প্রকাশ : ০৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৭ ০১:৫০:০২
কাজ করছেন যারা ❏ সামাজিক সম্প্রীতি বন্ধনের এক অনন্য দৃষ্টান্ত
বাংলাদেশ বাণী, খুলনা থেকে সংবাদদাতা : “নেই দলাদলি, নেই বিভক্তি-আছে ঐক্য আছে সম্পৃতি” উদ্দেশ্য বেকার ও দারিদ্রমুক্ত একটি সুখি ও সম্মৃদ্ধশালী আদর্শ গ্রাম তৈরী করা এবং মানুষদের মসজিদ মুখি করা। যার নাম খুলনা ডুমুরিয়ার অন্তর্গত থুকড়া গ্রাম।

পবিত্র ঈদুল আযহায় ঐ গ্রামে ৬ থেকে ৭ হাজার জনমানুষের মধ্যে মোট ৪৫ জন কুরবানি করেন। এত বিশাল জনশক্তি অল্প কয়েকটি গরু-ছাগল কুরবানি দিয়ে পারবে কি সবার সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে? ঠিক এমনই যখন প্রশ্ন তখন দলমত নির্বিশেষে সবার সাথে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করতে দায়িত্ব কাধেঁ তুলে নেন থুকড়া বায়তুস সালাম কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ কমিটি। আর সহযোগীতার হাত বাড়িয়ে দেন এলাকার সকল গন্যমান্য ব্যক্তিবর্গ। তাদের সাথে যুক্ত হয়ে কাজকে আরো বেগবান করতে ও অনুপ্রেরণা যোগাতে সুদূর খুলনা থেকে বারবার ছুটে আসেন থুকড়া বায়তুস সালাম যাকাত কমিটির প্রধান উপদেষ্টা, ইসলামী কলামষ্টি, ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর।

প্রথমে তারা এলাকার প্রতিটি ঘরের তালিকা তৈরী করেন যার সংখ্যা দাড়ায় ৫৫৫ ঘর। এর মধ্যে এ বছর কুরবানি দিচ্ছে মাত্র ৪৫ ঘর। মসজিদ কমিটি ৪৫ জন কুরবানী দাতার কাছ থেকে মোট গোশত সংগ্রহ করেন ৬৪৮ কেজি। আর কুরবানী দিচ্ছে না এমন ৫০৬ ঘরকে তারা গোসত বিতরণ করার সিদ্ধান্ত নেন। অতএব, তারা পরিবারের সদস্য সংখ্যার উপর ভিত্তি করে ১-৩ সদস্য পরিবারের জন্য গোশত বরাদ্দ করেন সোয় ১ কেজি, ৪-৭ সদস্য পরিবারের জন্য বরাদ্দ করেন ১.০৫ কেজি আর ৮ থেকে তার উপরে সদস্য পরিবারের জন্য বরাদ্দ করেন ২ কেজি করে। এভাবে ৫২০ প্যাকেট করে তারা পৌছে দেন প্রতিটি ঘরে ঘরে সুশৃংখলভাবে। এ কাজে সেচ্ছায় শ্রম দেন এলাকার একদল নিবেদিত মানুষ আর সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন মসজিদ কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট সমাজ সেবক মোঃ আফজাল হোসেন, জি এম জহিরুল হক, বি এম আবঃ রাজ্জাক, জি এম আফজাল হোসেন, বি এম আয়ুব আহমেদ, জি এম জাহাঙ্গির হোসেন, আলহাজ আঃ গনী, আজ্জব আলী প্রমূখ।

এ কার্যক্রম সম্পর্কে কুরবানি দাতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মোঃ জামিরুল ইসলাম বলেন-এ উদ্দোগ খুবই প্রসংসনীয় এবং কষ্টের। আমাদের পক্ষে এভাবে সমবন্ঠন করে মানুষের বাড়িতে বাড়িতে গোশত পৌছে দিয়ে আসা সম্ভব নয় যা মসজিদ কমিটি করছে। এতে আমরা সবাই খুব খুশি ও আনন্দিত।

মসজিদ কমিটির সভাপতি মোঃ আফজাল হোসেন বলেন-আমরা চেয়েছি এলাকার সকল মানুষ পবিত্র ঈদুল আযহার আনন্দ সমানভাবে উপভোগ করুক। তিনি বলেন এ কার্যক্রম বিগত দুই বছর ধরে চলে আসছে। আগামী দিনে আরো জোরদারভাবে করা হবে ইনশাআল্লাহ।

যাকাত কমিটির প্রধান উপদেষ্টা ডাঃ হাফেজ মাওলানা মোঃ সাইফুল্লাহ মানসুর বলেন-আমাদের সামাজিক উন্নতির জন্য সবার আগে যেটা প্রয়োজন সেটা হলো সহানুভূতি এবং ঐক্য। এ দুটি জিনিস যদি গ্রহন করতে পারি এবং আল্লাহর বিধানাবলী যদি সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে পারি তাহলে আমাদের গোটা সমাজের চেহারাটাই বদলে যাবে। আমরা সেই চেষ্টাই চালিয়ে যাচ্ছি।
উল্লেখ্য, তারা গ্রামকে বেকার ও দারিদ্রমুক্ত করতে যাকাত ভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার বিরাট কর্মসূচী বাস্তবায়ন করে চলেছে।


 
সর্বশেষ সংবাদ
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
  • সিকান্দারের ব্যাটিং নৈপুণ্যে : স্বাগতিকরা ৪০ রানে হারিয়েছে সিলেট সিক্সার্সকেইরানের সর্বোচ্চ নেতা খামেনি মধ্যপ্রাচ্যের ‘নয়া হিটলার’ : সৌদি যুবরাজবঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণের স্বীকৃতি যথাযথ মর্যাদায় সারা দেশে উদযাপন আজআওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে দেশের মানুষের সত্যিকার উন্নতি হয় : প্রধানমন্ত্রী দশম জাতীয় সংসদের অষ্টাদশ অধিবেশন শেষ হয়েছেজার্মানী, সুইডেন ও ইইউ’র রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের প্রতি জোরালো সমর্থন রাবি ছাত্রী অপহরণ : সাবেক স্বামীসহ ২ জনকে ১ দিনের রিমান্ড বাংলাদেশকে উন্নত সমৃদ্ধ করে গড়ে তুলে জাতির পিতার স্বপ্ন পূরণ করবো : প্রধানমন্ত্রীবঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণ বিশ্বের নিপীড়িত নির্যাতিত মানুষকে অনুপ্রাণিত করবে : সমাবেশে বক্তারা গেইল-ম্যাককালামের ব্যর্থতায় কুমিল্লার কাছে রংপুরের পরাজয়রাবির অপহৃত ছাত্রী ঢাকায় উদ্ধার : নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কা কাটেনিআজ নাগরিক সমাবেশে : সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ফিরে পাবে একাত্তরের ৭ মার্চের আবহমিয়ানমার কর্তৃপক্ষের প্রতি রোহিঙ্গাদের ওপর হামলা বন্ধে জাতিসংঘের আহবান‘মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের গণহত্যার জোরালো প্রমাণ পাওয়া গেছে’টেকসই অবকাঠামো উন্নয়নে ২৬ কোটি ডলার দেবে এশীয় উন্নয়ন ব্যাংকদলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে যাবে না বিএনপি'র নেতৃত্বাধীন জোটসংসদীয় আসনের সীমানা পুন:নির্ধারণ আইন সংশোধনের খসড়া প্রস্তুত করেছে ইসিজিম্বাবুয়ের সেনা কর্মকর্তারা অভ্যুত্থানের কথা অস্বীকার করেছেনএকাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সেনা মোতায়েন বিষয়ে ইসি সিদ্ধান্ত নেয়নি : সিইসিআজ ভয়াল ১৫ নভেম্বর : স্বজন হারাদের কাঁন্না থামেনি আজও
উপরে