভাষানীতি আছে। যেসব দেশে কোনো ভাষা আন্দোলন হয়নি, ভাষা সংস্কার নিয়ে কাজ হয়েছে। সর্বস্তরে জাতীয় ভাষা প্রয়োগে অবিচল আনুগত্য দেখায় জনগণ। সেসব দেশে ভাষার অবমাননা বা বিকৃতি শাস্তিযোগ্য অপরাধ হিসেবে গণ্য। (আজ প্রকাশিত হলো ৭ম পর্ব-চলবে)
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জঙ্গিবাদ কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না : আইজিপি সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকারবাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরএনটিআরসিএ'র নতুন চেয়ারম্যান পদে আশফাক হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকারমানুষের স্বচ্ছতা বাড়ায় প্রতিবছর দেশে পূজা মণ্ডপ বাড়ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী“দেশে কোন সংখ্যালঘু নেই” : র‌্যাবের মহাপরিচালক নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে-মতবিরোধ থাকলেও জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় প্রভাব পড়বে না : সিইসিবাসাবাড়ি'র গ্যাসের মূল্য আপাতত বাড়ছে না : বিইআরসিঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জন্য দেড় বিঘা জমি প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী‘পদ্মাসেতু রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীবাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুরু সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে‘তিতলি’'র প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস : ভূমিধসের আশঙ্কাপ্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের ‘শেখ রাসেল সেতু’ উদ্বোধনভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে ৮ জনের প্রাণহানি : ক্রমশ: দুর্বল হচ্ছেএকুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় : বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড ❏ তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনইতিহাসের বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার মামলা ❏ বিচারের ঐতিহাসিক রায় আজসামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’ গঠন করেছে সরকারবিশ্ব বরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজদুর্যোগ কবলিত ইন্দোনেশিয়া লম্বা হচ্ছে লাশের মিছিল
  • আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জঙ্গিবাদ কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না : আইজিপি সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকারবাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরএনটিআরসিএ'র নতুন চেয়ারম্যান পদে আশফাক হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকারমানুষের স্বচ্ছতা বাড়ায় প্রতিবছর দেশে পূজা মণ্ডপ বাড়ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী“দেশে কোন সংখ্যালঘু নেই” : র‌্যাবের মহাপরিচালক নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে-মতবিরোধ থাকলেও জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় প্রভাব পড়বে না : সিইসিবাসাবাড়ি'র গ্যাসের মূল্য আপাতত বাড়ছে না : বিইআরসিঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জন্য দেড় বিঘা জমি প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী‘পদ্মাসেতু রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীবাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুরু সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে‘তিতলি’'র প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস : ভূমিধসের আশঙ্কাপ্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের ‘শেখ রাসেল সেতু’ উদ্বোধনভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে ৮ জনের প্রাণহানি : ক্রমশ: দুর্বল হচ্ছেএকুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় : বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড ❏ তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনইতিহাসের বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার মামলা ❏ বিচারের ঐতিহাসিক রায় আজসামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’ গঠন করেছে সরকারবিশ্ব বরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজদুর্যোগ কবলিত ইন্দোনেশিয়া লম্বা হচ্ছে লাশের মিছিল
উপরে