প্রকাশ : ০১ এপ্রিল, ২০১৮ ০০:৪২:০৯
মুক্তমত : যশোর-বেনাপোল সড়ক দিয়েই হোক মেগাসিটি তৈরীর স্বপ্ন পূরণ
॥ কাজী বর্ণ উত্তম ॥ পটভূমি : যশোর এর মানুষ যশোর বেনাপোল সড়ক চারলেন করা নিয়ে যশোর বেনাপোল সড়কের শতবর্ষি গাছ রাখা আর না রাখা নিয়ে দুভাগে বিভক্ত হয়ে গেছেন। কিন্তু সড়ক তো বারবার বানানো সম্ভব নয়, তাই ভবিষ্যতের বাস্তবিকতা চিন্তা করে একটি স্বপ্ন।

বর্তমান রাস্তায় যে জায়গা আছে তাতে কয়লেন হবে সর্বোচ্চ। কিছু জায়গা আছে যেখানে এখনই প্রশস্ত করা সম্ভব নয়। বরং যানজট লেগেই থাকবে। গাছ রাখা না রাখার চেয়েও এটা কম জরুরি বিষয় নয়। সকল লোকালয় বা বাজারকে এড়িয়ে (বাইপাস) নতুন জমি অধিগ্রহন করে নতুন রাস্তা এবং যশোর শহর বেনাপোল পর্যন্ত বৃদ্ধি করার একগুচ্ছো পরিকল্পনা করাই দূরদর্শীতার পরিচয়।

লক্ষ্য: যশোর শহর বেনাপোল পর্যন্ত বিস্তৃত করা, যানজট মুক্ত দ্রুতগতিতে গাড়ী চলাচল, শতবর্ষি যে কয়টা গাছ আছে সংরক্ষণের জন্য নতুন জায়গা দিয়ে নতুন রাস্তা করা।
আশু প্রয়োজন : দুর্নীতি মুক্ত যশোর বেনাপোল রাস্তা মেরামত।
আমার লেখাটা পড়ার জন্য অনুরোধ করছি সকলকে।
কোলকাতারর সাথে যোগাযোগের অন্যতম রাস্তা যশোর বেনাপোল সড়ক। বেনাপোল স্থলবন্দর দেশের সবচেয়ে বড় স্থল বন্দর।

রাস্তা চারলেন করা নিয়ে কয়েকদিন যশোরের মানুষ ফেসবুকে সবার মতামত দিয়ে যাচ্ছেন। কেউ কেউ বেশ কয়েক বার ও বিভিন্ন উদারণ সহ দিয়েছেন। ফেসবুক মারফৎ আমরা জানলাম রাস্তার বিষয়ে সংসদীয় কমিটির সংসদ সদস্যগন সরেজমিনে এরই মধ্যে ঘুরে গেছেন যশোর বেনাপোল মহা সড়কটি।
পুরাতন রাস্তাটি দ্রুত মেরামতের সিদ্ধান্ত ও সংসদীয় কমিটি নিয়েছেন। ধন্যবাদ সংসদীয় কমিটির সকল সদস্যকে।
যে আলোচনা গুলো এরই মধ্যে হয়েছে সে বিষয় আমরা সবাই অবগত সে গুলো আর নাহি বা লিখি।

আসুন একটা স্বপ্ন দেখি যশোর শহরের বর্তমান অবস্থান থেকে বড় হয়ে বেনাপোল পর্যন্ত বিস্তৃতি লাভ করেছে। মাঝে বিশেষ ইন্ডাষ্ট্রিয়াল জোন। আসুন স্বপ্ন দেখি বেনাপোল থেকে চারলেন যা ভবিষ্যতে আরও বড় হবে এ রকম একটা নতুন রাস্তা (নতুন এলাকা জুড়ে) নড়াইল কালনা ঘাট এবং মাগুরা পর্যন্ত চলে গেছে। ভাবছেন টাকা কোথা থেকে আসবে- আগে স্বপ্ন দেখুন, তারপর বিশ্বাস করুন এটা হবে তারপর দেখবেন টাকা জোগাড় হয়ে গেছে।

বেনাপোল বন্দরের বাৎসরিক রাজস্ব কত শত কোটি টাকা ?  চট্টগ্রাম থেকে কম, চট্টগ্রাম এ নতুন রাস্তা, ফ্লাইওভার, কর্ণফুলি নদীর তলদিয়ে টানেল সহ গত কয়েক বছরে হাজার হাজার কোটি টাকার উন্নয়ন হচ্ছে, আমরা সাধুবাদ জানাই অবশ্যই। তবে আমাদের এখানেও নয় কেন? আসুন যারা সংসদীয় কমিটিতে আছেন তাদের মাধ্যমে আমাদের এই স্বপ্ন পৌছিয়ে দিই সংশ্লিষ্ঠ সকলকে এবং মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নিকট।

বছর ৬/৭ আগে চীনের সেনঝিন শহর থেকে গুয়াংঝু যাচ্ছিলাম ব্যক্তিগত কার এ। নিজের গাড়ী নিজেই চালাচ্ছিলো ইঞ্জিনিয়ার সাউ। সেনঝিন থেকে প্রায় ৫০ কিলোমিটার আমরা চলে এসেছি গুয়াংঝু আরও ৫০কিলোমিটারের বেশী, মহাসড়কে দেখি এক বিশাল মোড় চারিদিকে লুপ আর লুপ অন্তত্য দশটির বেশী ছাড়া কম নয়। আমি কিছুটা অবাক হয়ে সাউকে প্রশ্ন করলাম এত লুপ কেন, সে জানালো আগামী ১০/১৫ বছরপর এখানে ট্রাফিক জ্যাম হবে ৩০ মিনিটের মত তাই আগেই লুপ তৈরী করে রাখা হয়েছে যাতে ট্রাফিক জ্যাম না হয়।

যশোর বেনাপোল সড়ক আমরা গাছ কেটে রাস্তা কত বড় করতে পারবো? কত লেন হবে সর্বোচ্চ ! যশোর বেনাপোল সড়কে বহু জায়গা আছে যেখানে এক লেনই সঠিক ভাবে সম্ভব নয় এখনই ভবিষ্যত তো পরের কথা। বরং নতুন জায়গা দিয়ে একশো বছরের হিসাব করে পরিকল্পিত রাস্তা করা বেনাপোল, শার্শা, নাভারন, ঝিকরগাছা স্যাটেলাইট শহরে রুপান্তরের মাধ্যমে যশোর মেগা সিটি বেনাপোল পর্যন্ত বিস্তৃতি লাভ, এরই মাঝে ইন্ডাষ্ট্রিয়াল জোন করার একগুচ্ছ পরিকল্পনা নেওয়া।

স্বপ্নের এই শহর বাস্তবায়ন হলে শত শত পর্যটক এক সময় আসবে যশোর বেনাপোল পুরাতন সড়কের শতবর্ষি গাছ গুলো দেখার জন্য। স্বপ্ন দেখি গাছ গুলো সংরক্ষণ এবং আরও মনোরম পরিবেশ তৈরী হয়েছে গাছগুলোকে কেন্দ্র করে। ভবিষ্যত প্রজন্মের নিঃশ্বাস ফেলার একটা জায়গা হয়েছে।

স্বপ্ন যখন দেখছি আর একটু দেখি। স্বপ্নের মেগা সিটি যশোর থেকে বেনাপোল পর্যন্ত বিস্তৃত। নতুন একটি রাস্তা চার লেন হয়ে গেছে তার পাশে আরও জায়গা আছে ভবিষ্যতে আরও বড় করার জন্য। অনেকেই বলছেন নতুন ভাবে জমি নিয়ে রাস্তা করলে ফসলের জমি কিছু ক্ষতি হবে। প্রত্যেক ক্রিয়ার সমান ও বিপরীত প্রতিক্রিয়া আছে, দেখার বিষয় কতটুকু ক্ষতি হল আর কত টুকু লাভবান হলাম। কারো জমির পাশ দিয়ে মহাসড়ক হলে শতকরা ৯৯ বা ১০০ ভাগ মানুষই নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করে।

বর্তমান যশোর বেনাপোল সড়ক এর পাশে অনেক জায়গা থাকবে তখন। ঐ জায়গা গুলোকে আমরা ফুল চাষিদের নিকট লিজ দিতে পারি, কোন কোন জায়গায় নতুন করে জলাশয় তৈরী করতে পারি অর্থাৎ যশোর থেকে বেনাপোল পর্যন্ত রাস্তার দু’ধারে পার্কের আদলে গড়ে তোলা সম্ভব। হতে পারে বিশ্বমানের স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়। হতে পরে হাসপাতাল, আধুনিক শপিংমল, আধুনিক রেষ্টুরেন্ট ফাইভস্টার মানের আবাসিক হোটেল। যশোর শহর বেনাপোল পর্যন্ত বিস্তৃত হলে যেহেতু ট্রেন লাইন আছে ট্রেন সার্ভিস চলু করা সময়ের ব্যপার হবে।

প্রিয় রাজনৈতীক নেতৃবৃন্দ আপনাদের কথা ইতিহাসে স্বর্ণা অক্ষরে লেখা থাকবে স্বপ্নিল যশোর এর কারিগর হিসাবে। পদ্মা সেতু বাস্তবায়ন করতে যেয়ে আমরা নতুন করে শিখেছি কি ভাবে স্বপ্ন বাস্তবায়ন করতে হয়। সেই স্বপ্ন দেখার সাহস আমরা পেয়েছি নতুন সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার কারিগর জননেত্রী শেখ হাসিনার কাছ থেকে।

আসুন ঐক্যমত পোষন করে স্বপ্ন বাস্তবায়নের জন্য জনমত, কর্মপন্থা তৈরী করি। যশোরের সকল সংসদ সদস্যবৃন্দ, সরকারি দল সহ সকল দলের মূলনেতাগন, সকল জনপ্রতিনিধিগন, সরকারি উচ্চপদস্থ সকল কর্মকর্তা, সংবাদিকগন সহ সকল শ্রেণী ঐক্যমত হউন আমরা যশোরকে স্বপ্নের মেগাসিটিতে পরিনত করি।

লেখক : সাংস্কৃতিক সম্পাদক, যশোর জেলা আওয়ামীলীগ।

সম্পাদনা করেছেন : আবুল কালাম আজাদ, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক, বাংলাদেশ বাণী,  ঝিকরগাছা, (যশোর) অফিস।
 
সর্বশেষ সংবাদ
  • আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জঙ্গিবাদ কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না : আইজিপি সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকারবাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরএনটিআরসিএ'র নতুন চেয়ারম্যান পদে আশফাক হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকারমানুষের স্বচ্ছতা বাড়ায় প্রতিবছর দেশে পূজা মণ্ডপ বাড়ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী“দেশে কোন সংখ্যালঘু নেই” : র‌্যাবের মহাপরিচালক নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে-মতবিরোধ থাকলেও জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় প্রভাব পড়বে না : সিইসিবাসাবাড়ি'র গ্যাসের মূল্য আপাতত বাড়ছে না : বিইআরসিঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জন্য দেড় বিঘা জমি প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী‘পদ্মাসেতু রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীবাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুরু সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে‘তিতলি’'র প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস : ভূমিধসের আশঙ্কাপ্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের ‘শেখ রাসেল সেতু’ উদ্বোধনভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে ৮ জনের প্রাণহানি : ক্রমশ: দুর্বল হচ্ছেএকুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় : বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড ❏ তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনইতিহাসের বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার মামলা ❏ বিচারের ঐতিহাসিক রায় আজসামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’ গঠন করেছে সরকারবিশ্ব বরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজদুর্যোগ কবলিত ইন্দোনেশিয়া লম্বা হচ্ছে লাশের মিছিল
  • আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জঙ্গিবাদ কোন প্রভাব ফেলতে পারবে না : আইজিপি সরকারি চাকরিতে প্রবেশের সর্বোচ্চ বয়স ৩৫ বছর করার উদ্যোগ নিয়েছে সরকারবাংলাদেশ ও সৌদি আরবের মধ্যে ৫টি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরএনটিআরসিএ'র নতুন চেয়ারম্যান পদে আশফাক হোসেনকে নিয়োগ দিয়েছে সরকারমানুষের স্বচ্ছতা বাড়ায় প্রতিবছর দেশে পূজা মণ্ডপ বাড়ছে : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী“দেশে কোন সংখ্যালঘু নেই” : র‌্যাবের মহাপরিচালক নির্বাচন কমিশনারদের মধ্যে-মতবিরোধ থাকলেও জাতীয় নির্বাচন পরিচালনায় প্রভাব পড়বে না : সিইসিবাসাবাড়ি'র গ্যাসের মূল্য আপাতত বাড়ছে না : বিইআরসিঢাকেশ্বরী জাতীয় মন্দিরের জন্য দেড় বিঘা জমি প্রদান করলেন প্রধানমন্ত্রী‘পদ্মাসেতু রেল সংযোগ নির্মাণ প্রকল্পের’ উদ্বোধন করেছেন প্রধানমন্ত্রীবাঙালি হিন্দু সম্প্রদায়ের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা আজ শুরু সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে‘তিতলি’'র প্রভাবে ভারি বৃষ্টিপাতের আভাস : ভূমিধসের আশঙ্কাপ্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সে নড়াইলের ‘শেখ রাসেল সেতু’ উদ্বোধনভারতের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’র আঘাতে ৮ জনের প্রাণহানি : ক্রমশ: দুর্বল হচ্ছেএকুশ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলার রায় : বাবরসহ ১৯ জনের মৃত্যুদন্ড ❏ তারেকসহ ১৯ জনের যাবজ্জীবনইতিহাসের বর্বরোচিত গ্রেনেড হামলার মামলা ❏ বিচারের ঐতিহাসিক রায় আজসামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ‘গুজব শনাক্তকরণ সেল’ গঠন করেছে সরকারবিশ্ব বরেণ্য চিত্রশিল্পী এসএম সুলতানের ২৪ তম মৃত্যুবার্ষিকী আজদুর্যোগ কবলিত ইন্দোনেশিয়া লম্বা হচ্ছে লাশের মিছিল
উপরে